বাণিজ্যমেলায় ফুডকোর্টে মূল্যতালিকা বাধ্যতামূলক


টাইমস অনলাইনঃ
Published: 2019-01-05 22:06:35 BdST | Updated: 2019-07-21 15:45:36 BdST

ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলায় সার্বক্ষণিক নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পোশাকধারী পুলিশ সদস্যদের পাশাপাশি সাদা পোশাকে গোয়েন্দা পুলিশ সার্বক্ষণিক দায়িত্ব পালন করবেন। নিরাপত্তার স্বার্থে মেলাস্থলে সব ধরনের হকার ও ভিক্ষুক নিষিদ্ধ থাকবে।

ফুডকোর্টের অনিয়ম রুখতে বাধ্যতামূলক রাখতে হবে মূল্যতালিকা। এছাড়া, ইভটিজিং রোধে মেলা প্রাঙ্গণে পুলিশের বিশেষ টিম দায়িত্ব পালন করবে।

শনিবার (৫ জানুয়ারি) ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশ (ডিএমপি) সদর দফতরে ২৪ তম ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলার নিরাপত্তা ও ট্রাফিক ব্যবস্থাপনা সম্পর্কিত সমন্বয় সভায় ডিএমপি কমিশনার আছাদুজ্জামান মিয়া একথা জানান।

ডিএমপি কমিশনার বলেন, ইতোমধ্যে বাণিজ্যমেলাকে ঘিরে নিশ্ছিদ্র নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে ডিএমপি। সেইসঙ্গে অনিয়ম রুখতে বাণিজ্য মেলায় ফুডকোর্টে মূল্যতালিকা প্রদর্শন করা না হলে সেই স্টল মেলা কর্তৃপক্ষের সহযোগিতায় বন্ধ করে দেবে পুলিশ।

মেলায় টিকিট কালোবাজারি ও ইভটিজিং রোধে থাকবে পুলিশের বিশেষ টিম। মেলার ভেতর সুবিধাজনক স্থানে চারটি হেল্প ডেস্ক স্থাপন করা হবে। মেলার ভেতর থাকবে প্রাথমিক চিকিৎসা ব্যবস্থা। মেলা প্রাঙ্গণে মোটর সাইকেল চালানো সম্পূর্ণ নিষিদ্ধ থাকবে।

নিরাপত্তার স্বার্থে মেলায় আগত দর্শনার্থীরা পৃথক পথে প্রবেশ ও বাইরে যাবে জানিয়ে তিনি বলেন, মেলায় প্রবেশের আগে অবশ্যই মেটাল ডিটেক্টর ও আর্চওয়ে দিয়ে প্রবেশ করতে হবে। মেলা প্রাঙ্গণ ও তার আশপাশে থাকবে পর্যাপ্ত আলোর ব্যবস্থা। সিসি ক্যামেরা দিয়ে সমগ্র মেলা এলাকা ও তার আশপাশের এলাকা ২৪ ঘণ্টা পর্যবেক্ষণ করা হবে।

বাণিজ্যমেলায় গৃহীত নিরাপত্তা সম্পর্কে তিনি বলেন, বাণিজ্যমেলা উপলক্ষে আগের মতো আমরা যথেষ্ট মজবুত ও সুসমন্বিত নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়েছি। অন্যান্য সংস্থার সঙ্গে সমন্বয় করে মাসব্যাপী পোশাকে ও সাদা পোশাকে পুলিশ সদস্য ২৪ ঘণ্টা দায়িত্ব পালন করবে।

অগ্নিকাণ্ড প্রতিরোধে প্রতিটি স্টলে অগ্নিনির্বাপক ব্যবস্থা রাখতে হবে। কোনো কিছু হারিয়ে গেলে সেটা খুঁজে দিতে পুলিশ কন্ট্রোল রুমের পাশে স্থাপন করা হবে ‘লস্ট অ্যান্ড ফাউন্ড সেন্টার’।

ডিএমপির পক্ষ থেকে বাণিজ্যমেলায় সব ধরনের নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। মেলা সফল করতে প্রত্যেককে যার যার অবস্থান থেকে আন্তরিকতার সঙ্গে দায়িত্ব পালন করার অনুরোধ জানান ডিএমপি কমিশনার।

সমন্বয় সভায় ডিএমপি’র ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাসহ রফতানি উন্নয়ন ব্যুরো (উপ পরিচালক অর্থ) মোহাম্মদ আবদুর রউফ, গোয়েন্দা সংস্থা ও ফায়ার সার্ভিসের প্রতিনিধি, সরকারি সেবাদানকারী বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি ও বাণিজ্যমেলার বিভিন্ন প্যাভিলিয়নের প্রতিনিধিসহ রফতানি উন্নয়ন ব্যুরোর কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

আগামী ৯ জানুয়ারি থেকে রাজধানীর শেরেবাংলা নগরে শুরু হচ্ছে মাসব্যাপী ঢাকা আন্তর্জাতিক বাণিজ্যমেলা-২০১৯। এ মেলা শেষ হবে ৮ ফেব্রুয়ারি।

 

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।