৪র্থ দিনে গ্রন্থমেলায় এসেছে ১১১টি নতুন বই


টাইমস অনলাইনঃ
Published: 2018-02-04 23:34:52 BdST | Updated: 2018-02-21 09:17:29 BdST

বইমেলায় অংশগ্রহণকারী প্রকাশকদের জন্য আয়োজক প্রতিষ্ঠান বাংলা একাডেমি নীতিমালা করলেও তা মানছেন অনেক প্রকাশক।

নির্বিঘ্নে অন্য প্রকাশনীর বই বিক্রি চলছে স্টলে স্টলে, অনুবাদ প্রকাশকের ক্ষেত্রে লেখকের অনুমতি নেওয়ার শর্ত থাকলেও তা ধার ধারেননি অনেকে।

নীতিমালা লংঘনকারী প্রতিষ্ঠানগুলোর বিরুদ্ধে ব্যবস্থা না নেওয়ার জন্য গ্রন্থমেলা পরিচালনা কমিটির সমালোচনা করেছেন জ্ঞান ও সৃজনশীল প্রকাশ সমিতির নেতারা।

গ্রন্থমেলার নীতিমালার ৬.১ ধারায় বলা হয়েছে, অনুবাদের বই প্রকাশের ক্ষেত্রে মূল লেখক বা প্রকাশকের অনুমতিপত্র থাকতে হবে বাংলাদেশের প্রকাশকদের। অনুমতিপত্রের একটি অনুলিপি কপিরাইট বোর্ডেও জমা দেওয়ার নিয়ম রয়েছে।

রোববার মেলার চতুর্থ দিনে গ্রন্থমেলায় এসেছে ১১১টি নতুন বই।

এর মধ্যে ইন্তামিন প্রকাশন এনেছে অসীম সাহার ‘পাজর ভাঙার শব্দ’, অবসর এনেছে নির্মলেন্দু গুণের ‘একটি সন্তান সম্ভবা পাখির গল্প’, অনিন্দ্য প্রকাশ এনেছে মোস্তফা মনোয়ারের ‘মনজংশন’, লিয়াকত হোসেন খোকনের ‘বাংলাদেশ ভ্রমণ গাইড’, ইকবাল খন্দকারের ‘গলাকাটা গোয়েন্দা’; যুক্ত এনেছে করুণাময় গোস্বামির ‘লাহোরে রহিম খের’, আফসার ব্রাদার্স এনেছে ফারুক আহমেদের ‘কুয়াশায় ঢাকা স্বপ্ন’, আগামী থেকে এসেছে সুধাংশু শেখর বিশ্বাসের ‘সোনালী ডানার চিল: কৈশোর, শৈশব’, অন্বেষা এনেছে নানজিবা খানের ‘অটিস্টিক শিশুরা কেমন হয়’, উৎস প্রকাশনী থেকে এসেছে মুজিবের ‘এক যে ছিলো শীত ও অন্যান্য গল্প’, সাহস এনেছে সাঈয়েদ জামিলের ‘বহুদূর পাখীপুর’, বলাকা প্রকাশন এনেছে আরজু মুনের ‘স্পর্শের আড়ালে তুমি’, আইন ও সালিশ কেন্দ্র এনেছে গবেষণা গ্রন্থ ‘শিশু ও শিশুর অধিকার’, অনন্যা এনেছে মহাদেব সাহার ‘অনন্তের বাশি’।

বিডিবিএস 

Loading...

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।