নিয়োগ বাণিজ্যের প্রমাণ মেলায় ইবির দুই শিক্ষককে শোকজ


টাইমস ডেস্ক
Published: 2018-10-02 11:47:30 BdST | Updated: 2019-10-19 04:11:59 BdST

নিয়োগ বাণিজ্যের সাথে সম্পৃক্ততার প্রমাণ মেলায় ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) ইংরেজী বিভাগের অধ্যাপক ড. শাহাদাৎ হোসাইন আজাদ ও বাংলা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. বাকি বিল্লাহ বিকুলকে শোকজ করেছে বিশ্ববিদ্যালয় সিন্ডিকেট। একই সাথে আগামী সাত কার্যদিবসের মধ্যে ওই দুই শিক্ষককে কর্তৃপক্ষ বরাবর কারণ দর্শানোর আদেশ দেওয়া হয়েছে।

সোমবার (১ অক্টোবর) অনুষ্ঠিত বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৪২তম সিন্ডিকেট শেষে রাত নয়টার দিকে বিশ্ববিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এস এম আব্দুল লতিফ বাংলানিউজকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি জানান, বিকাল ৫টা থেকে রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৪২তম সিন্ডিকেট সভায় বেশ কিছু সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে। এরমধ্যে নিয়োগ বাণিজ্যের দায়ে দুই শিক্ষককে শোকজ, বঙ্গবন্ধু চেয়ারে নিয়োগ, সান্ধ্যকালীন কোর্স বাতিল এবং বিশ্ববিদ্যালয়ের আইসিটি সেলের তিনজন কর্মচারী নিয়োগের অনুমোদন উল্লেখযোগ্য।

বিশ্ববিদ্যালয় সূত্রে জানা গেছে, গত ১৫ জুলাই ইংরেজি বিভাগের অধ্যাপক ড. শাহাদাৎ হোসাইন আজাদ ও বাংলা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. বাকি বিল্লাহ বিকুলের নিয়োগ বাণিজ্য সংক্রান্ত চারটি অডিও ক্লিপ ফাঁস হয়। বিষয়টি আমলে নিয়ে অভিযোগের সত্যতা যাচাইয়ে তিন সদস্যের একটি তদন্ত কমিটি গঠন করে বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন।

এই অভিযোগে গত ১৬ জুলাই অধ্যাপক ড. শাহাদৎ হোসাইন আজাদকে বিশ্ববিদ্যালয়ের বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের প্রভোস্ট এবং ড. বাকি বিল্লাহ বিকুলকে বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসিসির পরিচালকের পদ থেকে সাময়িক অব্যহতি দেওয়া হয়।

পরবর্তীতে তদন্ত কমিটির সদস্যরা অভিযোগের সত্যতা যাচাই বাছাই করে প্রশাসনের কাছে তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেন। তদন্ত প্রতিবেদনে নিয়োগ বাণিজ্যের সাথে ওই দুই শিক্ষকের সম্পৃক্ততার প্রমাণ মেলায় সিন্ডিকেট সভায় তাদের শোকজ করা হয়।

এদিকে ২৪২তম সিন্ডিকেট সভায় বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের অধীনস্থ বঙ্গবন্ধু চেয়ারে বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক অধ্যাপক শামসুজ্জামানকে আগামী দুই বছরের জন্য নিয়োগ দিয়েছে সিন্ডিকেট।

টিআই/ ০২ অক্টোবর ২০১৮