'মানুষের জন্য, জীবনের জন্যেই রকিবুল ইসলাম ঐতিহ্যের সমস্ত লড়াই'


টাইমস অনলাইনঃ
Published: 2019-03-10 00:36:55 BdST | Updated: 2019-04-23 18:57:06 BdST

কখনও রাজপথে মুখরিত স্লোগানে নিপীড়িত মানুষের অধিকার আদায়ের প্রখর দাবীতে, কখনও সভামঞ্চে জ্ঞানগর্ভ বক্তব্যে, তারুণ্যের দীপ্ত আলোয় উদ্ভাসিত হয়ে কখনও আগামীর জন্য নির্মাণ করে যাওয়া একটি সুন্দর পৃথিবীর, কখনও শীতার্ত মানুষের একটু উষ্ণতার জন্য ছুটে যাওয়া দেশের আনাচেকানাচে। ইতিহাস, ঐতিহ্য আর সংস্কৃতিকে বুকে ধারণ করে এভাবেই এগিয়ে যাওয়া এক রাজনৈতিক শ্রমিকের নাম রকিবুল ইসলাম ঐতিহ্য, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ঐতিহ্যবাহী সলিমুল্লাহ মুসলিম হলের একজন দুর্বার তারুণ্য, যার মন ও মনন জুড়ে শুধুই আগামীর বাংলাদেশ গড়ে তোলার স্বপ্ন।

আর তাই তো, হলে সিট না পাওয়া গ্রাম থেকে আসা অসহায় শিক্ষার্থীদের জন্য ঐতিহ্যের মন কাঁদে। অনুজদের একটি নিরাপদ ঘুম উপহার দেয়ার জন্য ঐতিহ্যের লড়াই চলতে থাকে, টিউশনি জোগাড় না হওয়া এক বেলা খেয়ে থাকা যে ছাত্রটি নিভৃতে গভীর গোপন অশ্রুপাত করে ঐতিহ্য তাঁর মাথায় বাড়িয়ে দেয় মমতার হাত। অগ্রজদের প্রতি তাঁর অসীম শ্রদ্ধা, সহপাঠীদের জন্য নিবেদিত বন্ধুবৎসল প্রাণ ও অনুজদের প্রতি এই স্নেহময় আচরণই ঐতিহ্যের ব্যক্তিত্ব। যখনই কোথাও কেউ বিপদে পড়ে কিংবা কাটায় সংকটাপন্ন অবস্থা তখনই ঐতিহ্য তাঁর মানবিক হৃদয় নিয়ে উপস্থিত হয় সেখানে। ফলে, ঐতিহ্য হয়ে ওঠে সবারই খুব কাছের কেউ। ঠিক যেন ভূপেন হাজারিকার সেই গান, মানুষ মানুষের জন্য। জীবন জীবনের জন্য...

মানুষের জন্য, জীবনের জন্যেই ঐতিহ্যের সমস্ত লড়াই। যারা খুব কাছ থেকে তাকে চেনেন তারা জানেন নিশ্চয়ই বিগত দিনগুলোতে ঐতিহ্যের অবদানের কথা। উত্তরবঙ্গে হাড়ভাঙ্গা শীতে যখন অসহায় মানুষ মানবেতর জীবনপাত করছিলো তখনই ঐতিহ্য প্রাণের দাবীতে ছুটে গিয়েছে সেখানে, নিজের কাঁধে তুলে নিয়েছে অর্থ সংগ্রহের জন্য কনসার্টের আয়োজন। আবার তাঁকে দেখা যায় সকল অপপ্রচারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সমাবেশে মাইক্রোফোন হাতে। আবার এই মানুষই নিজের রক্ত দিয়ে মৃত্যু পথযাত্রী ব্যক্তিকে বাঁচিয়ে তোলেন, বন্যা কবলিত মানুষদের জন্য ত্রান সংগ্রহের তাগিদে কাজ করেন দিন রাত।

মানবিক সত্তার বাইরেও ঐতিহ্যের রয়েছে শিল্প-সাহিত্যের প্রতি অনুরাগ। সাহিত্য ও সংস্কৃতিকে হৃদয়ে ধারণ করেন তিনি। তারই প্রমাণ মেলে তার বিভিন্ন বুদ্ধিদীপ্ত বক্তব্য, বইয়ের প্রতি ভালোবাসা, শিল্পী-সাহিত্যিকদের প্রতি শ্রদ্ধাপূর্ণ আচরণে। বঙ্গবন্ধু যে হলের আবাসিক শিক্ষার্থী ছিলেন সেই ঐতিহ্যবাহী সলিমুল্লাহ মুসলিম হলেই আমরা পাই বঙ্গবন্ধুর আদর্শে উজ্জীবিত, শুধু মুখে নয় কাজের মাধ্যমে জাতির পিতার স্বপ্নকে বাস্তবায়নে কাজ করে যাওয়া এই তরুণ তুর্কীকে। প্রচারবিমুখ, নিভৃতে কাজ করে যাওয়া প্রাণ প্রাচুর্যে ভরপুর এই তরুণ, প্রিয় মুখ মোঃ রকিবুল ইসলাম ঐতিহ্য আসন্ন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) এর ইর্বাচনে সম্মিলিত শিক্ষার্থী সংসদ মনোনীত সদস্য প্রার্থী। তার ব্যালট নং ৫১।

যে তরুণ ক্রমাগত স্বপ্ন দেখে একটি স্বপ্নের ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় গড়ে তোলার, যার ভাবনা জুড়ে শুধুই সাধারণ শিক্ষার্থীদের জন্য কাজ করে যাওয়ার নেশা, যে অন্তরে ধারণ করে শুদ্ধতা, শ্বাশত মানব প্রেম, শিল্প সাহিত্যের প্রতি যার অপার অনুরাগ আসুন আমাদের মূল্যবান ভোটটি তাকেই উৎসর্গ করি। আমরা যোগ্যকেই জায়গা করে দেই, যোগ্যদের হাতেই নির্মাণ হোক আগামীর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।

লেখক: রাব্বী আহমেদ
কবি, 'নিচের ঠোঁট কামড়ে ধরে কাঁদতে নেই' ও 'প্রত্যেকেই পৃথক পৃথিবী' কাব্যগ্রন্থের লেখক।

 

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।