লাস্যময়ী ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়


ঢাবি টাইমস
Published: 2018-05-21 09:54:24 BdST | Updated: 2018-06-18 17:33:31 BdST

গাছপালায় ঘেরা ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাস সব সময় সুন্দর। কদিন আগে শুরু হলো নতুন বছর। ‘এসো হে বৈশাখ’ গেয়ে, মঙ্গল শোভাযাত্রায়, নাচে, গানে ক্যাম্পাসে বৈশাখ বরণ করা হয় বলেই কি না কে জানে, এই সময়টাতে যেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় আরও বেশি সুন্দর দেখায়।

প্রিয় প্রাঙ্গণ 

টিএসসি থেকে ভিসি চত্বরের দিকে হাঁটতে থাকবেন। মনে হবে রাস্তার পাশের কৃষ্ণচূড়া ফুলগুলো আপনাকে অভ্যর্থনা জানাচ্ছে। আবার কলাভবনের দিকে পা বাড়ালে রাস্তাটাকে মনে হয় কৃষ্ণচূড়া বিছানো লালগালিচা। ব্যবসায় শিক্ষা অনুষদের পাশে গিয়েও চোখে পড়ে ‘কৃষ্ণচূড়ার ডালে ডালে আগুন লেগেছে’। কৃষ্ণচূড়ার প্রতিবেশী সোনালু ফুলগুলো আকাশের ক্যানভাসে নতুন রং যোগ করে।

বৃষ্টিতে অপরূপ কার্জন হল এলাকা  

চৈত্রের শেষ দিকে টিএসসি থেকে শহীদ মিনারে যেতে নাকে আসবে সুমিষ্ট ঘ্রাণ। আমের মুকুল ফুটেছে যে। মাতাল করা সে ঘ্রাণে হারিয়ে শিক্ষার্থীদের মনে পড়ে যায় শৈশবের কথা। বন্ধুরা মিলে রাতের বেলা ক্যাম্পাসের আম পাড়তে বের হন অনেকে। সে এক অভিযান বটে! কাঁচা আম লবণ মেখে খাওয়ার সময় তো এটাই। গ্রীষ্মে পুরো ঢাকা যখন তপ্ত, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে পা রাখলে এখানকার বাতাস মন ভালো করে দেয়।

প্রিয় ক্যাম্পাস 

হুটহাট নামে বৃষ্টি। বৃষ্টির সময় যদি কার্জন হলের পুকুরের সামনে থাকেন, তাহলে আপনি সৌভাগ্যবান। পুকুরের পানিতে টুপটাপ বৃষ্টি পড়ার দৃশ্য দেখে চোখ জুড়িয়ে যাবে। টিএসসিতে দাঁড়িয়ে দেখা বৃষ্টিও অন্য রকম। হয়তো প্রখর রোদে, টিএসসির আড্ডায় ধোঁয়া ওঠা এক কাপ চা হাতে দাঁড়িয়ে আছেন। হঠাৎ আকাশ অন্ধকার। টুপ করে এক ফোঁটা বৃষ্টি পড়ল চায়ের কাপে। তাতে চায়ের স্বাদ বাড়ে কি না জানা নেই, তবে মনটা কেমন যেন হয়ে যায়। এসব মিলিয়েই ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের প্রাণের ক্যাম্পাস।

ভালোবাসার ক্যাম্পাস 

লিখেছেন সঞ্জয় সরকার/বিদিবিএস 

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।