মুমূর্ষু অবস্থা থেকে ছাত্রদলকে বাঁচালো ডাকসু নির্বাচন


ঢাবি টাইমস
Published: 2019-03-09 00:30:30 BdST | Updated: 2019-04-23 18:55:21 BdST

এক যুগেরও বেশি সময় ধরে ক্ষমতার বাইরে বাংলাদেশের অন্যতম প্রধান রাজনৈতিক দল বাংলাদেশ জাতীয়তাবাদী দল বিএনপি। দীর্ঘ সময় ক্ষমতার বাইরে থাকা দলটির ছাত্রসংগঠন জাতীয়তাবাদী ছাত্রদলের সাংগঠনিক কার্যক্রমও প্রায় স্থবির বিগত কয়েকবছর ধরে।

ছাত্ররাজনীতির প্রাণকেন্দ্র ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মধুর ক্যান্টিন আর আবাসিক হলগুলোতেও ছাত্রদলের সাংগঠনিক পদচারণা ছিলো প্রায় অনুপস্থিত।
দীর্ঘকাল যাবত কাউন্সিল না হওয়া, দলীয় অন্তঃকোন্দল, রাজনৈতিক দমন পীড়ন, অছাত্রদের হাতে ছাত্ররাজনীতির চাবিকাঠি থাকা সহ নানা কারণে প্রায় যেন হারিয়ে গেছে ক্যাম্পাসে একসময়ের দুর্দান্ত প্রতাপে থাকা ছাত্রদল।

দীর্ঘ আটাশ বছর পর অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া ডাকসু নির্বাচন হঠাৎ যেন প্রাণ সঞ্চার করেছে ছাত্রদলের রাজনৈতিক কার্যক্রমে।
বহুবছর ক্যাম্পাসের প্রায় কোথাও দাড়াতে না পারা ছাত্রদলকে মধুর ক্যান্টিনে পর্যন্ত বসতে দিচ্ছে ক্ষমতাসীন ছাত্রসংগঠনের নেতারা। ক্যাম্পাসের বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পয়েন্ট শোভা পাচ্ছে ডাকসুতে প্রার্থী ছাত্রদলের নেতাদের ছবি সম্বলিত ব্যানার। বিভিন্ন হলে ভোটের জন্য অবাধে যাচ্ছে ছাত্রদল মনোনীত প্রার্থীরা।

ক্যাম্পাসে দলীয় ব্যানারে শোডাউন ও মিছিলের ঘটনাও ঘটেছে সাম্প্রতিক সময়ে। ডাকসু পূর্ববর্তী সময়ে যা ছিলো অসম্ভবপ্রায় দৃশ্য।

পত্র-পত্রিকায় ও বিভিন্ন টেলিভিশন টকশোতে ছাত্রদলের নেতাদের কাছ থেকে নিয়মিত শোনা যাচ্ছে আবাসিক হলগুলোতে তাদের সাংগঠনিক পরিচয় নিয়ে থাকতে দেবার দাবি। ছাত্রলীগ তাদের ব্যাপারে আপাতত সহাবস্থান নীতিতে আছে বলেই প্রতীয়মান হয় সাংগঠনিক কার্যকলাপে।

১১ মার্চ ডাকসু নির্বাচনের পর মধুর ক্যান্টিনে বা ক্যাম্পাসে ছাত্রদলকে এখনকার মতো বিচরণ করতে দেখা যাবে কিনা- এ ব্যাপারে দ্বিধা আছে ছাত্রদলেরও অনেকের মধ্যে। তবে প্রায় একযুগ পর ক্যাম্পাসে ছাত্রদলের সাংগঠনিক বিচরণ ও প্রাণের সঞ্চার যে ডাকসুর জন্যই এ বিষয়ে একমত হতেই হয়।

মোঃ আব্দুল্লাহ-আলমুতি আসাদ 
সাধারণ সম্পাদক 
ঢাকা ইউনিভার্সিটি ডিবেটিং সোসাইটি (ডিইউডিএস)
শিক্ষার্থী, আইন বিভাগ,
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়। 

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।