শেকৃবির ভর্তি পরীক্ষায় ডিজিটাল জালিয়াতি, আটক ৪


টাইমস অনলাইনঃ
Published: 2018-12-07 19:41:43 BdST | Updated: 2019-01-24 13:48:18 BdST

রাজধানীর শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ে (শেকৃবি) ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক শ্রেণির ভর্তি পরীক্ষায় ডিজিটাল জালিয়াতি করতে গিয়ে ৪ ভর্তিচ্ছুকে আটক করেছে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। কেন্দ্রে প্রবেশের সময় মেটাল ডিটেক্টর ও আর্চওয়েতে তাদের কাছে ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস পাওয়া গেছে।

পরে তাদের মোহাম্মদপুর ও শেরেবাংলা নগর থানা পুলিশের কাছে সোপর্দ করা হয়। শুক্রবার বিশ্ববিদ্যালয়সহ মোট ১৫টি কেন্দ্রে এ পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়।

আটককৃতরা হলেন, মোহাম্মদপুর সরকারি উচ্ছে বিদ্যালয় কেন্দ্র থেকে রাশিদা আক্তার রজনী, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব একাডেমি কেন্দ্র থেকে জয় পাল, শেরেবাংলা নগর সরকারি বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্র থেকে ইকবাল মাহাবুব এবং শেরেবাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্র থেকে মাহিম খান।

আটক হওয়া মহিউদ্দিন খান ভ্রাম্যমান আদালতকে বলেন, এ কাজে আমি ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের নিউক্লিয়ার ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের শিক্ষার্থী রবিউল ইসলাম অর্ণব এর মাধ্যমে করেছি। অর্ণব আমাকে বলেন, যারা চান্স পায় তারা এভাবেই চান্স পায় এবং ডিভাইসে উত্তর পাঠানোর পর যদি চান্স পাও তবেই ৪ লক্ষ টাকা নিব।

এ ব্যাপারে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রো-ভিসি প্রফেসর ড. মো. সেকেন্দার আলী বলেন, শিক্ষার্থীরা কেন্দ্রে প্রবেশের সময় মেটাল ডিটেক্টর ও আর্চওয়ে ব্যবহার বাধ্যতামূলক ছিল। এর মধ্যে তিনজন শিক্ষার্থী মেটাল ডিটেক্টর ও আর্চওয়ে ব্যবহার সময়ই ইলেক্ট্রনিক ডিভাইস সহকারে ধরা পড়ে। এদের কাছ থেকে অনেক মূল্যবান তথ্য পাওয়া গেছে যা পুলিশের তদন্তকে সাহায্য করবে।

জানা যায়, নৈর্ব্যক্তিক প্রশ্ন কাঠামোতে গৃহীত এ পরীক্ষা সকাল ১০টা ৩০মিনিট থেকে শুরু হয়ে সকাল ১১টা ৩০মিনিটে শেষ হয়। ভর্তি পরীক্ষার ফলাফল আগামী ১৩ ডিসেম্বরের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের নিজস্ব ওয়েবসাইটে প্রকাশ করা হবে।

 

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।