টিভি চ্যানেল চালু করছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়


যাযাদি রিপোর্ট
Published: 2017-07-18 01:08:19 BdST | Updated: 2018-06-22 05:42:07 BdST

শিক্ষার উন্নয়নে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) এবার টেলিভিশন চ্যানেল চালু করার পরিকল্পনা হাতে নিয়েছে। এর প্রাথমিক প্রস্তুতি হিসেবে সামাজিক বিজ্ঞান ভবনের সাততলায় একটি টিভি স্টুডিওর কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে। আজ আনুষ্ঠানিকভাবে স্টুডিও উদ্বোধন করা হবে। শিগগিরই এটি ডিউ টিভি নামে ইন্টারনেট প্রটোকল টেলিভিশন হিসেবে আত্মপ্রকাশ করবে।

বিশ্ববিদ্যালয়ের টেলিভিশন, চলচ্চিত্র ও ফটোগ্রাফি বিভাগের উদ্যোগে দেশের সরকারি বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর মধ্যে এটিই প্রথম টিভি চ্যানেল। বিশ্বব্যাংক ও বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশন (ইউজিসি) এতে অর্থায়ন করেছে।

সংবাদ, ডকুমেন্টারি, বিনোদনসহ বিভিন্ন রকম অনুষ্ঠান প্রচার করবে চ্যানেলটি। তবে শিক্ষাবিষয়ক অনুষ্ঠানের প্রাধান্য থাকবে। ইন্টারনেটের মাধ্যমে সারাবিশ্ব থেকে এটি দেখা যাবে। তবে এর প্রধান দর্শক হবে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। এ ছাড়া যে কেউ চাইলে এর অনুষ্ঠানগুলো দেখতে পারবে।

বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, এটি একটি অত্যাধুনিক টেলিভিশন স্টুডিও হিসেবে সাজানো হয়েছে। এখানে প্যানেল কন্ট্রোল রুম বা পিসিআর, মাস্টার কন্ট্রোল রুম বা এমসিআর, ম্যাক আপ রুম, ক্যামেরা, লাইটসহ অন্যান্য স্টুডিও যন্ত্রপাতি রয়েছে। স্টুডিওটি দেখভালের দায়িত্বে টেলিভিশন, চলচ্চিত্র ও ফটোগ্রাফি বিভাগ থাকলেও বিশ্ববিদ্যালয়ের অন্য শিক্ষার্থীরাও এর কার্যক্রমে অংশ নিতে পারবে।

মঙ্গলবার (১৮ জুলাই) সকাল সাড়ে ১০টায় স্টুডিওটি আনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করবেন উপাচার্য আ.আ.ম.স আরেফিন সিদ্দিক। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক আব্দুল মান্নান এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে বিশ্বব্যাংকের প্রতিনিধি ড. মোখলেছুর রহমান উপস্থিত থাকবেন। সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন (ভারপ্রাপ্ত) অধ্যাপক ড. শফিউল আলম ভূইয়া এতে সভাপতিত্ব করবেন।

বিভাগের শিক্ষক এস এম ইমরান হোসেন জানান, বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের হাইয়ার এডুকেশন কোয়ালিটি এনহেন্সমেন্ট প্রোগ্রাম প্রকল্পের আওতায় এই স্টুডিও করা হয়েছে। পরিকল্পনা আছে বিশ্ববিদ্যালয় একটি আইপি টিভি করবে এবং স্টুডিওর নির্মিত প্রোগ্রাম সম্প্রচারের ব্যবস্থা করা হবে। প্রাথমিক পর্যায়ে প্রতিদিন দুটি বুলেটিন করার চিন্তাভাবনা করা হয়েছে।

তিনি আরও বলেন, 'গবেষণা, উদ্ভাবন ও মটিভেশনাল প্রোগ্রামও হতে পারে এখানে। আমাদের শিক্ষার্থীরা টেলিভিশন সাংবাদিকতা, অনুষ্ঠান নির্মাণসহ নানা কিছু শিখছে। এই স্টুডিওর মাধ্যমে পড়াশোনা অবস্থায় তাদের হাতেকলমে শেখার সুযোগ জোরদার হলো। নিত্যনতুন অনুষ্ঠান নির্মাণের ক্ষেত্রে এটি এক নতুন দ্বার উন্মোচন করবে।

উল্লেখ্য, আইপিটিভি ইন্টারনেটভিত্তিক টেলিভিশন চ্যানেল টেরিস্ট্রিয়াল ও স্যালোইট টিভি স্টেশনের ক্ষেত্রে অনুষ্ঠান সম্প্রচারের জন্য ভিডিও ট্রান্সমিটার অথবা স্যাটেলাইট ব্যবহার করা হয় কিন্তু আইপি টিভির ক্ষেত্রে সম্প্রচারের জন্য ব্যবহার করা হয় ইন্টারনেট সংযোগ। এ প্রক্রিয়ায় ভিডিও সিগন্যালকে রেডিও ফ্রিকুয়েন্সিতে পরিণত না করে বরং ইন্টারনেট প্রটোকল বা আইপির উপযুক্ত করে পাঠানো হয়।

 এমএসএল

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।