ছাত্র রাজনীতি কি ছাত্রদের মধ্যে আছে, নাকি অছাত্রদের হাতে চলে গেছে?


https://www.dw.com
Published: 2019-09-04 08:14:26 BdST | Updated: 2019-09-15 23:21:24 BdST

বিশ্ববিদ্যালয়গুলোতে ছাত্র রাজনীতি থাকলেও রাজনৈতিক দলগুলোর লেজুরবৃত্তিতেই ব্যস্ত ছাত্র নেতারা৷ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক ড. গীতি আরা নাসরীন মনে করেন, শিক্ষার্থীদের মধ্যে ছাত্র রাজনীতিতে বিতৃষ্ণাই বেশি৷

ছাত্র রাজনীতি কি ছাত্রদের মধ্যে আছে, নাকি অছাত্রদের হাতে চলে গেছে?

ছাত্র রাজনীতিতে আমরা যাদের দেখতে পাই, তারা যদি কোনো না কোনো শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের সঙ্গে সম্পৃক্ত থাকেন, সেটাও বড় কথা নয়৷ আমার কাছে মনে হয়, এখানে সবার অংশগ্রহণ নেই৷ যাঁরা রাজনীতি নিয়ন্ত্রণ করছেন, তাঁদের যদি কোনো রেজিস্ট্রেশনও থাকে সেটাও বড় কথা নয়৷ বড় কথা হচ্ছে, সাধারণ শিক্ষার্থীদের মত প্রতিফলিত হচ্ছে বা তারা কথা বলার সুযোগ পাচ্ছে কিনা৷

বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ কেন সবসময় ক্ষমতাসীন ছাত্র সংগঠনের উপর নির্ভরশীল?

এ কথা অস্বীকার করা যাবে না যে, সবগুলো বিশ্ববিদ্যালয়েই ক্ষমতাসীন যে দল থাকে, তারাই নির্ধারণ করেন যে, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রশাসনে কারা থাকবেন৷ পুরো প্রক্রিয়াটাই এখন এমন হয়েছে যে, যাঁরা ক্ষমতায় থাকেন তাঁরা রাজনৈতিক শক্তি দিয়েই টিকে থাকতে চান৷ বিশ্ববিদ্যালয়ের অভ্যন্তরে যাঁরা থাকেন, তাঁরাই যদি ক্ষমতায় যাবার উৎস হতেন, তাহলে আমরা ক্ষমতাসীন যাঁরা, তাঁদের হাতে এগুলো নিয়ন্ত্রণ হতে দেখতাম না৷

শিক্ষামূলক কর্মকাণ্ডের চেয়ে রাজনৈতিক দলগুলোর লেজুড়বৃত্তিতে অধিক মনোযোগী ছাত্র সংগঠনগুলো, পরিস্থিতি উত্তরণে আপনার পরামর্শ কী?

আমি মনে করি, উপর থেকেও তাদের নিয়ন্ত্রণ করা হচ্ছে, আবার তারা নিজেরাও সুযোগ-সুবিধা পেতে নিয়ন্ত্রিত হতে চান৷ শিক্ষাঙ্গনে কাউকে নিয়ন্ত্রণ করার চেষ্টা করা যদি বন্ধ করা হয়, বা তারা যদি শিক্ষাঙ্গনে শিক্ষার সুস্থ্ পরিবেশ বজায় রাখতে চায়, তাহলে তাদের এই ধরনের নিয়ন্ত্রণ থেকে দূরে থাকতে চান৷

ছাত্র রাজনীতির অবক্ষয় থেকে উত্তরণে আপনার পরামর্শ কী?

শিক্ষার্থীদের মধ্যে যে বিপুল প্রাণ রয়েছে, ইদানীংও আমি বিষয়টা লক্ষ্য করছি, তাদের মধ্যে একটা অবরুদ্ধ প্রাণ আছে৷ তারা তাদের কথা বলতে চায়, সমস্যার সমাধান চায়৷ বিশ্ববিদ্যালয় ক্যাম্পাগুলোকে তারা সত্যিকারের শিক্ষাঙ্গন হিসেবেই দেখতে চায়, অপরাজনীতিমুক্ত দেখতে চায়৷ এই শিক্ষার্থীদের এক জায়গায় হতে হবে৷ এক জায়গায় তারা হচ্ছেও৷ আমরা দেখেছি, আন্দোলন হয়েছে৷ সন্ত্রাসমুক্ত শিক্ষাঙ্গন বা অপরাজনীতিমুক্ত শিক্ষাঙ্গন দেখতে হলে সাধারণ শিক্ষার্থীদের এক হতে হবে৷

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।