আসামে বন্ধ হবে সরকারি মাদ্রাসা, ঘোষণা মন্ত্রীর


Dhaka
Published: 2020-10-09 23:59:21 BdST | Updated: 2020-10-23 16:26:38 BdST

ভারতের আসাম রাজ্যে সরকার পরিচালিত সব মাদ্রাসা বন্ধ করে দেওয়া হবে। রাজ্যের শিক্ষামন্ত্রী হিমন্ত বিশ্বশর্মা এই সিদ্ধান্তের কথা জানিয়েছেন। গতকাল বৃহস্পতিবার গুয়াহাটিতে সংবাদ সম্মেলন করে তিনি বলেছেন, সরকারের টাকায় ধর্মীয় শিক্ষাদান চলতে পারে না। আগামী মাসেই এই সংক্রান্ত সরকারি বিজ্ঞপ্তি প্রচার করা হবে।

রাজ্যে বিজেপি ক্ষমতায় আসার পর বেশ কিছুদিন ধরেই সরকারি আনুকূল্যে চলা মাদ্রাসাগুলো বন্ধ করা দেওয়ার বিষয়টি বিবেচিত হচ্ছে। রাজ্যে এই ধরনের মাদ্রাসার সংখ্যা ৬১৪। বেসরকারি পরিচালনাধীন মাদ্রাসার সংখ্যা ৯০০। রাজ্যে সরকার পরিচালিত টোল আছে শতাধিক। কিন্তু সেগুলো বন্ধ করা হচ্ছে না। সরকার পরিচালিত মাদ্রাসার জন্য বাৎসরিক খরচ হয় আনুমানিক ৪ কোটি টাকা। টোল পরিচালনায় খরচ ১ কোটি।

সরকারি এই সিদ্ধান্তের সমালোচনা করেছেন এআইইউডিএফ নেতা বদরুদ্দিন আজমল। শুক্রবার তিনি বলেন, সরকার এই সিদ্ধান্ত নিতে পারে না। এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো অর্ধ শতাব্দী ধরে রাজ্যে বহু মানুষকে শিক্ষাদান করে চলেছে। তিনি বলেন, সরকার যদি বন্ধ করে দেয়, তা হলে সেটা অন্যায় হবে। ভোটে জিতে আমরা ফের সেগুলো চালু করব।

আসাম বিধানসভার ভোট আগামী বছর। তার আগে এই ধরনের সিদ্ধান্ত গ্রহণের মধ্য দিয়ে শাসকদল বিজেপি ‘ধর্মীয় মেরুকরণের’ চেষ্টা চালাচ্ছে বলে বিরোধীদের অভিযোগ। ইতিমধ্যেই মাদ্রাসাগুলোয় কর্মরত ১৪৮ জন অস্থায়ী শিক্ষককে অন্য বিদ্যালয়ে বদলি করা হয়েছে।

চলতি বছরের গোড়ায় শিক্ষামন্ত্রী বলেছিলেন, ধর্মনিরপেক্ষ দেশে সরকারের টাকায় ধর্মীয় বিদ্যালয় চলতে পারে না। সে সময় তিনি মাদ্রাসার সঙ্গে টোল বন্ধের কথাও বলেছিলেন। কিন্তু বৃহস্পতিবারের সংবাদ সম্মেলনে তিনি টোল সম্পর্কে কিছু বলেননি। এ নিয়ে প্রশ্ন করা হলে তিনি বলেন, সংস্কৃত টোলের বিষয়টি আলাদা। তাদের বিরুদ্ধে অভিযোগ, সেগুলির পরিচালন ব্যবস্থা স্বচ্ছ নয়। সরকার তাই স্বচ্ছতার দিকে নজর দেবে।