'ছাত্রদের জন্য কাজ করার সুযোগ পাওয়াটা আমার জন্য আনন্দের হবে'


ঢাবি টাইমস
Published: 2019-03-10 18:03:08 BdST | Updated: 2019-04-23 18:57:27 BdST

সাদ বিন কাদের চৌধুরী (সাদী)। আসন্ন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) নির্বাচনে সম্মিলিত শিক্ষার্থী সংসদের ব্যানারে ছাত্রলীগের হয়ে স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক পদে লড়ছেন। ছাত্রলীগের বিগত কমিটির উপ-কর্মসূচি ও পরিকল্পনা বিষয়ক সম্পাদক ছিলেন তিনি।

একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ছাত্রলীগের নির্বাচন পরিচালনা ও পর্যবেক্ষণ কমিটির চট্টগ্রাম বিভাগের সমন্বয়ক হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন। গ্রামের বাড়ি ফেনী জেলার পরশুরাম উপজেলায়। পারিবারিকভাবে আওয়ামী রাজনীতির সঙ্গে যুক্ত। নানা আমিনুল করিম মজুমদার খোকা মিয়া ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক। মামা এনামুল করিম মজুমদার বাদল পরশুরাম উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান হিসেবে দায়িত্বরত।

ভবিষ্যতে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার স্বপ্ন দেখি আমি। স্বপ্ন তো দেখতেই হবে। আমি চাই, আমার স্বপ্ন আমার পেছনে দৌড়াবে

দীর্ঘ ২৮ বছর পর অনুষ্ঠিত হতে যাওয়া ডাকসু নির্বাচন নিয়ে মুখোমুখি হন জাগো নিউজ’র। জানান শিক্ষার্থীদের নিয়ে নিজের স্বপ্নের কথা। জানান, সাধারণ শিক্ষার্থীদের অধিকার আদায়ে মুখ্য ভূমিকা রাখবেন।

প্রশ্ন : দীর্ঘ ২৮ বছর পর ডাকসু নির্বাচন। এ নির্বাচনে প্রথমবারের মতো যুক্ত হওয়া স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক পদে ছাত্রলীগ থেকে লড়ছেন। অনুভূতি কেমন?

সাদ বিন কাদের : ছাত্র রাজনীতির শুরু থেকে যখন ডাকসু সম্পর্কে শুনতাম তখন থেকে এর প্রতি একটা মোহ কাজ করতো। যখন শুনতাম অমুক ভাই ডাকসুর এত বড় নেতা, তখন নিজেও ডাকসুর নেতা হব বলে স্বপ্ন দেখতাম। আজ সে স্বপ্ন হাতে ধরা দেয়ার সুযোগ তৈরি হয়েছে। সম্মিলিত শিক্ষার্থী সংসদের ব্যানারে বাংলাদেশ ছাত্রলীগ থেকে আমাকে স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক সম্পাদক পদে লড়ার সুযোগ করে দেয়া হয়েছে। এটা অত্যন্ত আনন্দের। যা আসলে ভাষায় প্রকাশের মতো নয়।

সাধারণ ছাত্রদের জন্য কাজ করব- এটা আমার জন্য অত্যন্ত গৌরবের ও আনন্দের। আমি যখন ছাত্রলীগের নেতৃত্বে ছিলাম, তখন শুধু ছাত্রলীগেরই ছিলাম। তখন আমি শিক্ষার্থীদের জন্য বিভিন্ন কাজ করলেও সব শিক্ষার্থীর বৈধ ছাত্র প্রতিনিধি ছিলাম না। বর্তমানে সে সুযোগটা পেয়েছি। আশা করছি কাজে লাগাতে পারব।

প্রশ্ন : নির্বাচন কেমন হবে বলে আশা করছেন?

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো জায়গায় বীরশ্রেষ্ঠদের নামে কোনো হল নাই। আমি চাই, আমাদের মুক্তিযুদ্ধে নেতৃত্বদানকারী অন্যান্যদের মতো বীরশ্রেষ্ঠদের নামেও হল থাকবে

সাদ বিন কাদের : এখন পর্যন্ত নির্বাচনের যে পরিবেশ, তা অত্যন্ত সুষ্ঠু রয়েছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো জায়গায় নির্বাচন সুষ্ঠু হওয়া ছাড়া কোনো বিকল্প নেই। গত কয়েকদিন ধরে ক্যাম্পাসে ছাত্রদলসহ সরকারবিরোধী ছাত্র সংগঠনগুলো নিজেদের মতো ক্যাম্পাসে ঘুরছে। তাদের মধ্যেও যে ভয়ভীতি ছিল তা ইতোমধ্যে কেটে গেছে। তারাও মনে করছেন, নির্বাচনটা সুষ্ঠু হবে। আশাবাদী হয়েছেন। আমরাও আশা করছি, এ পরিবেশ নির্বাচনের দিন পর্যন্ত বজায় থাকবে।

প্রশ্ন : স্বাধীনতা সংগ্রাম ও মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক সম্পাদক প্রার্থী হিসেবে কী বার্তা নিয়ে ভোটারদের কাছে যাচ্ছেন?

সাদ বিন কাদের : আপনি একটি বিষয় দেখবেন, আমাদের এখানে ফুলার রোড আছে, আছে উর্দু রোডও। বাংলাদেশ স্বাধীন হয়েছে সেই ১৯৭১ সালে। এখান তো এসব নামে রোড থাকা উচিত নয়। এসব ভাষা শহীদদের নামে হতে পারে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের মতো জায়গায় বীরশ্রেষ্ঠদের নামে কোনো হল নাই। আমি চাই, আমাদের মুক্তিযুদ্ধে নেতৃত্বদানকারী অন্যান্যদের মতো বীরশ্রেষ্ঠদের নামেও হল থাকবে।

এছাড়া দেখবেন, আমাদের দেশে অনেক ভুয়া মুক্তিযোদ্ধা রয়েছেন। আমি বিষয়টা নিয়ে শক্তভাবে কাজ করব। এটাকে কোনোভাবেই ছাড় দেয়া যায় না। এজন্য যদি আন্দোলনে যেতে হয়, আন্দোলনেও যাব। কারণ তারা প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধাদের অপমান করছেন।

বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি প্রক্রিয়া নিয়েও জটিলতা আছে। এটি ডিজিটালাইজড করার জন্য প্রশাসনের সঙ্গে কাজ করব। এসব বিষয় আমাকে খুব ভাবিয়ে তোলে। এগুলো নিয়ে কাজ করতে চাই।

বাইরে থেকে একজন সান্ধ্যকোর্সে ভর্তি হয়ে অবাধে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিচয় দেবেন- এটা হতে পারে না

অনেক অসচ্ছল শিক্ষার্থী এ বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হন। জীবন নির্বাহ তাদের জন্য কঠিন হয়ে পড়ে। তাদের জন্য বিভিন্ন বৃত্তির ব্যবস্থা করতে চাই। বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনকে সঙ্গে নিয়ে কেন্দ্রীয় ডাকসু থেকে আমরা একটি ফান্ড গঠন করব। সেই ফান্ড থেকে তাদের বৃত্তি দেয়ার ব্যবস্থা করব।

প্রশ্ন : ডাকসু নির্বাচনের মাধ্যমে ছাত্র প্রতিনিধি হওয়ার সুযোগ তৈরি হয়েছে। আগামীতে নিজেকে কোথায় দেখতে চান?

সাদ বিন কাদের : ভবিষ্যতে বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী হওয়ার স্বপ্ন দেখি আমি। স্বপ্ন তো দেখতেই হবে। আমি চাই, আমার স্বপ্ন আমার পেছনে দৌড়াবে। আমি শুধু কাজ করে যাব। একদিন স্বপ্ন হাতে এসেই ধরা দেবে।

 

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।