'জেএনইউ ছাত্রীরা কন্ডোম দিয়ে চুল বাঁধে'


Delhi, India
Published: 2019-11-29 22:35:25 BdST | Updated: 2019-12-12 17:37:20 BdST

কেরলের কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের আয়োজিত 'ভারতের সংবিধান ও গণতন্ত্রের ৭০ বছর' শীর্ষক এক দুই দিনের সম্মেলনে বক্তৃতা রাখার সময় সেনকুমার বলেন, "আমি জেএনইউতে ছেলেদের হস্টেল থেকে মেয়েদের বেরোতে দেখেছিলাম। সেটা অবশ্য ৪০ বছর আগের ঘটনা। কিন্তু এখনও জেএনইউ-র সর্বত্র কনডম পড়ে থাকে।" এর আগে কেরলের কেন্দ্রীয় বিশ্ববিদ্যালয়ে আমন্ত্রণ জানানো হয়েছিল কেরল বিজেপির সদস্য টিজি মোহনদাসকে। তখন বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্ররা সভাকক্ষ ত্যাগ করায় বিতর্ক ছড়িয়েছিল।

জেএনইউ ছাত্রদের বিরুদ্ধে অপপ্রচার
প্রসঙ্গত, কয়েকদিন আগেই জেএনইউ ছাত্রদের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালাতে সোশ্যাল মিডিয়াতে ফেক ছবি ছড়ানো হয়। তাতে কনডম পড়ে থাকতে দেখানো হয় ক্যাম্পাসে। সেই ছবির প্রসঙ্গ টেনে এনেই এরকম বিতর্কিত মন্তব্য করেন সেনকুমার। ফি বৃদ্ধির বিরোধিতায় জেএনইউ ছাত্ররা পথে নামার পর থেকেই বিভিন্ন ভাবে ছাত্রদের বিরুদ্ধে অপপ্রচার চালানো হচ্ছে বিভিন্ন ক্ষেত্রে। এরকমই অপর একটি ছবিতে দেখা যাচ্ছে একটি মেয়ে মাদক শেবন করছে, ক্যাপশনে সেই মেয়েটিকে জেএনইউ ছাত্রী বলা হয়। যদিও এর কোনও সত্যতা যাচাই করা যায়নি।

বিতর্কিত মন্তব্য এর আগেও হয়েছে
অবশ্য জেএনইউ নিয়ে বিতর্কিত মন্তব্য এই প্রথম না। ২০১৬ সালে রাজস্থানের আলওয়ার জেলার রামগড়ের বিজেপি বিধায়ক জ্ঞানদেব আহুজা বলেছিলেন, "জেএনইউতে রোজ ৩০০০ বিয়ারের বোতল ও ক্যান পাওয়া যায়। ২০০০ মদের বোতল পাওয়া যায়, ১০ হাজার সিগারেটে বাট পাওয়া যায়, ৪০০০ বিড়ি পাওয়া যায়, ৫০ হাজার হাড় পাওয়া যা, ৩০০০ কনডম পাওয়া যায়, ৫০০ জন্ম নিরোধক ইঞ্জেকশন পাওয়া যায়।

কিসের জন্য আন্দোলন?
বেশ কয়েক দিন ধরেই হস্টেলের ফি বৃদ্ধির প্রতিবাদে বিক্ষোভে উত্তাল হয়েছে রাজধানী। সেই বিক্ষোভের জেরে ফি বৃদ্ধি আংশিক প্রত্যাহার করে নেওয়ার পরও আন্দোলন জারি রেখেছে বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রসংগঠনগুলি। বেসরকারিকরণ, শিক্ষায় গৈরিকীকরণের প্রতিবাদে সংসদ অধিবেশনের প্রথম দিনেই বিশ্ববিদ্যালয় থেকে সংসদ পর্যন্ত মিছিল করার চেষঅটা করেছিল জেএনইউ-র ছাত্র সংসদ ও সাধারণ ছআত্র-ছাত্রীরা। তবে সেই মিছইল আটকে দিয়েছিল দিল্লি পুলিশ।