নিরাপত্তাহীনতায় হল পরিবর্তন চান এহসান


টাইমস ডেস্ক
Published: 2018-02-11 13:53:39 BdST | Updated: 2018-08-14 20:23:43 BdST

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সলিমুল্লাহ মুসলিম (এসএম) হলের শিক্ষার্থী এহসান রফিককে পিটিয়ে রক্তাক্ত করার ঘটনায় প্রশাসনের করা তদন্ত কমিটি এখনো কাজ শুরু করেনি। এহসানের পরিবারের পক্ষ থেকে বলা হচ্ছে, এসএম হলে নিরাপত্তার অভাব বোধ করায় তাঁরা এহসানের আবাসিক হল পরিবর্তনের আবেদন জানিয়েছেন।

শনিবার (১০ ফেব্রুয়ারি) এহসানের বাবা রফিকুল ইসলাম মুঠোফোনে বলেন, তিনি এহসানকে নিয়ে ঢাকায় যাযাবরের মতো আছেন। শুক্রবার ছিলেন মগবাজারে এক ভাইয়ের বাসায় আর গতকাল থেকে মিরপুরে এক ভাগনের মেসে। বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য মো. আখতারুজ্জামান ও হলের প্রাধ্যক্ষ মাহবুবুল আলম জোয়ার্দার মগবাজারে এহসানকে দেখতে এসেছিলেন। তাঁদের কাছে হল পরিবর্তনের কথা বলা হয়েছে। নইলে পড়ালেখা চালিয়ে যাওয়া সম্ভব হবে না।

গতকাল প্রথমে এহসানের মুঠোফোনে কল করা হলেও তিনি ধরেননি। পরে তাঁর বাবার সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন, ‘চিকিৎসক ওকে কথা বলতে নিষেধ করে দিয়েছেন। শুক্রবার নাক দিয়ে রক্ত পড়েছে, বমি করেছে। আজ (গতকাল) জাতীয় চক্ষুবিজ্ঞান ইনস্টিটিউট ও হাসপাতালে চিকিৎসককে দেখানো হয়েছে। ১০ দিনের ওষুধ দিয়ে পরে আবার দেখাতে বলেছেন।’

রফিকুল ইসলাম বলেন, ‘প্রশাসনের কাছে লিখিত অভিযোগ করা হয়েছে। এখন বাড়ি নিয়ে যেতে চাচ্ছি কিন্তু তদন্ত কমিটি নাকি দু-এক দিনের মধ্যে এহসানের বক্তব্য নেবে, তাই যেতে পারছি না।’

জানতে চাইলে তদন্ত কমিটির আহ্বায়ক অধ্যাপক সাব্বীর আহমেদ বলেন, ‘মাঝে ছুটির দিন ছিল, তাই বসিনি। কাল (আজ) বসব।’ এহসানের বক্তব্যের বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ‘লিখিত অভিযোগ করেছে, কিন্তু সরাসরি বক্তব্য পেলে ভালো হয়।’

তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে মঙ্গলবার রাত থেকে পরদিন দুপুর পর্যন্ত দুর্যোগবিজ্ঞান ও ব্যবস্থাপনা বিভাগের দ্বিতীয় বর্ষের এই ছাত্রকে ছাত্রলীগের নেতা-কর্মীরা আটকে রেখে নির্যাতন করেন। এতে তাঁর চোখ গুরুতর আঘাতপ্রাপ্ত হয়। শিবিরের সঙ্গে সম্পৃক্ততার স্বীকারোক্তি দিতে তাঁকে চাপ দেওয়া হয়।

এ ঘটনায় দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের কথা বলে ছাত্রলীগের ওয়েবসাইটে দেওয়া এক বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, তারা এসএম হল শাখা ছাত্রলীগের প্রশিক্ষণবিষয়ক উপসম্পাদক মেহেদি হাসান ওরফে হিমেল এবং সহসম্পাদক ওমর ফারুক ও রুহুল আমিনকে ছাত্রলীগ থেকে বহিষ্কার করেছে।

এমএন/ ১১ ফেব্রুয়ারি ২০১৮

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।