বিশ্ববিদ্যালয় দিবসে উদ্বোধন হচ্ছে জবির প্রথম আবাসিক হল


টাইমস ডেস্ক
Published: 2020-10-12 09:33:33 BdST | Updated: 2020-10-23 16:58:55 BdST

জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় বাংলাদেশের একমাত্র অনাবাসিক বিশ্ববিদ্যালয়। এই অনাবাসিক থেকে এবার প্রথম আবাসিক হল চালু করতে যাচ্ছে বিশ্ববিদ্যালয়।

ক্যাম্পাসের বিপরীত পাশে ছাত্রীদের জন্য ‘বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হল’ নামে ১৬ তলাবিশিষ্ট ১ হাজার আসনের একটি হলের নির্মাণ কাজ শেষ হয়েছে।

সকল কাজ শেষে হলটি এখন ছাত্রীদের থাকার উপযোগী বলে জানিয়েছে বিশ্ববিদ্যালয় কর্তৃপক্ষ। এ বছরের ২০ অক্টোবর ১৫তম বিশ্ববিদ্যালয় দিবসে হলটি উদ্বোধনের কথা রয়েছে।

প্রকল্প পরিচালক প্রকৌশলী মো. সেলিম খান জানান, ছাত্রী হলের সকল কাজ শেষ হয়েছে। হলে বিদুৎ,পানি এবং গ্যাসের সুবিধা চালু করা হয়েছে। লিফটের কাজ চলমান রয়েছে। ডাইনিং, আয়া ও নিরাপত্তারক্ষীসহ সকল বিষয় চালু প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। হলটি উদ্বোধনের জন্য পুরোপুরি প্রস্তত আছে। ক্যাম্পাস খুললেই হলে ছাত্রী উঠানোর আসন বিতরণ শুরু হবে।

হলে আসন বরাদ্দ এবং ছাত্রী উঠানোর বিষয়ে প্রভোস্ট ড. এস এম আনোয়ারা বেগম জানান, যেহেতু আমাদের আসন সীমিত, কাজেই যেসব শিক্ষার্থী প্রত্যন্ত অঞ্চল থেকে এসে ঢাকায় মেসে থাকছে, দরিদ্র ও মেধাবী মেয়েদের যাচাই-বাচাই করে আমরা হলে উঠাব। কিন্তু যারা অনার্স কিংবা মাস্টার্স ফাইনাল বর্ষে অধ্যায়ন করছে, এদের অগ্রাধিকার বেশি থাকবে। এদের সিট বরাদ্দ দেওয়ার পর খালি থাকলে এদের জুনিয়ররা অগ্রাধিকার পাবে। সবকিছুই একটা নীতি অনুযায়ী চলে। এখানেও এর ব্যতিক্রম ঘটবে না। কোনো ধরনের প্রভাব খাটিয়ে হলে সিট পাওয়া যাবে না।

উল্লেখ্য, ২০০৫ সালের ২০ অক্টোবর পুরান ঢাকায় আলো ছড়িয়ে কলেজ থেকে বিশ্ববিদ্যালয়ে রুপান্তরিত হয়েছে জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি)। কলেজ থাকা অবস্থায় বেশ কিছু হল থাকলেও তা বেদখল রয়েছে।

বিশ্ববিদ্যালয় পরবর্তী সময়ে বেগম ফজিলাতুন্নেছা মুজিব হল প্রকল্পের প্রথম দফায় মেয়াদ ছিল ২০১১ সালের জানুয়ারি থেকে ২০১৩ সালের জুন পর্যন্ত। দ্বিতীয় মেয়াদ ২০১৩ সালের জুন থেকে ২০১৬ সালের জুন। তৃতীয় দফায় ২০১৬ সালের জুন থেকে ২০১৮ সালের জুন পর্যন্ত বাড়ানো হয়।

সর্বশেষ ২০১৮ সালের জুন থেকে ২০১৯ সালের জুন পর্যন্ত মেয়াদ বাড়ানো হয়েছিল। দফায় দফায় মেয়াদ বাড়ানোর পর এবার আলোর মুখ দেখলো প্রকল্পটি। প্রায় ১০ বছরে সম্পন্ন হলো হলটির নির্মাণ কাজ।