চলো হাসি একসাথে


টাইমস অনলাইনঃ
Published: 2018-03-22 16:39:48 BdST | Updated: 2018-07-16 12:18:08 BdST

আজকের শিশুরাই দেশ ও জাতির ভবিষ্যৎ কর্ণধার।শিশুরাই প্রতিনিধিত্ব করবে আগামী বিশ্বকে। শিশুদের ভবিষ্যতে নেতৃত্বদানের উপযুক্ত করে গড়ে তুলতে প্রতিটি বাবা-মা আপ্রাণ চেষ্টা করে। বিভিন্ন সংগঠনও শিশুদের আদর্শ মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে কাজ করে যাচ্ছে। কিন্তু যে সকল শিশুরা তাদের বাবা অথবা মা হারিয়ে অনাথ আশ্রমে দিন কাটাচ্ছে তাদের সাথে একটি সুন্দর দিন কাটানোর জন্য স্যার সলিমুল্লা মুসলিম এতিমখানায় ছুটে যায় এক ঝাঁক তরুণ ও তরুণী আর্ন্তজাতিক সেচ্ছাসেবী সংগঠন আওয়ারনেস 360 এর পক্ষ থেকে।

'সে ইয়েস টু চেন্জ (পরিবর্তনের পক্ষে কথা বল)এই প্রতিপাদ্য নিয়ে এবং জাতিয় শিশু দিবস উপলক্ষে গত শনিবার সকাল ৯-১২.৩০ পর্যন্ত ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সংলগ্ন স্যার সলিমুল্লাহ মুসলিম এতিমখানায় একটি কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়।
'শেয়ারিং হ্যাপিনেস' নামে এ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে একঝাক তরুন স্বেচ্ছাসেবী এতিম শিশুদের সাথে আনন্দ ভাগাবাগি তরে নেয়।অনুষ্ঠানে উপস্হিত ছিলেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া বেশ কিছু ছাত্র-ছাত্রী এবং এতিমখানার বিভিন্ন বয়সী ৫০-৬০জন মেয়ে শিশু এবং এতিমখানা কতৃপক্ষের কিছু সদস্য।।তারা সবাই শিশুদের সাস্হ্য, পুষ্টি,পরিষ্কার-পরিছন্নতা,নিরাপদ পানি,বয়:সন্ধিকালীন বিভিন্ন সমস্যা নিয়ে কথা বলেন,বিভিন্ন স্থির চিত্র প্রদর্শন করেন এবং কিভাবে হাত ধুতে হয় তা দেখিয়ে দেন।তারা শিশুদের সাথে গান,নৃত্য,আবৃত্তি,এবং কেক কেটে আনন্দ উৎযাপন করেন।

পুরো অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন সংস্থাটির ঢাকা জেলার কোর মেম্বার এবং ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী নাবিলা সুলতানা লিজা।নাবিলা তার বক্তব্যে বলেন সুস্থ থাকতে হলে সচেতনতার বিকল্প নাই,আমরাই পারি এই শিশুদের মারাত্মক সব অসুখ থেকে বাঁচাতে। অনুষ্ঠানে বিভিন্ন বিষয়ের উপর বক্তব্য দেন, রিমঝিম,সাকিব,তামান্না, হাফিজা, সাদিয়া,জান্নাত,তাবাস্সুম, রাজন।

এ প্রসঙ্গে স্বেচ্ছাসেবক তামান্না তাবাস্সুম বলেন, সমাজের এইসব সুবিধাবন্ঝিত শিশুরা তাদের বাবা-মায়ের যত্ন ছারাই বড় হচ্ছে, তাই ওদের জন্য কিছু করতে পেরে আমি অনেক আনন্দিত।

এতিমখানার এক শিশু আসমা তার অনূভুতি ব্যাক্ত করতে গিয়ে বলে, আজকের দিনটা আমাদের অনেক ভাল গেছে,আপনারা আবার আসবেন আমাদের সাথে আনন্দ করার জন্য এবং সুন্দর কথা গুলো বলার জন্য।

উল্লেখ্য, আ্যাওয়ারনেস ৩৬০ সংস্থাটি ২০১৬ সালে যাত্রা শুরু করে।বর্তমানে বাংলাদেশ,ফ্রান্স, মঙ্গোলিয়া, মালেয়শিয়া সহ বিশ্বের বিভিন্ন দেশে টেকসই উন্নয়ন লক্ষমাত্রা উন্নয়নের জন্য কাজ করে যাচ্ছে। মালেয়শিয়া থেকে পরিচালিত এ সংগঠনটির প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক সোমি হাসান চৌধুরী এবং রিজবী আরেফীন।

বিদিবিএস 

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।