রোকেয়া হলে চলা অনশনে ৩ হলের নির্বাচিত স্বতন্ত্রদের সংহতি


ঢাবি টাইমস
Published: 2019-03-14 01:25:57 BdST | Updated: 2019-05-20 11:45:54 BdST

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রোকেয়া হল সংসদ নির্বাচনে কারচুপির অভিযোগ এবং নির্বাচনের প্রার্থীসহ ৭ জন ও অজ্ঞাতনামা ৪০ জনের বিরুদ্ধে হওয়া মামলার পরিপ্রেক্ষিতে গতকাল মঙ্গলবার রাত থেকে আজ সকাল পর্যন্ত বিক্ষোভ হয়েছে৷ ছাত্রীদের দাবি, রোকেয়া হল সংসদে পুনর্নির্বাচন, মামলা প্রত্যাহার ও হল প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক জিনাত হুদার পদত্যাগ। এবার রোকেয়া হলের আন্দোলনরত ছাত্রীদের দাবির সঙ্গে একাত্মতা জানালেন তিনটি ছাত্রী হল সংসদের নির্বাচনে জয়ী হওয়া ২১ জন স্বতন্ত্র প্রার্থী৷

আজ বুধবার বিকেলে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় সাংবাদিক সমিতির কার্যালয়ে আয়োজিত এক যৌথ সংবাদ সম্মেলনে এই একাত্মতা প্রকাশ করা হয়। কবি সুফিয়া কামাল হল, শামসুন নাহার হল ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হল সংসদে ভিপি, জিএসসহ বিভিন্ন পদে নির্বাচিত ২১ জন স্বতন্ত্র প্রার্থী রোকেয়া হলের ছাত্রীদের সঙ্গে একাত্মতা প্রকাশ করেন।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য পড়ে শোনান শামসুন নাহার হল সংসদে নির্বাচিত সাধারণ সম্পাদক (জিএস) আফসানা ছপা।

রোকেয়া হলের ঘটনায় উদ্বেগ ও শঙ্কা জানিয়ে লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, ‘ইতিমধ্যে আমরা জেনেছি যে ৪০ জনের বিরুদ্ধে অজ্ঞাতনামা মামলা করা হয়েছে এবং আন্দোলনকারীদের বিরুদ্ধে বিভিন্ন ব্যবস্থা নেওয়ার হুমকি দেওয়া হচ্ছে৷ এমতাবস্থায় আমরা হল সংসদে নির্বাচিত স্বতন্ত্র প্যানেল ও প্রার্থীরা এই ঘটনার তীব্র নিন্দা জানাচ্ছি এবং তাঁদের দাবিগুলোর সঙ্গে একাত্মতা ঘোষণা করছি৷’

সংবাদ সম্মেলনে অন্যদের মধ্যে শামসুন নাহার হল সংসদে নির্বাচিত সহসভাপতি (ভিপি) শেখ তাসনিম আফরোজ, কবি সুফিয়া কামাল হল সংসদে নির্বাচিত সহসভাপতি (ভিপি) তানজিনা আক্তার সুমা ও সাধারণ সম্পাদক (জিএস) মনিরা শারমিন, বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হল সংসদে নির্বাচিত সংস্কৃতি সম্পাদক তাসনিম হালিম মিম প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন৷

এদিকে রোকেয়া হলের বিক্ষোভের নেতৃত্বে থাকা হল সংসদে স্বতন্ত্র প্যানেল রোকেয়া পরিষদের ভিপি প্রার্থী মৌসুমী প্রথম আলোকে বলেন, ‘আমরা মঙ্গলবার রাত থেকে বুধবার সকাল পর্যন্ত বিক্ষোভ করেছি৷ মঙ্গলবার রাতে আমরা হলের প্রায় ১০ জন আবাসিক শিক্ষককে অবরুদ্ধও করেছি৷ কিন্তু প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক জিনাত হুদা আমাদের ফোনে জানিয়েছেন, আমরা কী করছি না করছি, তাতে তাঁর কিছুই যায় আসে না৷’

জানতে চাইলে রোকেয়া হলের প্রাধ্যক্ষ অধ্যাপক জিনাত হুদা বলেন, ‘তাঁরা যেসব দাবি জানাচ্ছে, তা পূরণের এখতিয়ার আমার নেই৷ আমি কারও বিরুদ্ধে মামলা করিনি৷ অহেতুক মিথ্যা গুজব রটিয়ে মঙ্গলবার রাতে উত্তেজনাকর পরিস্থিতি তৈরি করা হয়েছে।’

এ বিষয়ে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক এ কে এম গোলাম রব্বানী বলেন, বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টরিয়াল বডির পক্ষ থেকে বিক্ষোভকারী ছাত্রীদের ডাকা হয়েছিল। কিন্তু তাঁরা সহযোগিতা না করায় তাঁদের সঙ্গে বসতে পারেনি প্রক্টরিয়াল বডি৷

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।