প্রক্সি দিয়ে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে ভর্তি, এক বছর পর ধরা


টাইমস অনলাইনঃ
Published: 2018-11-04 22:51:28 BdST | Updated: 2018-11-18 02:25:20 BdST

প্রক্সির মাধ্যমে (অন্য পরীক্ষায় অংশ নেন) চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে (চবি) ভর্তি হওয়ার এক বছরের মাথায় ধরা পড়লো আইন বিভাগের মোহাম্মদ মঈন নামে এক শিক্ষার্থী। রবিবার বিশ্ববিদ্যালয়ের আইন অনুষদের ৩নং গ্যালারী থেকে বিভাগের প্রথম বর্ষের পরীক্ষা চলাকালীন তাকে আটক করে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ।

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর মোহাম্মদ আলী আজগর চৌধুরী জানান, আটকের পর জিজ্ঞাসাবাদে মঈন ভর্তি জালিয়াতির কথা স্বীকার করে বলেন, তিন লাখ টাকা চুক্তির বিনিময়ে তার হয়ে আরেকজন গত বছর ভর্তি পরীক্ষায় (প্রক্সি) অংশ নিয়েছিলেন।

প্রক্টর বলেন, গত বছর ‘ডি’ ইউনিটের ভর্তি পরীক্ষায় মোহাম্মদ মঈনের হয়ে ছবি পরিবর্তন করে অন্য কেউ পরীক্ষায় অংশগ্রহণ করেছিলেন। প্রক্সির মাধ্যমে পরীক্ষা দিয়ে ৮৮.২২ নম্বর পেয়ে ওই ইউনিটে মেধাক্রমে ৭০তম হয়েছিলেন মঈন। এমনকি ভর্তি পরীক্ষা পরবর্তী মৌখিক সাক্ষাৎকারেও মঈনের পরিবর্তে অন্য কেউ অংশ নিয়েছিলেন।

সে সময় জমা দেওয়া কাগজপত্রের ছবির সঙ্গে বর্তমানে তার কোন মিল না পাওয়া গেলে অনুষদের পক্ষ থেকে প্রক্টরিয়াল বডিকে বিষয়টি জানানো হয়। পরে জিজ্ঞাসাবাদে মঈন স্বীকার করেছেন, একটি জালিয়াতি চক্রের সাথে তার তিন লক্ষ টাকার চুক্তি হয়। বিশ্ববিদ্যালয়ের সমাজতত্ত্ব বিভাগের ২০০৮-০৯ শিক্ষাবর্ষের হোসাইন আল মাসুম নামে এক শিক্ষার্থী তাকে জালিয়াতির মাধ্যমে ভর্তি করিয়ে দেয়।

তিনি বলেন, প্রাথমিক জিজ্ঞাসাবাদে মঈন হোসাইন জালিয়াত চক্রের সদস্য হিসেবে আল মাসুমের কথা স্বীকার করেন।

তিনি আরও বলেন, মাসুম শুধুমাত্র ভর্তি জালিয়াতি চক্রের সাথে টাকা পয়সা লেনদেনের বিষয়টি দেখাশোনা করেছিলেন । তবে মঈনের হয়ে ভর্তি পরীক্ষায় কে অংশ নিয়েছিলেন এবং তার পরিচয় কি সে তথ্য এখনও পাওয়া যায়নি। জালিয়াতি চক্র সম্পর্কে মঈনকে জিজ্ঞাসাবাদ করা হচ্ছে। জিজ্ঞাসাবাদ শেষে জড়িতদের বিরুদ্ধে আইনি ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে জানান প্রক্টর।

 

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।