ইবিতে আপত্তিকর অবস্থায় বহিরাগত প্রেমিক যুগল আটক


আহসান নাঈম
Published: 2018-04-26 19:08:13 BdST | Updated: 2018-08-16 14:21:56 BdST

ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের (ইবি) গেস্ট হাউজ মমতাজ ভবন থেকে আপত্তিকর অবস্থায় রাশেদুল ইসলাম নামের এক বহিরাগত ও তার প্রেমিকাকে আটক করা হয়েছে। বহিরাগত রাশেদুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের দিন মজুর হিসেবে কাজ করেন। বুধবার (২৫ এপ্রিল) সন্ধ্যা ৬টার দিকে মমতাজ ভবনের ৩০৯ নং কক্ষ থেকে তাদের আটক করে প্রক্টর প্রফেসর ড. মাহবুবর রহমান।

প্রত্যাক্ষদর্শী সুত্রে জানা যায়, রাশেদুল ইসলামকে একজন মেয়েসহ গেস্ট হাউজে প্রবেশ করে দরজা লাগিয়ে দিতে দেখে বিশ্ববিদ্যালয়ের আনসার সদস্য আমিনুর রহমান। পরে সে জানালা দিয়ে তাদের আপত্তিকর অবস্থায় দেখতে পেয়ে প্রক্টরকে খবর দিলে তিনি এসে তাদের আটক করেন।

জানা যায়, রাশেদুল ইসলাম বিশ্ববিদ্যালয়ের দিন মজুর হিসেবে কাজ করছে। অতি সম্প্রতি রাশেদুলকে গেস্ট হাউজ রক্ষাবেক্ষণের দায়ীত্ব দেয়া হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মচারী না হয়েও এমন গুরুত্বপূর্ণ দায়ীত্ব একজন বহিরাগতের হাতে দেওয়ায় ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের একাধিক সিনিয়র শিক্ষক। তবে কোন মাধ্যমে রেস্ট হাউজের দায়ীত্ব তাকে দেওয়া হয়েছে তা জানা নেই বিশ্ববিদ্যালয়ের স্টেট অফিসের। তবে তার ভাই মোজাম্মেল হক বিশ্ববিদ্যালয়েল আল হাদিস অ্যান্ড ইসলামিক স্টাডিস বিভাগের শাখা কর্মকর্তা এবং তার এক মামা বিশ্ববিদ্যালয়ের কর্মচারী বলে জানা গেছে।

কিভাবে সে এ দায়িত্ব পেয়েছে একথা জানতে চাইলে রাশেদুল বলে, তার ভাই মোজাম্মেল তাকে এখানে দিয়ে গেছে। বিষয়টি মোজাম্মেল নিজেও স্বীকার করেছেন। তবে কার মাধ্যমে তাকে সেখানে কাজে নিযুক্ত করা হয়েছে এ কথা জানাতে নারাজ তিনি।

বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন বিভাগের সভাপতি প্রফেসর জহুরুল ইসলাম বলেন,‘বিশ্ববিদ্যালয়ে এ জাতীয় দিন মজুরের কাজ যারা করে তাদের একটি সুনির্দিষ্ট তালিকা তৈরী করে শৃঙ্খলের মধ্যে আনতে হবে। নইলে তাদের বিশ্ববিদ্যালয়ের কাছে কোন দায়বদ্ধতা থাকবে না। তারা এভাবে বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মান ক্ষুন্ন করলেও আমাদের খুব বেশি কিছু করার থাকবে না।’

এ বিষয়ে প্রক্টর প্রফেসর মাহবুবর রহমান বলেন,‘এক আনসার সদস্য খবর দিলে আমি নিজে গিয়ে হাতেনাতে আটক করি। তাদের কাছ থেকে একটি স্বীকারোক্তি নিয়ে থানায় সোপর্দ করেছি।’

বিশ্ববিদ্যালয় থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রতন শেখ বলেন,‘তাদের উভয়ের অবিভাবকদের খবর দেওয়া হয়েছে। তারা দুজনেই থানায় পুলিশি হেফাজতে আছে।’

আরএম/ ২৬ এপ্রিল ২০১৮

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।