কোটা আন্দোলনের নেতা সোহেলকে মারধরের প্রতিবাদে মানববন্ধন


টাইমস অনলাইনঃ
Published: 2018-05-24 13:04:17 BdST | Updated: 2018-06-21 23:43:58 BdST

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়ের (জবি) ইংরেজি বিভাগের শিক্ষার্থী কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতা এপিএম সোহেলের উপর হামলার প্রতিবাদে মানববন্ধন করেছে জবির শিক্ষার্থীরা।

বৃহস্পতিবার সাড়ে ১২টার দিকে এ মানববন্ধন শুরু হয়। 

মানববন্ধনে বক্তারা হামলাকারীদের গ্রেফতারের দাবি ও শাস্তির দাবি জানিয়েছে। 

সোহেলকে বর্তমানে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসা দেয়া হচ্ছে। 

কোটা সংস্কার আন্দোলন করায় বিভিন্ন সময় সোহেলকে ফোনে দেখে নেয়ার হুমকি ও জবি ক্যাম্পাসে না যাওয়ার জন্য বলা হয়। 

মারধরের শিকার সোহেল 

এদিকে এ হামলার ঘটনায় সূত্রাপুর থানায় মামলা করেছে সোহেল। বিষয়টি বিশ্চিত করেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্র এবং কোটা সংস্কার আন্দোলনের অন্যতম যুগ্ম আহবায়ক রাশেদ খান। 

এর আগে বুধবার সোহেলকে পিটিয়ে গুরুতর আহত করেছে সন্ত্রাসীরা। সোহেল বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম-আহবায়ক। এর আগে তাকে ফোনে হত্যার হুমকি ও জবি ক্যাম্পাসে না যাওয়ার জন্য বলেছিল অজ্ঞাতরা।

বুধবার বিকাল ৩টার দিকে পরীক্ষা শেষ করে বাসায় ফেরার সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল ফটকের সামনে হামলার শিকার হন সোহেল।

মূল ফটকের বাইরে আসলে সন্ত্রাসীদের ১০/১২ জন তার উপর হামলা চালিয়েছে বলে দাবি করেন সোহেল। গুরুতর আহত অবস্থায় তিনি এখন রাজধানীর গেন্ডারিয়া আজগর আলী হাসপাতালে ভর্তি রয়েছেন।

ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের যুগ্ম-আহ্বায়ক রাইসুল ইসলাম নয়ন বলেন, ‘আহত সোহেল আমাদের কোটা সংস্কার আন্দোলনের যুগ্ম-আহ্বায়ক। বিকাল ৩টার দিকে তার উপর ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা হামলা চালিয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘রড ও লাঠির আঘাতে সোহেলের ঠোঁট ও নাক ফেটে গেছে। তাছাড়া পা ও পিঠে অসংখ্য আঘাতের চিহ্ন রয়েছে। ঠোঁটে পাঁচটি সেলাই করা হয়েছে। সে এখন একটি প্রাইভেট হাসপাতালে ভর্তি আছে।’

নয়ন আরও জানান, কোটা সংস্কার আন্দোলনে নেতৃত্ব দেয়ার কারণেই তার উপর হামলা চালিয়েছে ছাত্রলীগ ও মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের নেতাকর্মীরা। আমরা এ হামলা নিন্দা জানাচ্ছি এবং দ্রুত হামলাকারীদের গ্রেফতারের দাবি করছি।

বিদিবিএস 

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।