করোনায় চাকরি হারিয়ে তরুণীর আত্মহত্যা


নাটোর
Published: 2020-07-12 00:06:13 BdST | Updated: 2020-08-07 09:09:05 BdST

আমি মরে গেলে তোরা এগুলো দেখিস এমন স্ট্যাটাস দিয়ে আত্মহত্যা করেছে জেনি বেবি কস্তা নামে এক খ্রিস্টান নারী। করোনাভাইরাসের কারণে চাকরি হারিয়ে হতাশ ছিলেন তিনি। শনিবার দুপুরে ঘটনাটি ঘটেছে নাটোরের বড়াইগ্রাম উপজেলার বনপাড়া বাহিমালী গ্রামে।

স্থানীয়রা জানান, গত ১৬ বছর আগে স্বামীর সাথে ছাড়াছাড়ি হয়ে গেলে জেনি বেবী কস্তা আর বিয়ে করেননি। তিনি ঢাকার গুলশানে আমেরিকান পরিবারে হাউজ কেয়ার ডিভার পদে চাকরি করতেন। কিন্তু করোনাভাইরাসের কারণে পরিবারটি আমেরিকা চলে গেলে গত তিন মাস যাবত সে গ্রামে এসে তার ভাইয়ের বাড়িতে অবস্থান করছিলো।

বাবা-মাহীন জেনি বেবি কস্তাকে কর্মহীন হয়ে থাকার কারণে নানা সময়ে ভাইয়ের পরিবারের লোকজন কটু কথা শোনাতো এবং মারধর করতো। এজন্য বেবি কস্তা হতাশায় ভুগছিলেন এবং ফেসবুকে আত্মহত্যা করবে এমন ইঙ্গিত দিয়ে নানাবিধ পোস্ট দিয়ে আসছিলেন।

সর্বশেষ শুক্রবার রাতে স্থানীয় এক সাংবাদিককে হতাশার কারণ জানিয়ে মেসেঞ্জারে নানা বিষয় লিখে জানায় বেবি কস্তা। পরবর্তীতে ফেসবুকে নিজের ২৬টি ছবি পোস্ট দিয়ে তিনি স্ট্যাটাস দেন ‘আমি মরে গেলে তোরা এগুলো দেখিস’। সাংবাদিক তাকে সহযোগিতার আশ্বাস দিয়ে শনিবার বিকেলে দেখা করতে চেয়েছিল। তার আগেই দুপুরে বেবি কস্তা আত্মহত্যা করেন।

বনপাড়া পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ তৌহিদুল ইসলাম জানান, ‘ঘরের তীরের সাথে ওড়না পেঁচিয়ে গলায় ফাঁস লাগিয়ে জেনি বেবি কস্তা আত্মহত্যা করেছেন। খবর পেয়ে পুলিশ তার মৃতদেহ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠিয়েছে। আত্মহত্যার কারণ খতিয়ে দেখছে পুলিশ।’