কোটা আন্দোলন: ‘যৌন নিপীড়নের’ প্রতিবাদে নারীমুক্তি কেন্দ্রের সমাবেশ


টাইমস অনলাইনঃ
Published: 2018-07-23 00:32:43 BdST | Updated: 2018-08-17 23:09:31 BdST

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে কোটা সংস্কারের আন্দোলনে অংশ নেওয়া ছাত্রী ও শিক্ষিকাদের ওপর হামলা এবং যৌন নিপীড়নের বিচার দাবি করেছে বাংলাদেশ নারীমুক্তি কেন্দ্র। রোববার বিকেল পাঁচটার দিকে তারা জাতীয় প্রেসক্লাবের সামনে এক বিক্ষোভ সমাবেশ করে।

সমাবেশে সভাপতির বক্তব্যে নারীমুক্তি কেন্দ্রের সভাপতি সীমা দত্ত বলেন, ‘কোটা আন্দোলনে ছাত্রলীগের কাণ্ডকারখানা পত্রিকা, গণমাধ্যমের মাধ্যমে সবারই জানা। এই আন্দোলন দমাতে সরকার ছাত্রলীগকে লেলিয়ে দিয়েছে। আন্দোলনে অংশ নেওয়া নারী কর্মী, নারী শিক্ষার্থী ও শিক্ষিকাদের অপমান করা হয়েছে, যৌন হয়রানি করা হয়েছে।’

সীমা দত্ত আরও বলেন, ‘সাধারণ মানুষ নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে। নারী সমাজের প্রতি চরম অপমান, লাঞ্ছনা হচ্ছে। আর সেটা হচ্ছে রাষ্ট্রীয় মদদেই। কোটা আন্দোলনের দাবিতে নারী শিক্ষার্থীরা রাস্তায় নামলে তাঁদের ধর্ষণের হুমকি দেওয়া হচ্ছে। এসব যারা করছে, তারা সরকারদলীয় লোক। এদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দিতে হবে।’

সমাবেশ থেকে বলা হয়, ঘরে-বাইরে-কর্মস্থলে-শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে নারী আজ কোথাও নিরাপদ নয়। যে সরকারের দায়িত্ব নারীর নিরাপত্তা নিশ্চিত করা, সে সরকার কোটা সংস্কারের আন্দোলন দমন করছে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীদের দিয়ে।

সমাবেশে মিলিত হওয়ার আগে নারীমুক্তির সদস্যরা এক বিক্ষোভ মিছিলে অংশ নেন। তাঁরা সমাবেশে ‘নারীর অপমান, সভ্যতার অপমান’, ‘যৌন নিপীড়নকারী ছাত্রলীগ ও পুলিশের বিচার চাই’ প্রভৃতি লেখা প্ল্যাকার্ড নিয়ে বিভিন্ন প্রতিবাদী স্লোগান দেন।

নারীমুক্তি কেন্দ্রের অর্থ সম্পাদক তাসলিমা আক্তার সমাবেশে বলেন, নারীর প্রতি নির্যাতনকারী, অপমানকারীদের উচিত জবাব দিতে শক্তিশালী প্রতিরোধ আন্দোলন গড়ে তোলা হবে।

 

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।