ঢাবির প্রায় ৯০ শতাংশ শিক্ষার্থীর স্মার্টফোন আছে: উপ-উপাচার্য


ঢাবি টাইমস
Published: 2020-07-03 16:12:02 BdST | Updated: 2020-08-07 15:45:27 BdST

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ-উপাচার্য (শিক্ষা) অধ্যাপক এ এস এম মাকসুদ কামাল বলেন, ‘উন্নত দেশের মতো আর্থিক ও প্রযুক্তিগত সক্ষমতা আমাদের নেই। সক্ষমতা একদিনে গড়ে ওঠার বিষয়ও নয়। আমরা জরিপ চালিয়ে দেখেছি যে আমাদের প্রায় ৯০ শতাংশ শিক্ষার্থীর স্মার্টফোন আছে। সে ক্ষেত্রে প্রযুক্তিকে ব্যবহার না করার কারণে শিক্ষার্থীরা যাতে সেশনজটে না পড়ে, তার জন্যই অনলাইন ক্লাস চালুর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। ক্লাস শুরু হলে সবাই ধীরে ধীরে এর সঙ্গে অভ্যস্ত হয়ে উঠবে।’

করোনাভাইরাসের সংক্রমণের কারণে প্রায় তিন মাস বন্ধ আছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের (ঢাবি) ক্লাস-পরীক্ষা। ইতিমধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের কিছু বিভাগ পরীক্ষামূলকভাবে অনলাইনে ক্লাস নিয়েছে। তবে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্তে চলতি মাসের ৭ তারিখের মধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের সব বিভাগ ও ইনস্টিটিউটে পুরোদমে অনলাইন ক্লাস শুরু হচ্ছে।

গত মাসের শেষ সপ্তাহে বিভাগ ও ইনস্টিটিউট-প্রধানদের ‘সীমিত সামর্থ্য’ দিয়েই অনলাইনে শিক্ষা কার্যক্রম চালু করতে কর্তৃপক্ষের অনুরোধের পর এখন শিক্ষকেরা শিক্ষার্থীদের সঙ্গে যোগাযোগ করে তাঁদের কাছ থেকে ই-মেইল ঠিকানা ও ফোন নম্বরসহ অন্যান্য প্রয়োজনীয় তথ্য নিচ্ছেন, দিচ্ছেন অনলাইন ক্লাসবিষয়ক প্রয়োজনীয় পরামর্শ-নির্দেশনাও। কিছু বিভাগে ক্লাস শুরুও হয়েছে।

তবে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের প্রযুক্তিগত সীমাবদ্ধতাসহ কিছু কারণে অনলাইন ক্লাস কতটুকু ফলপ্রসূ হবে, তা নিয়ে সন্দিহান শিক্ষকদের অনেকে। পদার্থবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যান অধ্যাপক এ বি এম ওবায়দুল ইসলাম বলেছেন, ‘কর্তৃপক্ষের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী অন্য সব বিভাগের মতো আমাদের বিভাগেও ৭ জুলাইয়ের মধ্যে অনলাইন ক্লাস শুরু করার উদ্যোগ নেওয়া হয়েছে। তবে আমাদের বিজ্ঞান অনুষদে অনলাইন ক্লাস কতটুকু ফলপ্রসূ হবে, শিক্ষার্থীদের কতটা যুক্ত করতে পারব, তা জানি না।’