কৃষকের ঘরে ফাগুন আসবে কবে


Dhaka
Published: 2019-02-12 23:10:17 BdST | Updated: 2019-08-19 15:20:34 BdST

খবর: "উত্তরাঞ্চলে ফুলকপি এক টাকা, বাঁধাকপি দেড় টাকায় বিক্রি হচ্ছে। টমেটো, মূলা কেউ কিনছে না। সেগুলো জমিতেই পড়ে আছে।"

কৃষকের সন্তান হয়ে এই খবর যখন আমাদের পড়তে হয় তখন শুধু আমরা শূন্যতা অনুভব করি। এদেশের কর্মকর্তা-কর্মচারী, শিক্ষক, ডাক্তার, পুলিশ, সশস্ত্র বাহিনী, ইঞ্জিনিয়ার, সহ সকল শ্রমজীবী মানুষ, এমনকি শ্রমিকের বেতনও যখন দ্বিগুণ হয় তখন সারা জীবন খেটে খাওয়া কৃষকের এই দুর্দশা কেউ অনুভব করে না।

সাংবাদিক মহাশয়রা চালের দাম, সবজির দাম বাড়লে উঠে-পড়ে লেগে যায়। সরকার কেন দাম বাড়ায়? সরকার কি করে? যেন সাংবাদিক ভাইরা সহ সুশীল শ্রেণী এইসব প্রশ্নে পাগলপারা!

অথচ তাঁরা দেখতে যায় না, খুঁজতে চায় না, একজন সারাবছর রোদ-ঝড়-বৃষ্টিতে হাড় ভাঙা কৃষকের হাড়ির খবর। তারা ইতিহাস নির্ভর খোয়াব দেখতে চায় শায়েস্তা খানের আমল কবে আসবে এদেশে।

কৃষকের ১ টাকার ফুলকপি ঢাকায় বিক্রি হয় ২৫ টাকায়।
অথচ ঢাকায় আনতে রাস্তায় প্রতিটি মোড়ে মোড়ে ট্রাফিক পুলিশ কে ঘুষ দিয়ে নিয়ে আসতে হয় এই সব কাঁচামাল। তারপর আছে মধ্যসত্বভোগীদের সীমাহীন দৌরাত্ম্য। যার ফলে ১ টাকার কপি ২৫ টাকায় বিক্রি হয়। এসব নিয়ন্ত্রণের জন্য আমাদের কেমন জানি
গা-ছাড়া ভাব!

কৃষকের সন্তান হয়ে দ্ব্যর্থহীনভাবে বলতে চাই, চালের দাম ন্যূনতম ৬০ টাকা কেজি না হলে একজন কৃষকের সেভাবে দিনবদল হবে না। যতটা না আপনাদের হয়েছে!
সবার বেতন বেড়েছে দ্বিগুন কিংবা তিনগুণ আর কৃষকের ঘরে জ্বলবে আগুন। তারা বছরের পর বছর স্বপ্ন দেখে যাবে আসছে বছর ঘরে উঠবে নতুন ফাগুন?

দিন চলে যায়, মাস চলে যায়, মাস ঘুরে বছর আসে সেই ফাগুনের দেখা পায় না এদেশের কৃষক।

পুনশ্চ: দেশের প্রধান শ্রেণী পেশার এই সকল কৃষকের সত্যিকারের দিনবদল না হলে আন্তর্জাতিক সমীক্ষানুযায়ী বাংলাদেশ ধনী বৃদ্ধির হার বাড়তেই থাকবে। বিপরীতে গরীবের হারও থাকবে সমান্তরাল।

লেখক: রকিবুল ইসলাম ঐতিহ্য
এমফিল শিক্ষার্থী, ইতিহাস বিভাগ, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।
বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সাবেক কেন্দ্রীয় নেতা।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।