কোচিং করিয়েই পড়াশোনা করছে অনেকে, বন্ধ হলে সঙ্কট বাড়বে


টাইমস অনলাইনঃ
Published: 2019-02-11 17:58:27 BdST | Updated: 2019-07-20 12:17:23 BdST

বড় আফসোস হয়! দেশে কতকিছুই তো বৈধ কিন্তু শিক্ষাদানই অবৈধ। এদেশের অলিতে গলিতে কত কিছুই চলে আর আমরা যারা দিনরাত পরিশ্রম করে হালাল ভাবে টাকা উপার্জনের জন্য অপরকে অর্জিত জ্ঞান বিলিয়ে দিয়ে উপার্জনের পথটা বেছে নেই আর তখনই এটা হয়ে গেলো কোচিং বাণিজ্য। আমরা যারা বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ি আমাদের কাছ থেকে পরিবারের প্রত্যাশা একটু বেশি আর যদি আমার ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় এর কথা বলি এখানে প্রায় শতকরা ৯০ ভাগ শিক্ষার্থীই একদম তৃণমূল থেকে উঠে আসা নিম্নমধ্যবিত্ত পরিবারের সন্তান আমরা।

মনে পড়ে সেই ২০১০ সালের পর থেকে বাবা মার কাছ থেকে কোনদিন আর টাকা নেইনি টিউশনি করে কোচিং চালিয়েই নিজের পড়াশোনা তো আছেই আমার ৩ টা আদরের ছোট বোন তাদের পড়াশোনা এবং পরিবারের পাশে দাড়িয়েছি। সারাদেশে প্রত্যেকটি বিশ্ববিদ্যালয়ে আমার অনেক ছাত্রছাত্রী পড়াশোনা করছে। যাদেরকে সব সময় শিখিয়েছি কিভাবে জীবনে সংগ্রাম করতে হয়।আমার জন্মই হয়েছে একটি অতি দরিদ্র পরিবারে সেই পরিবারে কেউই পড়াশোনা করেনি এখান থেকে উঠে এসেছি।

আজকে যারা আমরা সারাদেশে বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ে বিভিন্ন বর্ষের শিক্ষার্থী তারা এই বয়সে এসে বাবা মার কাছে টাকা চাওয়া বড্ড বেমানান। মনে পড়ে খুব বেশি তখন ক্লাস এইটে পড়ি বাবা বলতো পড়াশোনা করে কি করবি খরচ কিভাবে চালাবো তার চেয়ে ভালো বাবা বিদেশ চলে যা। তখন আমার বড় ভাই বিদেশে ছিলো, ভাই বলতো বিদেশ চলে আয় ।খুব করে সেদিন বলেছিলাম পড়াশোনা আমি নিজেই করবো আপনাদের কেউ টাকা দেয়া লাগবেনা আশা করি আমার এই গল্পের সাথে অনেকের জীবনের গল্পটা মিলে যাবে। আজকেও আমার এক ছাত্র সেও কোচিং এ ক্লাস নেয় রাজশাহীতে ফোন দিয়ে বললো ভাই কিছু টাকা থাকলে দেন ভাই কোচিং তো বন্ধ ক্লাস নিতে পারিনা কামাই নেই খাওয়ার টাকা নাই কথাগুলো শুনছিলাম আর চোখের কোণে পানি চলে আসছিলো ।

আমিও এদেশটাকে ভালোবাসি,বঙ্গবন্ধুর আদর্শ ধারন করি। মাননীয় প্রধানমন্ত্রী আপনার নিকট আকূল আবেদন আমাদের দেশ,আমাদের সমাজ, আমাদের পরিবারের এমন অবস্থা হয়নি যে পরিবার আমাদেরকে পরিচর্যা করবে আমরা নিজেরাই আমাদের পরিচর্যার দায়িত্ব নিয়েছি আমাদের এই হালাল উপার্জন টি বন্ধ করে দিবেন না। হ্যা, আমি এটাও বলছি যারা বিভিন্ন অপকর্মে লিপ্ত তাদেরকে সমুচিত শাস্তির বিধান বাস্তবায়নের মাধ্যমে প্রিয় নেত্রী সমাধান করতে পারবেন। আমরা তরুণরা একটি সুন্দর সমৃদ্ধ বাংলাদেশের স্বপ্ন দেখি আপনার বলিষ্ঠ ও যোগ্য নেতৃত্বে।

মো : বিল্লাল হোসেন
বিবিএ,এম.আই.এস বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।
সহসভাপতি বিজয় একাত্তর হল ছাত্রলীগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।