বুধবারও আন্দোলন হবে ব্র্যাক ইউনিভার্সিটিতে, স্কলারশিপ ও ছাত্রত্ব বাতিলের হুমকি


টাইমস অনলাইনঃ
Published: 2017-08-02 00:38:18 BdST | Updated: 2018-06-20 21:00:52 BdST

গত রবিবার রেজিস্ট্রার ও দুই কর্মকর্তার হাতে লাঞ্ছিত হন রাজধানীর বেসরকারি ব্র্যাক ইউনিভার্সিটির আইন বিভাগের শিক্ষক ফারহান উদ্দিন। এ শিক্ষককে বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে কর্মকর্তাদের হাতে নিগৃহীত হওয়ার ঘটনায় সাধারণ শিক্ষার্থীদের আন্দোলনে উত্তাল হয়ে উঠেছে ক্যাম্পাস। শিক্ষার্থীদের একটাই দাবি অপরাধীদের পদত্যাগ করতে হবে। আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদেরও স্কলারশিপ ও ছাত্রত্ব বাতিলেরও হুমকি দেয়া হচ্ছে, অভিযোগ শিক্ষার্থীদের। 

শিক্ষার্থীরা বলছেন, বিভিন্ন নাম্বার থেকে তাদের বাসায় অভিবাবকদের ফোন দিয়ে এসব হুমকি দেয়া হয়েছ, যাতে তাদের ছেলেমেয়েরা আগামীকালের আন্দোলনে না যায় প্রমাণস্বরূপ শিক্ষার্থীরা এই ভিডিও লিঙ্কটি ক্যাম্পাসটাইমসকে ইনবক্স করেন

একটি ভিডিওতে শুনা যাচ্ছে যে, ছাত্ররা আলোচনা করছেন যে কাকে কাকে এরকম হুমকি দেয়া হয়েছে।

আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের একজন যাকে ভুয়া নাম্বার থেকে কল দিয়ে হুমকি দেয়া হয়েছে। এই লিঙ্কে গেলেই দেখতে পাবেন তার বক্তব্য ... 

মামুনুর রশীদ শুভ নামে ব্র্যাকের এক শিক্ষার্থী তার ফেসবুকে লিখেছেন, 
আমি মনে হয় না কোন দোষ করেছি।২ টা পোস্ট এর জন্য বাবাকে কল দিয়ে হুমকি দিল।তবে হ্যা আমার বাবা কিছু বলে নি।শুধু ফোনটা আমার কানে ধরিয়ে দিয়েছে।কথোপকথন টা তুলে ধরলাম।
রেজিস্টার (নকল)-দেখ যা করছ করছ আর কইর না ভাল হবে না।ইউ হ্যাভ টু সাফার ফর দিছ।
আমি-কালকে বউ রে বইলেন ভাত রান্ধা কইরা দিতে।গেট এ তালা লাগামু।খাইবেন কি বাইর না হইতে পারলে?
রেজিস্টার-ইউ ডোন্ট নো দা পাওয়ার অফ ব্রাক।
আমি-ভাই তুমি তো আমাগো মতই স্টুডেন্ট রেজিস্টার সাজার ভাব ধরছ কেন?
এরপর সে ফোন কেটে দেয়।
যাদের বাসায় কল গেছে কেউ প্যানিকড হবেন না।এগুলো শুধুমাত্র এদের কারসাজি।আর হ্যা যতদূর শুনলাম অটোমাটা পরীক্ষা ক্যান্সেল হইছে।সিএসসি২২১ ও ক্যান্সেল যাতে হয় আর কেউ যেন ক্লাস না করতে পারে সেদিকে নজর রাখবেন।কোন স্টুডেন্ট ঢুকতে চাইলে বলবেন "আপনারা আমাদের সাথে আন্দোলনে থাকতে না চাইলে সমস্যা নেই কিন্তু বিরুদ্ধে যাবেন না প্লিজ"।
কালকে ছেলে মেয়ে কাওকে ঢুকতে দিবেন না ভার্সিটি তে।
কালকে জয় নিয়েই রাস্তা ছাড়ব ইনশা আল্লাহ

তবে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ বলছে তারা কোন শিক্ষার্থীকে ফোন দেয়নি। 

রেজিস্ট্রারের পদত্যাগ ছাড়া শিক্ষার্থীরা আন্দোলন বন্ধ করবেনা বলে ক্যাম্পাসটাইমসকে জানিয়েছেন।

তারা বলেন, শিক্ষকরা প্রাসাশনের পক্ষেই কথা বলে যাচ্ছেন, কিন্তু আমরা চাই অপরাধীদের তাৎক্ষণিক বহিস্কার।

শিক্ষার্থীরা বলছেন, উপরের মহলের নির্দেশে ব্র্যাক ইউনিভার্সিটিতে শিক্ষক লাঞ্ছনার প্রতিবাদে আন্দোলনকারী শিক্ষার্থীদের সাথে বাজে ব্যবহার এমনকি গায়ে হাত দিয়েছে গার্ডরা।

কামরুননাহার ডানা নামে এক ছাত্রীসহ কয়েকজন জন ছাত্রীর হাতে এবং বুকে ধাক্কা দিয়েছে গার্ডরা।  

অন্যান্য শিক্ষককরা চাকরি চলে যাওয়ার ভয়ে চুপ রয়েছেন বলে অভিযোগ শিক্ষার্থীদের।

এমএসএল 

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।