রাবিতে ভর্তি পরীক্ষার প্রাথমিক আবেদন শুরু


টাইমস অনলাইনঃ
Published: 2019-09-03 22:04:18 BdST | Updated: 2019-11-22 14:44:01 BdST

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) ২০১৯-২০ শিক্ষাবর্ষের স্নাতক (সম্মান) প্রথম বর্ষ ভর্তি পরীক্ষার প্রাথমিক আবেদন শুরু হয়েছে। ভর্তিচ্ছু শিক্ষার্থীদের প্রাথমিকভাবে ৫৫ টাকা ফি দিয়ে এই আবেদন করতে হবে।

মঙ্গলবার (৩ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকে শুরু হয়েছে প্রাথমিক আবেদন প্রক্রিয়া। ১২ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত প্রাথমিক আবেদন গ্রহণ করা হবে বলে জানিয়েছেন রাবি জনসংযোগ প্রশাসক অধ্যাপক ড. প্রভাষ কুমার কর্মকার।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্র জানায়, এ বছরের ভর্তি পরীক্ষা আগামী ২০, ২১ ও ২২ অক্টোবর অনুষ্ঠিত হবে। এদিকে চূড়ান্ত আবেদন শুরু হবে ১৭ সেপ্টেম্বর থেকে। ৩০ সেপ্টেম্বর চূড়ান্ত আবেদন প্রক্রিয়া শেষ হবে। চূড়ান্ত আবেদনে ইউনিট প্রতি ১২০০ টাকা ফি নির্ধারণ করা হয়েছে।

ড. প্রভাষ কুমার কর্মকার জানান, বিজ্ঞান, বাণিজ্য ও মানবিক— এই তিনটি ইউনিটে ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। ‘এ’ ইউনিটের অধীনে মানবিক, সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ, শিক্ষা ও গবেষণা ইনস্টিটিউট এবং চারুকলা ও আইন অনুষদের পরীক্ষা নেওয়া হবে। ‘বি’ ইউনিটে থাকছে ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদ, ব্যবসায় প্রশাসন ইনস্টিটিউটের বিভাগের পরীক্ষা। আর ‘সি’ ইউনিটের অধীনে বিজ্ঞান, জীব ও ভূবিজ্ঞান, কৃষি অনুষদ ও প্রকৌশল অনুষদের অধীন বিভাগগুলোর পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হবে। তবে প্রতিটি ইউনিট সব শিক্ষার্থীর জন্য উন্মুক্ত থাকবে। একাধিক ইউনিটে আবেদন করতে পারবেন শিক্ষার্থীরা।

পরীক্ষা পদ্ধতি

লিখিত ও এমসিকিউ— দুই পদ্ধতিতেই পরীক্ষা নেওয়া হবে রাবিতে। মোট ১০০ নম্বরের ভর্তি পরীক্ষায় ৬০ নম্বর থাকবে বহুনির্বচনি প্রশ্ন (এমসিকিউ), বাকি ৪০ নম্বর লিখিত। এর মধ্যে লিখিত অংশে ২ নম্বরের ২০টি প্রশ্নের উত্তর দিতে হবে ৪০ মিনিটের মধ্যে। আর ৬০টি এমসিকিউ প্রশ্নের জন্য সময় বরাদ্দ থাকবে ৫০ মিনিট। প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে ১০টা ৪৫ মিনিট ও ১২টা থেকে ১টা ৪৫ মিনিট পর্যন্ত দুই শিফটে পরীক্ষা চলবে।

আবেদনের যোগ্যতা

‘এ’ ইউনিটে আবেদনের জন্য এসএসসি ও এইচসি পরীক্ষার প্রতিটিতে ন্যূনতম সিজিপিএ ৩.০০-সহ মোট সিজিপিএ ৭.০০ থাকতে হবে। ‘বি’ ইউনিটে আবেদেনের জন্য এসএসসি ও এইচএসসিতে ন্যূনতম ৩.৫০ সিজিপিএ থাকতে হবে, মোট সিজিপিএ থাকতে হবে ৭.৫০। আর ‘সি’ ইউনিটের জন্য দুই পাবলিক পরীক্ষার প্রতিটিতে ৩.৫০ সিজিপিএসহ মোট সিজিপিএ থাকতে হবে ৮.০০।

বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন জানিয়েছে, প্রতিটি ইউনিটে ৩২ হাজার শিক্ষার্থী পরীক্ষায় বসার সুযোগ পাবেন।