'শুধু শহর নয় গ্রামের অসহায় মানুষদের পাশেও দাঁড়ান'


Dhaka
Published: 2020-04-06 11:55:46 BdST | Updated: 2020-05-27 00:10:16 BdST

ঢাকার শহরের/জেলার/পৌরসভার/উপজেলার,
গরিব/দিন মজুর /ভ্যান চালকেরাই শুধু অসহায়
কিন্তু  গ্রামের এই সকল মানুষ একটুও অসহায় না(!)? তাই না?

মজার কথা হইলো শহর/উপশহর/জেলা/উপজেলা/পৌরসভার সবাইকে একাধিকবার আমরা ত্রান-সাহায্য/অনুদান/সহায়তা দিচ্ছি (এমন ও হইছে একই রিক্সা চালককে আমরা ১০জন আলাদা আলাদাভাবে সহায়তা দিয়েছি, সততার সঙ্গে রিক্সা চালক পর্যাপ্ত ত্রান রেখে বাকিটা ফেরত দিয়েছেন, ফেসবুকের মাধ্যমে জেনেছি)

কিন্তু গ্রামের খেটে খাওয়া/ভ্যান চালক/অটোরিকশা চালক মানুষদের খবর কেউ ই নিচ্ছেন না।

এমপি, মেয়র, উপজেলা চেয়ারম্যানও অন্যান্যদের মতই শহর লেভেলেই সীমাবদ্ধ রেখেছেন তাঁদের ত্রান-সাহায্য কার্যক্রম। ফলে গ্রামের মানুষগুলো বরাবরের মতই বঞ্চিত হচ্ছে।

আমি গত ২৫ তারিখ থেকে গ্রামে আছি, নিজের চোখেই এগুলা দেখছি।

**প্রতিদিন ভ্যান চালিয়ে/দিন মজুর দিয়ে আয় করা লোকটি ভালো নেই। তাঁরা ভ্যান নিয়ে বের হতে পারছে না কিন্তু তাদের পেট খাইতে চায়।

**দিনমজুর লোকটিকে কেউ ই কাজে নিচ্ছে না, কিন্তু তাঁর ও তাঁর পরিবারেরও খাবার লাগে।

এলাকার চেয়ারম্যান+মেম্বার এদের সাথে যোগাযোগ করলাম, উঁনারা জানালেন এক ওয়ার্ডে ১০জনকে ত্রান-সাহায্য করা হবে। এবার আপনারাই ভাবুন গ্রামের এক একটা ওয়ার্ডে কতজন অসহায় মানুষ আছে?
কমপক্ষে ১০০+ পরিবার আছে প্রতিটা ওয়ার্ডে যাদের এই সহায়তা ভীষণ প্রয়োজন। কিন্তু তাঁদের খোঁজখবর কেউ ই নিচ্ছেন না।

পুলিশের কঠোরতার কারনে লাস্ট ৫দিন যাবত গ্রামের এই মানুষগুলো কিছুই আয় করতে পারছে না। ভীষণ অসহায় হয়ে গেছে গ্রামের এই খেটে খাওয়া মানুষগুলো।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী,
গ্রামের/শহরের এই খেটে খাওয়া মানুষগুলো আমাদের কাছে সমান গুরুত্ব প্রত্যাশা করে।
আপনি আপনার ত্রান-সাহায্য কার্যক্রম গ্রামের অসহায় মানুষ পর্যন্ত পৌছানোর ব্যবস্থা করে দিন। তা না হলে এরা আর দুই দিন পরে এই লক-ডাউন মানবে না, তাদের পেটে ভাত দরকার। সবজি না হলেও হবে অন্তত চাল ডাল এর ব্যবস্থা করে দিন।

স্থানীয় প্রতিনিধিদের নির্দেশ দিন, গ্রামের এই অসহায় মানুষদের পাশে এসে দাঁড়ানোর জন্য।

না হলে অনেক বড় ক্ষতি হয়ে যাবে, গ্রামের এই মানুষগুলো সকল ভয় উপেক্ষা করে জীবিকার জন্য রাস্তায় বের হলে মহামারী আরো ভয়ংকর হয়ে উঠবে।
করোনা আমাদেরকে ক্ষমা করবে না, একটু সুযোগ পেলেই লুফে নিবে...

জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু 

শেখ আব্দুল্লাহ
সাবেক উপ-প্রচার সম্পাদক
বাংলাদেশ ছাত্রলীগ
ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়।