দুর্নীতিবিরোধী গল্প লেখায় তাঁরা সেরা তিন


Dhaka
Published: 2020-09-15 21:11:32 BdST | Updated: 2020-09-23 18:36:18 BdST

১২ ই আগস্ট আন্তর্জাতিক যুব দিবস উদযাপন উপলক্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়ন অধ্যয়ন বিভাগ ইয়েস গ্রুপ ' করোনাকালে দুর্নীতি ও প্রতিরোধের গল্প ' লেখা প্রতিযোগিতার আয়োজন করে। প্রতিযোগিতায় সারাদেশের উচ্চমাধ্যমিক থেকে স্নাতকোত্তর পর্যায়ের প্রায় অর্ধশতাধিক শিক্ষার্থী অংশগ্রহণ করেন এবং সেরা ১১ টি গল্পের মধ্যে চূড়ান্তভাবে ৩ জনকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়। এই প্রতিযোগিতার বিচারকার্য পরিচালনা করেন দেশের জনপ্রিয় ঔপন্যাসিক, লেখক ও নির্মাতা সাদাত হোসাইন এবং লেখক ও গল্পকার রাহেল রাজীব।

প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অর্জন করেছেন শেরে বাংলা কৃষি বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী জান্নাতুন নাইয়ুম সোমা, দ্বিতীয় স্থান অধিকার করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী মোহাম্মদ ফখরুল ইসলাম এবং তৃতীয় ঢাকা মেডিকেল কলেজের সাবরিনা মনসুর।

১২ ই আগস্ট থেকে শুরু করে টানা এক মাস 'করোনাকালে দুর্নীতি ও প্রতিরোধ' বিষয়ক গল্প জমা নেয়া শেষ করে আজ ১৫ ই সেপ্টেম্বর ওয়েবিনারের মাধ্যমে উক্ত প্রতিযোগিতার ফলাফল ঘোষণা এবং পুরষ্কার বিতরণী উপলক্ষ্যে 'দুর্নীতিবিরোধী গল্প আড্ডা' আয়োজন করে উন্নয়ন অধ্যয়ন বিভাগ ইয়েস গ্রুপ। উক্ত অনুষ্ঠানে অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন টিআইবি'র নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান, লেখক ও নির্মাতা সাদাত হোসাইন, লেখক ও গল্পকার রাহেল রাজিব এবং উন্নয়ন অধ্যয়ন বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ইমরান হোসাইন ভুঁইয়া। অনুষ্ঠানের উদ্বোধনী বক্তব্য দেন টিআইবির আউটরিচ অ্যান্ড কমিউনিকেশন বিভাগের পরিচালক শেখ মনজুর ই আলম। অনুষ্ঠানটি সঞ্চালনা করেন প্রতিষ্ঠানটির ডেপুটি প্রোগ্রাম ম্যানেজার জাফর সাদিক।

পুরষ্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে অতিথিদের বক্তব্যে উন্নয়ন অধ্যয়ন বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ইমরান হোসাইন ভুঁইয়া বলেন - ' দুর্নীতি কি সে বিষয়ে আমাদের নিজেদের বোধ গড়ে উঠা অনেক গুরুত্বপূর্ণ। আমাদের আশেপাশে নিজের কেউ দুর্নীতিগ্রস্ত হলে তাকে প্রশ্রয় দিয়ে, অন্যদের বিরোধিতা করার একটা প্রবণতা সমাজে দেখা যায় যেটি পরিবর্তন হওয়া জরুরি। এক্ষেত্রে অবশ্যই পরিবারের পাশাপাশি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলোকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করতে হবে যেখানে শিক্ষক এবং শিক্ষার্থীরা পারিপার্শ্বিক সব অন্যায় ও অনিয়ম চিহ্নিত করবে এবং তার বিরুদ্ধে প্রশ্ন তুলবে। '

সাদাত হোসাইন বলেন, "সাহিত্য হলো সমাজের দর্পণ। দুর্নীতিমুক্ত সমাজ গড়ে তুলতে হলে পারিবারিক শিক্ষা এবং মূল্যবোধের চর্চা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। আদর্শের চর্চার মাধ্যমেই দুর্নীতিমুক্ত সমাজ গড়ে তোলা সম্ভব।"

"ইতিহাস লক্ষ্য করলে দেখা যায়, সকল মহাকাব্যে নৈতিক অবস্থানকে কেন্দ্র করেই যুদ্ধ হয়েছে। বাংলাদেশের প্রেক্ষাপটে বলবো, জ্ঞানভিত্তিক ও তথ্যভিত্তিক দুই ধরণের সমন্বিত চর্চার মাধ্যমে সমাজ গড়ে তোলার মধ্য দিয়ে দুর্নীতি নির্মূল করা সম্ভব"- বলেন রাহেল রাজিব।

.

সবশেষে টিআইবির নির্বাহী পরিচালক ড. ইফতেখারুজ্জামান বলেন, "তরুণ প্রজন্মের কাছে আমার অনুরোধ থাকবে, তোমাদের এই দুর্নীতিবিরোধী চেতনা যেনো গল্পেই সীমাবদ্ধ না থাকে, তোমরা কথা বলবে মানুষের অধিকার নিয়ে, সমাজে সমতা সৃষ্টির জন্য এবং অবশ্যই যেখানে থাকো না কেন, নিজের কাছে অঙ্গীকার করবে যে নিজেকে সকল প্রকার দুর্নীতি থেকে বিরত রাখবে।"

প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের টিআইবি ইয়েস গ্রুপের পক্ষ থেকে উপহার হিসেবে বই এবং সনদপত্র প্রদান করা হয়। এছাড়া সেরা ৩ টি গল্প এই আয়োজনের মিডিয়া পার্টনার যথাক্রমে দৈনিক সমকাল, দৈনিক আনন্দবাজার এবং ক্যাম্পাস টাইমস পত্রিকায় প্রকাশিত হবে।

উন্নয়ন অধ্যয়ন বিভাগ ইয়েস গ্রুপের উপদেষ্টা ও একই বিভাগের সহকারী অধ্যাপক ইমরান হোসাইন ভুঁইয়ার নির্দেশনায় এবং ইয়েস গ্রুপের দলনেতা আশিক সুফী ইসলাম, সহ দলনেতা কে এম ইমরুল হাসান ও মাশরেফা তারান্নুমের নেতৃত্বে পুরো প্রতিযোগিতাটি সমন্বয় করেছন একই বিভাগের শিক্ষার্থী ও ইয়েস গ্রুপের সদস্য আরজু আফরিন ক্যাথি, ফাইরুজ মৌ, পূর্বাশা পৃথ্বী, আল মারুফি রহমান স্বজন ও নাইম সুলতান।

উল্লেখ্য যে, ঢাকার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ও ঢাকার বাইরের তরুণ শিক্ষার্থীদের নিয়ে গঠিত দেশের ৪৫ টি অঞ্চলে ৬১ টি ইয়ুথ এনগেইজমেন্ট এন্ড সাপোর্ট- ইয়েস গ্রুপের মাধ্যমে ট্রান্সপারেন্সি ইন্টারন্যাশনাল বাংলাদেশ (টিআইবি) দেশের তরুণ সমাজের মাঝে দুর্নীতিবিরোধী চাহিদা সৃষ্টি ও সচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে নানা কর্মসূচি পালন করে আসছে। ঢাকার ১৬ টি ইয়েস গ্রুপের মধ্যে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উন্নয়ন অধ্যয়ন বিভাগ ইয়েস গ্রুপও টিআইবির কার্যক্রমের সাথে সামঞ্জস্য রেখে নিয়মিত দুর্নীতিবিরোধী বিভিন্ন কর্মসূচির আয়োজন করে থাকে।