আবরার হত্যার বিচার দাবিতে উত্তাল বুয়েট


টাইমস প্রতিবেদক
Published: 2019-10-08 12:44:00 BdST | Updated: 2019-10-15 06:08:31 BdST

আবরার ফাহাদ হত্যার প্রতিবাদে বিক্ষোভে উত্তাল হয়ে উঠেছে বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালেয় (বুয়েট)। বিক্ষোভকারী শিক্ষার্থীরা জানিয়েছেন, তাদের দাবি আদায় না হলে আরো কঠোর আন্দোলনে যাবেন তারা।

মঙ্গলবার (৮ অক্টোবর) সকাল থেকে বিক্ষোভে ফুঁসে ওঠে বুয়েটের শিক্ষার্থীরা। বিক্ষোভ কর্মসূচিতে অংশ নেয়া শিক্ষার্থীরা তাদের ৭ দফা দাবি জানিয়েছেন। আবরার হত্যার তদন্ত ও বিচার দ্রুত সময়ে নিষ্পত্তি করতে হবে বলেও দাবি জানান তারা।

রোববার (৬ অক্টোবর) রাতে আবরার ফাহাদকে পিটিয়ে হত্যা করা হয়। সোমবার ভোরে শের-ই-বাংলা হলের প্রথম ও দ্বিতীয় তলার সিঁড়ির মধ্যবর্তী জায়গায় আবরারের নিথর দেহ পাওয়া যায়। তার শরীরে অসংখ্য আঘাতের চিহ্ন ছিল।

এসময় খুনিদের সর্বোচ্চ শাস্তিসহ সাতদফা দাবি জানান তারা। দাবিগুলো হলো-

খুনীদের সর্বোচ্চ শাস্তি নিশ্চিত করতে হবে। ৭২ ঘন্টার মধ্যে নিশ্চিতভাবে সনাক্তকৃত খুনীদের সকলের ছাত্রত্ব আজীবন বহিঃস্কার নিশ্চিত করতে হবে। দায়েরকৃত মামলা দ্রুত বিচার ট্রাইবুনালের অধীনে স্বল্পতম সময়ে নিষ্পত্তি করতে হবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের ভিসি কেন ৩০ ঘন্টা অতিবাহিত হবার পরও ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয় নি তা তাকে সশরীরে ক্যাম্পাসে এসে আজ বিকাল ৫ টার মধ্যে জবাবদিহি করতে হবে। একই সাথে ডিএসডব্লিউ স্যার কেনো ঘটনাস্থল থেকে পলায়ন করেছেন তা উনাকে আজ বিকাল ৫ টার মধ্যে সকলের সামনে জবাবদিহি করতে হবে

আবাসিক হলগুলোতে র‍্যাগের নামে এবং ভিন্ন মতাবলম্বীদের উপর সকল প্রকার শারীরিক এবং মানসিক নির্যাতন বন্ধে প্রশাসনকে জড়িত সকলের ছাত্রত্ব বাতিল করতে হবে। একই সাথে আহসানউল্লা হল এবং সোহরাওয়ার্দী হলের পূর্বের ঘটনাগুলোতে জড়িত সকলের ছাত্রত্ব বাতিল ১১ নভেম্বর,২০১৯ তারিখ বিকাল ৫ টার মধ্যে নিশ্চিত করতে হবে।

রাজনৈতিক ক্ষমতা ব্যবহার করে আবাসিক হল থেকে ছাত্র উৎখাতের ব্যাপারে অজ্ঞ থাকা এবং ছাত্রদের নিরাপত্তা নিশ্চিতে সম্পূর্ণভাবে ব্যর্থ হওয়ায় শেরে বাংলা হলের প্রভোস্টকে ১১ নভেম্বর, ২০১৯ তারিখ বিকাল ৫ টার মধ্যে প্রত্যাহার করতে হবে।

মামলা চলাকালীন সকল খরচ এবং আবরারের পরিবারের সকল ক্ষতিপূরণ বুয়েট প্রশাসনকে বহন করতে হবে।

আবরার ফাহাদ বুয়েটের ইলেকট্রিক্যাল অ্যান্ড ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের (ইইই) বিভাগের লেভেল-২ এর টার্ম ১ এর ছাত্র ছিলেন। তিনি শের-ই-বাংলা হলের ১০১১ নম্বর কক্ষে থাকতেন। তার বাড়ি কুষ্টিয়া শহরে। কুষ্টিয়া জেলা স্কুলে তিনি স্কুলজীবন শেষ করে নটরডেম কলেজ থেকে এইচএসসি পাস করেন।

টিআই/ ০৮ অক্টোবর ২০১৯