ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ বিষয়ে উদ্বিগ্ন ঢাবির সাদা দলের শিক্ষকরা


Dhaka University Times
Published: 2018-09-22 16:08:33 BdST | Updated: 2018-12-12 05:46:47 BdST

গত ১৯ সেপ্টেম্বর বুধবার জাতীয় সংসদে ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮’ পাশ হওয়ায় বিষয়ে উদ্বেগ জানিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের সাদা দল সমর্থক শিক্ষকরা।

বিবৃতি বলা হয়, আমরা উদ্বেগের সাথে লক্ষ করছি বহুল সমালোচিত নিপীড়নমূলক আইসিটি অ্যাক্টের ৫৭সহ ৫টি ধারা বিলুপ্ত করার কথা বলা হলেও ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনের ৮, ২৫, ২৮, ২৯ ও ৩১ ধারায় তা আরো কঠোর এবং অধিকতর শাস্তির বিধান রেখে প্রতিস্থাপিত হয়েছে। ডিজিটাল আইনের এসব ধারা প্রচলিত ফৌজদারি দÐবিধির সঙ্গে সাংঘর্ষিক। এ আইনে আমাদের মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্তর্নিহিত উপাদান ও সংবিধানে দেওয়া মুক্তচিন্তা, বাক ও মত প্রকাশের স্বাধীনতার সু¯পষ্ট লঙ্ঘন। এ আইনটি মৌলিক অধিকার ও মানবাধিকারেরও পরিপন্থী এবং স্বাধীন গণমাধ্যমের বিকাশের ক্ষেত্রে একটি বড় অন্তরায় হবে। এ আইনটির ফলে গণমাধ্যম কর্মীরা স্বাধীনভাবে পেশাগত দায়িত্বপালনে ঝুঁকির মধ্যে পড়বে। অতীত অভিজ্ঞতা থেকে বলা যায় যে, রাজনৈতিক প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করা ও নির্যাতন-নিপীড়নের হাতিয়ার হিসেবে এ আইনটির নির্বিচার অপব্যবহার হওয়ার আশঙ্কা রয়েছে। আর এটি হলে দেশের গণতান্ত্রিক ব্যবস্থা আরো ক্ষতিগ্রস্থ হবে। এ আইনের বিতর্কিত ৩২ ধারাটি ঔপনিবেশিক আমলের ১৯২৩ সালের অফিসিয়াল সিক্রেটস অ্যাক্টেরই নামান্তর। এটি তথ্য অধিকার নীতিরও পরিপন্থী।

এতে লেখা হয়েছে, এর প্রয়োগের ফলে সুশাসন ক্ষতিগ্রস্থ হবে এবং দুর্নীতির ব্যাপক বিস্তার ঘটাবে বলে আমরা মনে করি। একুশ শতকের অবাধ তথ্য প্রবাহের যুগে কোনো গণতান্ত্রিক দেশ বা সমাজে এমন একটি বিতর্কিত ও নিবর্তনমূলক আইন প্রণয়ন কোনোভাবেই সমর্থনযোগ্য নয়। সুশীল সমাজসহ দেশের বিভিন্ন শ্রেণি পেশার মানুষের প্রতিবাদ ও বিরোধিতা উপেক্ষা করে রাজনৈতিক হীন উদ্দেশ্য চরিতার্থ করার জন্য সরকারের ‘ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮’ পাশের ঘটনায় আমরা তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি।

শিক্ষকরা বলেন, মহামান্য রাষ্ট্রপতি আমাদের দেশের অভিভাবক। বাক ও মতপ্রকাশ এবং গণমাধ্যমের স্বাধীনতা বিরোধী ও মানবাধিকারের পরিপন্থী এ নিবর্তনমূলক আইনটিতে সম্মতি স্বাক্ষর না দিয়ে তা সংশোধন ও পুনর্বিবেচনার জন্য জাতীয় সংসদে ফেরত পাঠানোর জন্য মহামান্য রাষ্ট্রপতিকে সবিনয় অনুরোধ করছি।

 

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।