ইবির বঙ্গবন্ধু চেয়ারের দায়িত্ব পেলেন শামসুজ্জামান খান


টাইমস ডেস্ক
Published: 2018-10-02 11:49:27 BdST | Updated: 2019-08-19 02:02:53 BdST

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) বঙ্গবন্ধু চেয়ারের দায়িত্ব পেলেন বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক বিশিষ্ট ফোকলোরবিদ ও গবেষক অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান।

সোমবার (০১ অক্টোবর) বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৪২তম সিন্ডিকেটে এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। উপাচার্যের বাসভবনে বিকেল ৪টা থেকে রাত ৯টা পর্যন্ত দীর্ঘ পাঁচ ঘণ্টাব্যাপী এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। এছাড়াও একাডেমিক কাউন্সিলের সিদ্ধান্ত বহাল রেখে সান্ধ্যকালীন কোর্স বাতিলের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয় বলে নিশ্চিত করেছেন ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এস এম আব্দুল লতিফ।

জানা যায়, ২০১৭ সালের ২০ জুলাই বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৩৫তম সিন্ডিকেটে বাংলা বিভাগের অধীনে বঙ্গবন্ধু চেয়ার প্রতিষ্ঠার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। পরে এ বছরের ১৯ মে বঙ্গবন্ধু চেয়ার প্রফেসর নিয়োগ বিজ্ঞপ্তি দেয় বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসন। বিজ্ঞাপিত পদের জন্য আবেদনকারীদের মধ্যে বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক অধ্যাপক শামসুজ্জামান খানকে বঙ্গবন্ধু চেয়ার প্রফেসর পদে মনোনীত করে বিশ্ববিদ্যালয়ের ২৪২তম সিন্ডিকেট।

উপাচার্য অধ্যাপক হারুন উর রশিদ আসকারীর সভাপতিত্বে সভায় উপস্থিত ছিলেন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক মো. শাহিনুর রহমান। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন কোষাধ্যক্ষ অধ্যাপক সেলিম তোহা, অধ্যাপক জাকারিয়া রহমান, অধ্যাপক রেবা মন্ডল, সহকারী অধ্যাপক আনিচুর রহমান, ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার এস এম আব্দুল লতিফ প্রমুখ।

অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান জাগো নিউজকে বলেন, ‘ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয় আমাকে যে মহান দায়িত্ব অর্পণ করেছে আমি তা যত্ন এবং নিষ্ঠার সাথে পালন করব এবং বঙ্গবন্ধুর ওপর আরও উচ্চতর গবেষণা করে নতুন প্রজন্মকে বঙ্গবন্ধুর অজানা ইতিহাসকে জানানোর কাজ করে যাব।’

অধ্যাপক শামসুজ্জামান খান ১৯৪০ সালের ২৯ ডিসেম্বর মানিকগঞ্জে জন্মগ্রহণ করেন। অধ্যাপনা দিয়ে তার কর্মজীবনের শুরু। বিভিন্ন সময়ে তিনি বাংলা একাডেমির পরিচালক, বাংলাদেশ জাতীয় জাদুঘর, বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমি এবং সর্বশেষ ২০০৯ সাল থেকে বাংলা একাডেমির মহাপরিচালক হিসেবে দায়িত্ব পালন করন।

তার ফোকলোরবিষয়ক গবেষণা আন্তর্জাতিকভাবে স্বীকৃত। শিল্প, সাহিত্য ও সংস্কৃতির নানা বিষয়ে তার রচিত ও সম্পাদিত গ্রন্থের সংখ্যা প্রায় একশত। তিনি রাষ্ট্রীয় একুশে পদকসহ নানা পুরস্কার ও সম্মাননায় ভূষিত হয়েছেন। তিনি বঙ্গবন্ধুর ওপর গবেষণাধর্মী পাচঁটি গ্রন্থ রচনা করেছেন।

টিআই/ ০২ অক্টোবর ২০১৮

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।