উত্তরা ইউনিভার্সিটি থেকে ইঞ্জিনিয়ানিংয়ে পড়াশোনা করেও চা বিক্রেতা!


টাইমস অনলাইনঃ
Published: 2019-01-30 21:09:29 BdST | Updated: 2019-08-22 14:04:44 BdST

মিন্টু মোল্লা। মানিকগঞ্জের এই ছেলেটি বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়াশোনা করে চায়ের দোকান দিয়েছেন এলাকায়। কারণ ইঞ্জিনিয়ারিংয়ে পড়াশোনা করেও তার ভাগ্যে কোন চাকরি জুটেনি। দ্বারে দ্বারে ঘুরেও ব্যর্থ হয়েছেন তিনি। ঘুষ ছাড়া চাকরি মেলেনি তার ভাগ্যে। পরিবারের বড় ছেলে হওয়ায় তার দায়িত্ব অনেক। হাল ধরতে হবে সংসারের। তাই বাধ্য হয়েই তিনি এলাকায় গিয়ে চায়ের দোকান দিয়েছেন। চা বিক্রি করেই চলছে তার সংসার। ছোট দুই বোনের বিয়ে হয়েছে এখন বাবা মায়ের সঙ্গেই অআছেন তিনি।

জানা গেছে, মিন্টু মোল্লা রাজধানীর উত্তরা ইউনিভার্সিটি থেকে ইঞ্জিনিয়ানিংয়ে পড়াশোনা করেছেন। এজন্য তার পেছনে খরচ হয়েছে প্রায় ১২ লাখ টাকা। তবে পড়াশোনা শেষ করে তার ভাগ্যে জুিটেনি কোন চাকরি।

মিন্টু মোল্লা বলেন, ২০১৬ সালে ইঞ্জিনিয়ারিং পড়াশোনা শেষ করেছি। চাকরির জন্য হন্যে হয়ে ঘুরেছি পাইনি। যেখানেই গিয়েছি টাকা ও লোকের অভাবে চাকরি হয়নি। তাই বাধ্য হয়ে চায়ের দোকান দিয়েছি।

জমি বিক্রি করে সন্তানের পড়াশোনার জন্য খরচ হয়েছে ১২ লাখ টাকা। তাই সন্তানের জন্য প্রধানমন্ত্রীর কাছে একটি চাকরির প্রত্যাশা করেছেন মিন্টুর বাবা।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।