ধর্ষিত স্বপন মামার মেয়ে, বিচারের দাবীতে পাশে আছে টিএসসি


Dhaka
Published: 2020-01-15 19:47:29 BdST | Updated: 2020-03-30 20:24:09 BdST

চা বিক্রেতা স্বপন মামার প্রতিবন্ধী মেয়ের অভিযুক্ত ধর্ষকের জামিন বাতিল ও তার দায়ের করা মিথ্যা মামলা থেকে অব্যাহতি দিতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষতে আহ্বান জানিয়েছেন ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসিভিত্তিক সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতারা।

একই সঙ্গে কর্মসূচিও ঘোষণা করা হয়েছে। বুধবার দুপুরে টিএসসিস্থ ঢাবি সাংবাদিক সমিতির কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলন থেকে এ কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে পাঠ করেন ঢাবি সাংবাদিক সমিতির সভাপতি আবির রায়হান। এসময় উপস্থিত ছিলেন ডাকসু এজিএস সাদ্দাম হোসেন, সদস্য তানভির হাসান সৈকত, রাইসা নাসের, রাকিব উদ্দিন, ঢাবি ডিবেটিং সোসাইটির সভাপতি আব্দুল্লাহ আল ফয়সালসহ টিএসসিভিত্তিক বিভিন্ন সামাজিক-সাংস্কৃতিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ।

লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, আবহমান কাল ধরে পশ্চাদপদতা ও সামাজিক অন্ধত্ব দূর করতে আন্দোলন সংগ্রামের এক অপর নাম টিএসসি। অথচ এই জাগ্রত পরিবারের সুদীর্ঘকালের সারথি স্বপন মামা একজন নির্যাতিত মানুষের নাম।

আরো বলা হয়, স্বপন মামার মানসিক ভারসাম্যহীন মেয়েকে ধর্ষণ করেছে গ্রামের এক লম্পট। সম্প্রতি জামিনে ছাড়া পেয়ে অভিযুক্ত ধর্ষক উল্টো স্বপন মামা ও তার ছেলের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও হয়রানিমূলক মামলা করেছেন।

এ ঘটনায় মর্মাহত উল্লেখ করে ও এর তীব্র প্রতিবাদ জানিয়ে ধর্ষকের সর্বোচ্চ শাস্তি দাবি করা হয়। এছাড়া দায়েরকৃত মিথ্যা মামলা থেকে স্বপন মামাসহ অভিযুক্তদের অব্যাহতি দিতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের নিকট দাবি জানানো হয়।

সংবাদ সম্মেলনে টিএসসি কেন্দ্রীক সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলো বৃহস্পতিবার বেলা ১টায় মানববন্ধন কর্মসূচি ঘোষণা করে। এছাড়া বিকেল ৩টায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান ও প্রতিবাদ কর্মসূচি ঘোষণা করে।

উল্লেখ্য, ২০১৮ সালের ১৯ সেপ্টেম্বর স্বপন মামার প্রতিবন্ধী মেয়েকে একই গ্রামের বাচ্চু মিয়া (৭০) ধর্ষণ করে বলে অভিযোগ পাওয়া যায়। ওইদিনই অভিযুক্তসহ তার দুই ভাই বাহার ও আক্কাসকে আসামি করে মামলা করার পর বাচ্চু মিয়াকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ।

এর ছয় মাস পর অভিযোগপত্র জমা দেয়া হলেও ব্রাহ্মণবাড়িয়ার নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাব্যুনাল থেকে আসামি ২৭ নভেম্বর জামিন পান। এরপর আসামিপক্ষের লোকজন স্বপন, তার ছেলে রনি এবং চাচাতো ভাইকে আসামি করে প্রথমে মাদকের ও ডাকাতির মামলা করে।

বাহ্মণবাড়িয়া সদরের বাসুদেব গ্রামের সেই বাচ্চু মিয়া এখন আরও বেপয়োয়া। মামলা তুলে নিতে ‘স্বপন মামা’ এবং তা পরিবারকে নানা ধরণের হূমকি-ধামকি দিচ্ছেন। এমনকি পরিবারের অন্য সদস্যদের সঙ্গেও একই ধরণের কাজ করার হুমকি দিচ্ছেন তারা। এতে ন্যায়বিচার পাওয়া থেকে তারা বঞ্চিত হতে পারেন বলে শঙ্কা তৈরি হয়েছে