হাইকোর্টকে জানাল বিআরটিএ

দুই শিক্ষার্থীর পরিবারকে ৫ লাখ করে টাকা দেবে জাবালে নূর


টাইমস প্রতিবেদক
Published: 2018-08-13 04:51:24 BdST | Updated: 2018-09-26 00:03:04 BdST

রাজধানীর কুর্মিটোলায় বাসচাপায় নিহত দুই শিক্ষার্থী আবদুল করিম ওরফে রাজীব ও দিয়া খানম ওরফে মিমের পরিবারকে জাবালে নূর পরিবহন কর্তৃপক্ষ পাঁচ লাখ টাকা করে দেবে বলে হাইকোর্টকে জানিয়েছে বাংলাদেশ রোড ট্রান্সপোর্ট অথরিটি (বিআরটিএ)।

আদালতের নির্দেশনা অনুসারে বিআরটিএর ওই প্রতিবেদন দাখিলের পর রোববার (১২ আগস্ট) বিচারপতি জে বি এম হাসান ও বিচারপতি মো. খায়রুল আলমের সমন্বয়ে গঠিত হাইকোর্ট বেঞ্চ পরবর্তী আদেশের জন্য ৭ অক্টোবর দিন রেখেছেন।

এর আগে ২৯ জুলাই কুর্মিটোলা জেনারেল হাসপাতালের সামনের বিমানবন্দর সড়কে আবদুল্লাহপুর থেকে মোহাম্মদপুর রুটে চলাচলকারী জাবালে নূর পরিবহন লিমিটেডের একটি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে শহীদ রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র আবদুল করিম ও একই কলেজের ছাত্রী দিয়া খানম প্রাণ হারায়। ওই দুর্ঘটনায় নিহতদের পরিবারকে ক্ষতিপূরণ দিতে নির্দেশনা চেয়ে সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী রুহুল কুদ্দুস পরদিন রিট করেন।Eprothomalo

প্রাথমিক শুনানি নিয়ে সেদিন হাইকোর্ট রুল দেওয়ার পাশাপাশি তাৎক্ষণিক চাহিদা মেটাতে নিহত দুই শিক্ষার্থীর পরিবারকে এক সপ্তাহের মধ্যে পাঁচ লাখ করে টাকা দিতে জাবালে নূর পরিবহন কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেওয়া হয়। একই সঙ্গে চালকদের ড্রাইভিং লাইসেন্স কোন যোগ্যতার ভিত্তিতে দেওয়া হয় এবং সড়কে চলাচলকারীদের নিরাপত্তা নিশ্চিতে বিআরটিএ কর্তৃপক্ষ কী পদক্ষেপ নিয়েছে, তা জানিয়ে একটি প্রতিবেদন ১২ আগস্টের মধ্যে আদালতে দাখিল করতে বিআরটিএ কর্তৃপক্ষকে নির্দেশ দেওয়া হয়। এর ধারাবাহিকতায় আজ প্রতিবেদন দাখিল করে বিআরটিএ কর্তৃপক্ষ।

আদালতে জাবালে নূরের পক্ষে শুনানি করেন আইনজীবী পঙ্কজ কুমার কুণ্ডু। রিট আবেদনের পক্ষে ছিলেন আবেদনকারী আইনজীবী রুহুল কুদ্দুস। আর বিআরটিএর পক্ষে ছিলেন আইনজীবী মোহাম্মদ রাফিউল ইসলাম।

আইনজীবী রুহুল কুদ্দুস বলেন, ওই অর্থ পরিশোধে জাবালে নূর পরিবহন কর্তৃপক্ষ সময় চেয়েছিল, আদালত তা নামঞ্জুর করে অর্থ পরিশোধের আদেশ বাস্তবায়ন করতে বলেছেন। চালকদের ড্রাইভিং লাইসেন্স কোন যোগ্যতার ভিত্তিতে দেওয়া হয় এবং সড়কে চলাচলকারীদের নিরাপত্তা নিশ্চিতে বিআরটিএর পদক্ষেপ জানিয়ে দেওয়া প্রতিবেদনের ওপর ৭ অক্টোবর শুনানির জন্য দিন রেখেছেন আদালত।

বিআরটিএর আইনজীবী মোহাম্মদ রাফিউল ইসলাম বলেন, ‘জাবালে নূরের দুই গাড়ির রেজিস্ট্রেশন এবং চালকের ড্রাইভিং লাইসেন্স বাতিল করা হয়েছে। ওই অর্থ পরিশোধ করবে বলে ওই পরিবহন কর্তৃপক্ষ লিখিতভাবে বিআরটিএকে জানিয়েছে, যা আদালতে দাখিল করেছি। এ ছাড়া কোন যোগ্যতার ভিত্তিতে পেশাদার চালক হিসেবে লাইন্সেন্স দেওয়া হয় এবং সড়ক দুর্ঘটনা রোধে কী কী পদক্ষেপ নেওয়া হয়েছে, তা-ও প্রতিবেদন উল্লেখ করা হয়েছে।’

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।