প্রশ্ন ফাঁস ইস্যুতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে তীব্র আন্দোলনের শঙ্কা


ঢাবি টাইমস
Published: 2018-10-17 16:15:27 BdST | Updated: 2018-12-12 01:18:52 BdST

প্রশ্ন ফাঁস ইস্যুতে যেকোন মুহূর্তে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে শুরু হতে পারে তীব্র আন্দোলন। ইতোমধ্যেই দুইটি ইভেন্টেরর মাধ্যমা আগামীকাল দুপুর ১১ টা থেকে ১২ টা পর্যন্ত মানববন্ধনের ডাক দেয়া হয়েছে। 

সরকারের কাছে গোয়েন্দা তথ ছিল, বিভিন্ন বোর্ড পরীক্ষা ও মেডিক্যালের প্রশ্ন ফাঁস নিয়ে সারা দেশে তীব্র আন্দোলন হতে পারে কিন্তু সরকার তা বিভিন্ন কৌশলে থামাতে পারলেও ঢাবিতে শুরু হতে পারে মারাত্মক আন্দোলন। যার ফলে পদত্যাগ করতে হতে পারে ঢাবির উপর পর্যায়ের সকল প্রশাসকদের। 

... 

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ঘ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্ন ফাঁসের প্রমাণ পাওয়ার কথা ঢাবি ভিসি অধ্যাপক আখতারুজ্জামান স্বীকার করেও পরীক্ষা বাতিল না করায় এই আন্দোলন শুরু হতে পারে। ইতিমধ্যে বিভিন্ন মহল ক্ষুব্ধ হয়ে উঠেছে। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রতিটি শিক্ষার্থী তীব্র ক্ষোভ প্রকাশ করে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়েছেন।

ইতিমধ্যে কোটা আন্দোলনের নেতারাও আন্দোলনের হুমকি দিয়েছেন। কোটা সংস্কার চাই (বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ) এর ব্যানারে তারা আগামীকাল মানবন্ধনের ঘোষণা দিয়েছেন।

প্রগতিশীল ছাত্র জোট সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদের ডিন সাদেকা হালিমের পদত্যাগ দাবী করেছেন। 

...

এদিকে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষার প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়েছে। বিষয়টি স্বীকার করেছেন উপ-উপাচার্য (প্রশাসন) অধ্যাপক মুহাম্মদ সামাদ। তার নেতৃত্বে জীববিজ্ঞান অনুষদের ডিন ইমদাদুল হক ও সহকারী প্রক্টর মাকসুদুর রহমানের তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি ইতিমধ্যে একটি প্রতিবেদন উপাচার্যের কাছে জমা দিয়েছে।

প্রশ্ন ফাঁসের বিষয়ে তদন্ত কমিটির পর্যালোচনা নিয়ে আজ বুধবার সাংবাদিকদের সঙ্গে কথা বলেছেন উপ-উপাচার্য অধ্যাপক মুহাম্মদ সামাদ। তবে উপাচার্য অধ্যাপক আখতারুজ্জামান দেশের বাইরে থাকায় তার বক্তব্য পাওয়া সম্ভব হয়নি।

প্রশ্নপত্র ফাঁস হয়েছে, তদন্ত কমিটির এমন প্রতিবেদন সত্ত্বেও কেন ফল ঘোষণা করা হলো? এমন প্রশ্নে উপ-উপাচার্য বলেন, ‘প্রতিষ্ঠানের প্রধান হিসেবে উপাচার্য মনে করেছেন যে ফল প্রকাশ করতে কোনো সমস্যা নেই, তাই তিনি ফল ঘোষণা করেছেন। আসলে একজন প্রশ্ন ফাঁসকারীর তথ্য পাওয়া গেছে এবং তা দিয়েছেন সাংবাদিকরা। এর পরেই আমরা আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর সঙ্গে বিষয়টি নিয়ে কথা বলেছি। প্রশ্ন ফাঁস আর ডিজিটাল জালিয়াতি যাই বলি না কেন, পরীক্ষা শুরুর আগেই আমাদের হাতে উত্তরপত্র চলে এসেছে। সত্য প্রকাশ হবেই। ধামাচাপা দিয়ে কোনো লাভ হবে না। আমি চাই পুরো ব্যাপারটিই প্রকাশিত হোক।’

...

প্রশ্ন ফাঁস নিয়ে সমালোচনার মধ্যেই উপাচার্য অধ্যাপক আখতারুজ্জামান গতকাল প্রশাসনিক ভবনের কেন্দ্রীয় ভর্তি অফিসে ‘ঘ’ ইউনিটের ফল প্রকাশ করেন। সাংবাদিকদের সামনে তিনি বলেন, ‘এরকম ঘটনা আগেও ঘটত [প্রশ্ন ফাঁস], তখন ব্যবস্থা নেওয়া হত না, এখন হচ্ছে।’ 

এই বক্তব্যের মাধ্যমে কার্যত প্রশ্ন ফাঁস হওয়ার কথাই স্বীকার করে নেন উপাচার্য।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।