দেশে ফিরেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় উপাচার্য


ঢাবি টাইমস
Published: 2018-10-22 09:33:29 BdST | Updated: 2018-11-18 00:16:47 BdST

ইস্তাম্বুলে অনুষ্ঠেয় ৫ দিনব্যাপী এক আন্তর্জাতিক সেমিনারে অংশ নিয়ে দেশে ফিরেছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক আখতারুজামান খান। তিনি তুরস্কে যাওয়ার আগের ঘ ইউনিটের ফল প্রকাশ করে যান। পরপরই ঘ ইউনিটের প্রশ্ন ফাঁস ইস্যুতে নিয়ে উত্তপ্ত হয়ে উঠে ক্যাম্পাস।

১৭ অক্টোবর ২০১৮ বুধবার ভোরে তিনি ঢাকা ত্যাগ করেন। ২১ অক্টোবর উপাচার্য ক্যাম্পাসে ফিরেছেন বলে জানা গেছে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে (ঢাবি) ২০১৮-১৯ শিক্ষাবর্ষের অধীনে ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় প্রশ্নপত্র ফাঁস ইস্যুতে তীব্র সমালোচনা চলমান রয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ে।

ছাত্রলীগ, ছাত্রদল, কোটা আন্দোলনের প্ল্যাটফর্ম সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদ এবং ঢাবি শিক্ষকদের সাদা দল ফের পরীক্ষা নেয়ার দাবি জানিয়েছেন।

সাধারণ শিক্ষার্থীরা নিয়মিত নতুন করে পরীক্ষা নেয়ার দাবিতে ফেসবুকে স্ট্যাটাস দিয়ে যাচ্ছেন। ক্যাম্পাসের বিভিন্ন দেয়ালে লেখা হয়েছে পরীক্ষা বাতিলের দাবির কথা।

এরই প্রেক্ষিতে ঢাবি প্রক্টর অধ্যাপক গোলাম রাব্বানী জানিয়েছিলেন, উপাচার্য তুরস্ক থেকে দেশে ফিরলে সিদ্ধান্ত নেয়া হবে। এখন অপেক্ষায় রয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

এদিকে রবিবার বেলা আড়াইটায় পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, ফল ঘোষণার ও অন্যান্য প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার সাথে সাথেই বিশ্ববিদ্যালয়ের মাননীয় উপাচার্য যখন একটি আন্তর্জাতিক সেমিনারে তুরস্কের ইন্তানবুলে অবস্থান করছেন তখন অনাকাঙ্খিত সংশয় ও বিতর্কের উদ্ভব ঘটল। অভিযোগের বিষয়ে প্রকৃত সত্য উদঘাটন, দোষীদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনয়নসহ আইনসঙ্গত, যথোপযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করতে বিশ্ববিদ্যালয় পুনরায় তার আন্তরিক সদিচ্ছা ব্যক্ত করছে। এ ব্যাপারে সকলের সদয় সহযোগিতা কাম্য।

এদিকে, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদ অধিভুক্ত ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা বাতিল চেয়ে হাইকোর্টে রিট করেছেন সুপ্রিম কোর্টের আইনজীবী ইউনুস আলী আকন্দ। রবিবার সকালে তিনি এই রিট করেন। দুপুর ২টার দিকে রিটের শুনানি হওয়ার কথা রয়েছে।

গত ১২ অক্টোবর ঢাবির ‘ঘ’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষা অনুষ্ঠিত হয়। পরীক্ষা চলাকালীন প্রশ্নফাঁসের অভিযোগ উঠলে পরে একটি তদন্ত কমিটি করে প্রশাসন। তদন্ত কমিটি প্রশ্নফাঁসের সত্যতা পেলেও ১৬ অক্টোবর ফল প্রকাশ করা হয়। ঘোষিত ফলাফল অস্বাভাবিক দেখা গেলে শিক্ষার্থীরা পরীক্ষা বাতিলের দাবি জানায়।

এদিকে, প্রশ্নফাঁসের সঙ্গে জড়িত ৬ জনকে আিইনশৃঙ্খলা বাহিনী আটক করলে পরে প্রশাসন শাহবাগ থানায় মামলা করে।

 

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।