জাবি ভর্তিতে ‘বৈষম্য’: জবাব চেয়ে ৬ ভর্তিচ্ছুর উকিল নোটিশ


টাইমস অনলাইনঃ
Published: 2018-10-24 22:42:53 BdST | Updated: 2018-11-18 02:27:40 BdST

জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) কলা ও মানবিকী অনুষদের (সি ইউনিট) ভর্তি পরীক্ষার প্রকাশিত ফলে মাদরাসা শিক্ষার্থীদের সঙ্গে বৈষম্যে করা হয়েছে উল্লেখ করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে উকিল নোটিশ পাঠিয়েছেন ৬ ভর্তিচ্ছু।

সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী অ্যাডভোকেট সৈয়দ মুহম্মদ রাইহান উদ্দিনের মাধ্যমে তারা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য, রেজিস্ট্রার, একাডেমিক কাউন্সিলের সভাপতি, ডেপুটি রেজিস্ট্রার (শিক্ষা) এবং কলা ও মানবিকী অনুষদের ডিন বরাবর এই উকিল নোটিশ পাঠান।

ভর্তিচ্ছুরা হলেন— সাজ্জাদুল ইসলাম, মো. নওসাজ্জামান, রাকিব হোসাইন, মো. আনিসুর রহমান, মো. ওসমান গণি ও মো. বায়েজিদ হোসেন।

উকিল নোটিশে উল্লেখ করা হয়েছে, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে কেবল কলা ও মানবিকী অনুষদে (সি ইউনিট) মাদরাসা শিক্ষার্থীদের জন্য পৃথক মেধাতালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। অথচ অন্যান্য ইউনিটে ভর্তিচ্ছুদের জন্য পার্থক্য তৈরি না করে সমন্বিত মেধাতালিকা প্রকাশ করা হয়েছে। এর মাধ্যমে কলা ও মানবিকী অনুষদ স্বেচ্ছাচারী ও বৈষম্যমূলকভাবে মাদরাসা শিক্ষার্থীদের জন্য উচ্চ শিক্ষায় প্রবেশ সীমাবদ্ধ করার উদ্দেশ্যে ভর্তিচ্ছুদের মধ্যে একটি শ্রেণি তৈরি করেছে।

তবে বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার (ভারপ্রাপ্ত) রহিমা কানিজ এবং কলা ও মানবিকী অনুষদের ডিন অধ্যাপক মো. মোজাম্মেল হক জানিয়েছেন, তারা এ ধরনের কোনো উকিল নোটিশ পাননি। এ বিষয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ফারজানা ইসলামের কোনো মন্তব্যও পাওয়া সম্ভব হয়নি।

প্রসঙ্গত, এ বছর কলা ও মানবিকী অনুষদের (নাটক ও নাট্যতত্ত্ব বিভাগ এবং চারুকলা বিভাগ ছাড়া) প্রায় সাড়ে তিনশ আসনের মধ্যে মাদরাসা ও কারিগরি বিভাগের শিক্ষার্থীদের জন্য ১৩টি আসন বরাদ্দ রাখা হয়েছে।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।