অসহায় মেধাবী শিক্ষার্থীদের পাশে ছাত্রলীগ নেতা রাজিদুল


টাইমস অনলাইনঃ
Published: 2019-02-11 16:29:11 BdST | Updated: 2019-07-20 12:15:29 BdST

সূর্য প্রতিদিন নতুন দিনের বার্তা নিয়ে আমাদের মাঝে হাজির হচ্ছে।আমাদের তরুণেরা সেই নতুন দিনের বাহক। স্বপ্নের সাথে যাঁদের নিরন্তর ছুটে চলা, বুকে দেশপ্রেম আর মানুষের জন্য কিছু করার ইচ্ছে, তারাই নতুন দিনের স্মারক হয়ে বদলে দিচ্ছে আমাদের এই দেশকে।ছাত্রলীগ নেতা রাজিদুল ইসলাম তেমনই এক তরুণ। তিনি মানিকগঞ্জ জেলা ছাত্রলীগের কার্যকরী সদস্য।

মানিকগঞ্জের উপজেলার সম্ভ্রান্ত এক মুসলিম পরিবারে জন্ম নেওয়া এই প্রতিভাবান তরুণ অল্প বয়সেই ছাপ রেখেছেন তার মেধা,যোগ্যতা আর প্রতিভার।হালকা শীতের এক সন্ধ্যায় কথা হলো নতুন প্রজন্মের উদীয়মান এই ছাত্রনেতার সাথে। বিনম্র স্বরে তিনি শোনালেন তার জীবনগাঁথা। উদীয়মান ছাত্রনেতা রাজিদুল ইসলামের শিক্ষাজীবন শুরু হয়েছিল বড় হাতকোড়া সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, টাঙ্গাইল সৃষ্টি একাডেমিতে ।স্কুল ও কলেজের আঙ্গিনা পেরিয়ে ২০১২ সালে ভর্তি হওয়ার সুযোগ পান নর্থ সাউথ বিশ্ববিদ্যালয়।

ছোটবেলা থেকেই রাজনীতির প্রতি প্রবল আগ্রহ ছিল তার।তিনি পরিবার থেকেই রাজনীতি করার অনুপ্রেরণা পেয়েছেন বলে জানান।তার পরিবার স্থানীয় আওয়ামী লীগের রাজনীতির সাথে জড়িত । ছাত্রলীগ নেতা রাজিদুল ইসলাম জানান, বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি হওয়ার পর ১ম বর্ষ থেকেই তিনি মধুর ক্যানটিনে যাতায়াত শুরু করেন।আর এভাবেই ধীরে ধীরে জড়িয়ে পড়েন বৃহৎ পরিসরের রাজনীতিতে।

রাজনীতি যেন তার রক্তের সাথে মিশে আছে। কলেজে পড়াকালীন সময়ে ছাত্ররাজনীতিতে তাঁর হাতে খড়ি।২০১৪ সালের ৫ই জানুয়ারীর নির্বাচনের আগে ছাত্রলীগ আয়োজিত বিভিন্ন মিছিলে গিয়েছেন ।

জানা যায়, রাজিদুল ইসলামকে জেলা কমিটিতে রাজনৈতিক মারপ্যাঁচে তাকে মুল্যায়ন করা হয়নি।তাতে তিনি কিছুটা হতাশ।তবে তিনি মনে করেন কোন একদিন তাকে মুল্যায়ন করা হবে।তিনি বলেন “আমি বঙ্গবন্ধুর আদর্শের সৈনিক,মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দেশরত্ন শেখ হাসিনা আমার আদর্শ।সারা জীবন দেশের জন্য কাজ করে যেতে চাই।”
বর্তমানে ছাত্রলীগ নেতা রাজিদুল ইসলাম ছাত্রলীগের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক গোলাম রাব্বানীর অনুসারী।রাজনীতির মাঠে তিনি মানবিক ছাত্রনেতা হিসাবে পরিচিত।


ছাত্রনেতা রাজিদুল শুধু রাজনীতিতে নয়, দেশ ও সমাজের প্রতি দায়বদ্ধতা থেকে নিজেকে জড়িয়েছেন বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনেও।
তিনি মানিকগঞ্জ লণ্ঠন নামে প্রতিষ্ঠা করেছেন দাতব্য সংগঠন ,যার খরচ সম্পূর্ণ ব্যায় বহন তিনি নিজেই । তিনি মানিকগঞ্জে প্রায় অর্ধশত মেধাবী শিক্ষার্থীদের মাঝে নিয়মিত মাসিক আর্থিক উপবৃত্তি প্রধানের পাশা পাশি শিক্ষা উপকরন দিয়ে যাচ্ছেন এ ছাত্রলীগ নেতা।

এসম্পর্কে ছাত্রলীগ নেতা রাজিদুল ইসলাম বলেন,আমার নিজ উদ্যেগে ও নিজ খরচে মানিকগঞ্জ লুন্ঠন সংগঠন পরিচালনা করছি। সমাজের বিত্তবান দানশীল মানুষ এবং সরকারি বেসরকারি দাতা সংস্থার সহযোগিতা পেলে মানিকগঞ্জ লুন্ঠন প্রতিষ্ঠিত হবে। আলো ছড়াবে গরীব মেধাবী শিশুদের মাঝে, হাসি ফুটবে নিষ্পাপ শিশুর বাবা-মার মুখে।

তিনি আরো বলেন, আমার একটি স্কুল ও একটি কলেজে আছে তা থেকে যে লাভ আসে তা আমি গরীব অসহায় শিক্ষার্থীদের বিতরণ করে দেই।আমি চাই মানিকগঞ্জ জেলা একটি আদর্শ শিক্ষা নগরী গড়ে ওঠুক এজন্য দরকার সবার প্রচেষ্টা ও আন্তরিকতা। তিনি আরো বলেন, মানবতার ফেরিওয়ালা গোলাম রাব্বানী ভাইয়ের মানবিক কাজে অনুপ্রানিত হয়ে আমিও ভাল করার চেষ্টা করছি।

ছাত্রলীগ নেতা রাজিদুল ইসলামের ইতিবাচক চিন্তভাবনা, হ্যাঁ বন্ধুরা! আমরাও কাঁধে, কাঁধ মিলিয়ে মানবতার সেবায় নিজেকে আত্মনিয়োগ করবো। আমাদের পাশে যারা ক্ষুধার্ত তাদেরকে খেতে দেব। শীতের মওসুমে শীতবস্ত্রহীন মানুষের পাশে দাঁড়াবো যারা অসহায় মেধাবী তাদেরকে পড়াশুনা চালিয়ে যাওয়ার জন্য সাহয্য করব।চিন্তা ভাবনা যেমন, কাজ তার ব্যতিক্রম নয়।

তিনি অসহায় মেধাবী সুবিধা বঞ্চিত শিশুদের মাঝে শিক্ষার আলো ছড়াচ্ছেন নিয়মিত।

তার রয়েছে মানিকগঞ্জ লুন্ঠন নামে একটি দাতব্য সংগঠন।সম্পূর্ন নিজের খরচে প্রায় ৫০ জন গরীব মেধাবী অসহায় শিক্ষার্থীদের মাঝে নিয়মিত বৃত্তি প্রদান করে আসছেন এই তরুণ ছাত্রলীগ নেতা।কখনও শীতের মওসুমে শীতবস্ত্রহীন মানুষের পাশে দাড়িয়েছেন।

আবার কখনও নিজের খরচের অসহায়দের শিক্ষার উপকরণ কিনে দিচ্ছেন।এইভাবে তিনি নিয়মিত মানবতার সেবায় কাজ করে যাচ্ছেন।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।