এমপি হওয়ার পর অনার্স-মাস্টার্স পাশ করেছেন উপমন্ত্রী জ্যাকব


টাইমস অনলাইনঃ
Published: 2018-12-03 22:26:21 BdST | Updated: 2018-12-12 03:31:43 BdST

ভোলা-০৪ (চরফ্যাশন-মনপুরা) আসনের সংসদ সদস্য এবং পরিবেশ ও বন উপমন্ত্রী আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব ২০০৮ সালে এমপি নির্বাচিত হওয়ার পর অনার্স ও মাস্টার্স কোর্স সম্পন্ন করেছেন। নির্বাচন কমিশনে তার দেয়া তিনটি সংসদ নির্বাচনের পৃথক হলফনামা বিশ্লেষণ করে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।

২০০৮ সালের ডিসেম্বর মাসে জাতীয় সংসদ নির্বাচনে আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব তার হলফনামায় শিক্ষাগত যোগ্যতা লিখেছিলেন এইচএসসি পাশ। এরপর ২০১৪ সালের ০৫ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত নির্বাচনের হলফনামায় (যা সবমিট করা হয়েছে ২০১৩ সালের ডিসেম্বর মাসে) তার শিক্ষাগত যোগ্যতা দেখিয়েছেন এমএসএস।

অর্থাৎ পাঁচ বছরের মাথায় তিনি অনার্স ও মাস্টার্স কোর্স সম্পন্ন করলেন। নির্বাচন কমিশনের কাছে দেয়া হলফনামার কপিতে তিনি তার অ্যাকাডেমিক সার্টিফিকেট সংযুক্ত করার কথা বললেও ইসির ওয়েবসাইটে তার অনার্স মাস্টার্স কোর্সের সেইসব সার্টিফিকেটের কপি পাওয়া যায়নি।

বিশ্বস্ত একাধিক সূত্র জানিয়েছে, তিনি রাজধানী ঢাকার পিপলস্ ইউনিভার্সিটি থেকে রাষ্ট্রবিজ্ঞানে অনার্স ও মাস্টার্স কোর্স সম্পন্ন করেছেন। এমপি হওয়ার পর তিনি কিভাবে অনার্স-মাস্টার্স কোর্স সম্পন্ন করলেন তা নিয়ে সন্দেহ প্রকাশ করেছেন তার প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী নাজিম উদ্দিন আলম।

তিনি বলেন, বিষয়টি সম্পূর্ণ রহস্যজনক। যে ইউনিভার্সিটি থেকে তিনি (জ্যাকব) অনার্স ও মাস্টার্সের সার্টিফিকেট সংগ্রহ করেছেন সেই ইউনিভার্সিটির বিরুদ্ধে ‘সার্টিফিকেট বাণিজ্য’র একাধিক রিপোর্ট বিভিন্ন পত্রপত্রিকায় প্রকাশিত হয়েছে।

বিষয়টি তদন্ত করে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য নির্বাচন কমিশনের কাছে আবেদন জানাচ্ছেন নাজিম উদ্দিন আলম। একই সাথে আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকবের সম্পদ বিবরণীতেও প্রকৃত সব তথ্য দেয়া হয়নি বলে অভিযোগ তৈরী করছেন নাজিম উদ্দিন আলম।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক চরফ্যাশন উপজেলার একজন বিএনপি নেতা জানান, বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের নিয়মানুযায়ী একজন শিক্ষার্থীকে ৫০ ভাগেরও বেশি ক্লাশে উপস্থিত থেকে এবং পরীক্ষা দিয়ে পাশ করে সার্টিফিকেট অর্জন করতে হয়।

কিন্তু চরফ্যাশনের উপমন্ত্রী আবদুল্লাহ আল ইসলাম জ্যাকব এমপি হওয়ার পর কোনো বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাশ করেছেন কিংবা পরীক্ষা দিয়েছেন এমন কোন তথ্য আমাদের কারো জানা নেই, তাহলে তিনি সার্টিফিকেট অর্জন করলেন কিভাবে? বিষয়টি সম্পূর্ণ রহস্যজনক।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।