স্বপ্নপূরণে লক্ষ্য হোক অটুট


জয়নুল হক
Published: 2018-06-09 10:34:34 BdST | Updated: 2018-08-17 17:47:39 BdST

শেষ হলো উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা, এবার বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তির পালা।তোমরা ইতিমধ্যেই বিশ্ববিদ্যালয়ে পড়ার স্বপ্ন বুনতে শুরু করেছ। বিশ্ববিদ্যালয়ের গন্ডিতে পা দিতে কত অজানা স্বপ্ন উঁকি দিচ্ছে তোমার মনে। হ্যাঁ, তুমিই পারবে সফল হতে, বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষা নামক যুদ্ধে বিজয়ী হতে। এর জন্য তোমার প্রয়োজন অধ্যবসায় ও একনিষ্ঠ সাধনা আর সুনির্দিষ্ট কিছু পদক্ষেপ।

তোমার লক্ষ্য নির্ধারণ করোঃ শুরুতেই তোমার লক্ষ্য টিক করে নাও। লক্ষ্যহীন হয়ে ছুটে চলা বোকামি বৈ কিছু নয়। যে বিষয়ের প্রতি তোমার আগ্রহ বেশী, সেটাই নির্বাচন কর। পাশের বাসার আন্টি আর অন্যের কথায় পছন্দের বিষয় নির্বাচনে ভূল যেন না হয়। এরপর দেখে নাও কোন কোন বিশ্ববিদ্যালয়ে রয়েছে তোমার পছন্দের বিষয়টি। তবেই হয়ে যাবে তোমার স্বপ্নিল তালিকা। এবার শুরু কর রুটিনমাফিক প্রস্তুতি, সাফল্য তোমায় ধরা দিবেই।

তুমি হও আত্ববিশ্বাসীঃ বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষাকে ডাল-তলোয়ারহীন যুদ্ধ বলা যায়। সাধারণত, যুদ্ধ ক্ষেত্রে সেই সৈনিক জয়ী হয়, যে হয় আত্ববিশ্বাসী, পরিশ্রমী ও দূরদৃষ্টিসম্পন্ন। ভর্তি পরীক্ষাতে তুমিও একজন সৈনিক। তোমাকে সেই সৈনিকের মত হতে হবে আত্ববিশ্বাসী, পরিশ্রমী আর দূরদৃষ্টিসম্পন্ন। আমিই পারব, আমার দ্বারাই সম্ভব। এমন ভাবনা নিজের মধ্যে তৈরী করে নিতে হবে। অন্যথায়, তুমি শুরুতেই পিছিয়ে পড়বে। আর আত্ববিশ্বাসীরাই সফলতার শীর্ষে আরোহণ করে।

সময়ের সদ্ব্যবহার চাইঃ আমরা সর্বদাই সময়ের সদ্ব্যবহার করার কথাটি বলে থাকি। তবে বাস্তবে খুব কম সংখ্যকই প্রয়োগ করি। উচ্চমাধ্যমিক পরীক্ষা শেষে, বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষার পূর্ব পর্যন্ত সময়টা তোমার জীবনের মোড় ঘুরিয়ে দিতে পারে। এই স্বল্প সময়ের সদ্ব্যবহারের দ্বারা জীবনের শ্রেষ্ঠ সময়ের ভীত রচনা করতে পার। এই সময়টা কাজে লাগাও, পড়া-লেখার দিকে মনযোগী হও। নিজেকে জ্বালিয়ে নিতে, শুরু কর সর্বোত্তম প্রস্তুতি।

সাজেশনহীন পড়াঃ তোমরা মাধ্যমিক, উচ্চ মাধ্যমিক পড়ালেখা করেছ সাজেশন অনুযায়ী। তবে বিশ্ববিদ্যালয় ভর্তি পরীক্ষা এর থেকে সম্পূর্ণ ব্যতিক্রম। সিলেবাসের সবই আসতে পারে ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নে। তাই পাঠ্য বইয়ের শুরু থেকে শেষ অবধি পড়ে যাও। আর পড়ার সময় গুরুত্বপূর্ণ বিষয়গুলোকে আন্ডারলাইন ও নোট করে নাও। সাজেশন দেখে পড়ার সময় এখন শেষ।

পরিমিত ঘুমানো চাইঃ নিজেকে সুস্থ্য রাখতে ঘুমের কোন বিকল্প নাই। অনেককে দেখেছি একটানা পড়ার ধরুন অসুস্থ হয়ে সপ্তাহ দুয়েক বিছানায় পড়ে থাকতে। সারা রাত জেগে পড়ার মধ্যে সার্থকতা নেই, যদিনা নিজে সুস্থ থাক। তাই নিজেকে তৈরি করার জন্য ও সুস্থ রাখতে চাই নির্দিষ্ট সময়ে ৬-৭ ঘন্টার প্রশান্তির ঘুম। কেননা ঘুমই তোমার ক্লান্তি দূর করে পরবর্তী কাজের জন্য রসদ জোগাবে।

শেষ সমাচারঃ ভর্তি পরীক্ষা একটু প্রতিযোগিতামূলক, তবে অসম্ভব কিছু নয়। মানুষের অসাধ্য কিছুই নেই। তোমারই পদচারণায় মুখরিত হওয়ার অপেক্ষায় দেশের সেরা বিশ্ববিদ্যালয়গুলোর আঙিনা। শুধু নিজেকে যুদ্ধের সেরা সৈনিক হিসেবে তৈরি করে নাও। তোমার জীবনের এই মাহেন্দ্রক্ষণে অনেক ভালোবাসা ও শুভ কামনা রইল। এগিয়ে যাও নিজ স্বপ্ন পূরণের লক্ষ্যে।

লেখক: জয়নুল হক, শিক্ষার্থী, রাষ্ট্রবিজ্ঞান বিভাগ, জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয়, ঢাকা।

এসএইচ/ ০৯ জুন ২০১৮

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।