গণভবন থেকে প্রেস বিজ্ঞপ্তির মাধ্যমে ঘোষণা হবে ছাত্রলীগ নেতাদের নাম


টাইমস অনলাইনঃ
Published: 2018-05-12 01:49:03 BdST | Updated: 2018-05-26 02:06:27 BdST

ছাত্রলীগের উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে শেখ হাসিনা ২৮ বছরে বয়স বেঁধে দিলে ছাত্রলীগের অনেক নেতা হতাশ হয়ে পড়েন। এরপর কেন্দ্রীয় নেতারা গণভবনে গিয়ে এর সমাধান করেন। পরে তিনি ঘোষণা দেন, সম্মেলনের তারিখ পর্যন্ত যার বয়স ২৯ বছর অতিক্রম করেনি সেই ছাত্র নেতা হওয়ার যোগ্যতা রাখবে। প্রায় আড়াই ঘন্টার বৈঠকে এই সিদ্ধান্ত হয়। পরে শেখ হাসিনা কেন্দ্রীয়নেতাদের সবাইকে শনিবার ছাত্রলীগের সম্মেলনস্থলে যেতে নিদের্শ দেন। সেখানে যারা মনোনয়ন ফরম সংগ্রহ করেছেন তাদের সবার নাম ঘোষণার পর প্রার্থীদের নাম নিয়ে গণভবনে চলে আসার নিদের্শ দেন। সেখান থেকে ছাত্রলীগের নতুন নেতৃত্ব নির্বাচন করে সংবাদ বিজ্ঞপ্তির মাধ্যেমে প্রকাশ করা হবে।

শুক্রবার (১১ মে) রাতে তার সরকারি বাসভবন গণভবনে ছাত্রলীগের নতুন নেতৃত্ব নির্বাচন নিয়ে আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় নেতাদের সঙ্গে এক বৈঠকে এ কথা বলেন প্রধানমন্ত্রী। তবে দলীয় নেতাদের উদ্দেশ্য তিনি বলেন, ‘তোমাদের পছন্দের কোনও প্রার্থী থাকলে তোমরা নাম বলো। দেখি আমার পছন্দের সঙ্গে মেলে কিনা’। বৈঠকে উপস্থিত একাধিক কেন্দ্রীয় নেতা এসব তথ্য জানান।

শেখ হাসিনা প্রথমে চট্রগ্রাম বিভাগের নেতাদের দিয়ে পছন্দের প্রার্থীর নাম জানতে চান। পরে অন্য বিভাগের নেতাদের কাছেও পছন্দের প্রার্থীর নাম জানতে চান। শেখ হাসিনার প্রশ্নের উত্তর না দিয়ে দলের তরুণ সকল নেতাই সমস্বরে বলেন, ‘আমাদের পছন্দ নাই আপা। আপনার পছন্দই আমাদের পছন্দ।’

দলীয় নেতাদের উদ্দেশে শেখ হাসিনা বলেন, ‘চিরকুটের মাধ্যমেও লিখে দিতে পারো’। তিনি বলেন, ‘ছাত্রলীগের নেতা হতে মনোনয়ন সংগ্রকারী সকলের 'বায়োডাটা' ও সবার পারিবারের পরিচিতি আমার হাতে আছে। এগুলো যাচাই-বাছাই করে আমি পছন্দের প্রার্থী বেছে নিয়েছি’।

এসময় দলের এক সাংগঠনিক সম্পাদক ছাত্রলীগে নতুন নেতৃত্বে অন্তত একজন মেয়েকে শীর্ষ পদে রাখার প্রস্তাব করেন। বৈঠকে ছাত্রলীগের সাবেক দুই নেতা (কেন্দ্রীয় নেতা নয়) সংগঠনের অন্য সাবেক নেতাদের কড়া সমালোচনা করে শেখ হাসিনার সামনে। বৈঠকের পরে ছাত্রলীগের বয়সসীমা নিয়ে আলোচনা উঠে।

বিস্তারিত আলোচনা শেষে শেখ হাসিনা বলেন, ‘ছাত্রলীগের জাতীয় সম্মেলনের তারিখ পর্যন্ত যার বয়স ২৮ বছর ৩'শ ৬৪দিন সেও নেতা হতে পারবে’।

বৈঠকে শেখ হাসিনা বলেন, আগে ছাত্রলীগে মেধাবী ছাত্রদের নেতা বানানো হতো। নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করতো মেধাবীরা। ছাত্রলীগকে আবার আগের জায়গায় আসতে হবে।

বিদিবিএস 

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।