কোটা আন্দোলনের নেতাদের হত্যার হুমকিদাতাদের গ্রেফতারের দাবি


টাইমস ডেস্ক
Published: 2018-05-16 17:51:51 BdST | Updated: 2018-08-21 08:23:39 BdST

কোটা সংস্কার আন্দোলনের দুই যুগ্ম আহ্বায়ক নুরুল হক নুর এবং রাশেদ খানকে হত্যার হুমকিদাতা ছাত্রলীগ নেতাদের দ্রুত গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছে কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীরা।

বুধবার (১৬ মে) দুপুর ১টায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) টিএসসির রাজু ভাস্কর্যের সামনে বিক্ষোভ মিছিল পরবর্তী এক সমাবেশে আন্দোলনকারীরা এ দাবি জানান। এ সময় বাংলাদেশ সাধারণ ছাত্র অধিকার সংরক্ষণ পরিষদের আহ্বায়ক হাসান আল মামুন, যুগ্ম আহ্বায়ক নুরুল হক নুর, রাশেদ খান, ফারুক হোসেনসহ সহস্রাধিক ছাত্র-ছাত্রী উপস্থিত ছিলেন।

এর আগে বেলা ১২টায় ছাত্রলীগ নেতাদের হুমকির প্রতিবাদে ঢাবি ক্যাম্পাসে একটি বিক্ষোভ মিছিল বের করেন কোটা সংস্কার আন্দোলনকারীরা। মিছিলটি ক্যাম্পাসের গুরুত্বপূর্ণ সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে টিএসসির রাজু ভাস্কর্যের সামনে এসে শেষ হয়। এখানে আন্দোলনকারীরা একটি সংক্ষিপ্ত সমাবেশ করেন।

সমাবেশে হাসান আল মামুন বলেন, সরকারের ইমেজকে নষ্ট করার জন্য একটি স্বার্থান্বেষী মহল এসব (হত্যার হুমকি) কাজ করেছে। যারা আমাদের ওপর হামলা করেছে তারা কোটাধারী। তারা চায় না কোটার যৌক্তিক সংস্কার হোক। এ সময় তিনি সরকারের কোটা বাতিলের প্রজ্ঞাপন দ্রুত জারির দাবি জানান।

নুরুল হক নুর বলেন, কোটা সংস্কার আন্দোলনের নেতৃত্ব দেয়ায় আমাদের আজ হত্যার হুমকি দেয়া হচ্ছে। কিন্তু আমরা কোনো হুমকিকে ভয় পাই না। কোটা সমস্যার সমাধান না হওয়া পর্যন্ত আমাদের আন্দোলন চলবে। তিনি বলেন, গতকাল রাতে আমাদেরকে হত্যার হুমকি দেয়া হলেও আজ এখন পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের মাধ্যমে কাউকে গ্রেফতার করা হয়নি।

সমাবেশ শেষে বর্তমানে আন্দোলনকারীরা শাহবাগ থানায় অবস্থান করছেন। তারা হত্যার হুমকিদাতাদের নামে সাধারণ ডায়েরি করবেন বলে জানা গেছে।

প্রসঙ্গত, মঙ্গলবার দিবাগত রাত দেড়টায় ছাত্রলীগের সদ্য-বিদায়ী কেন্দ্রীয় কমিটির সহ-সভাপতি ইমতিয়াজ বুলবুল বাপ্পী নুরুল হক নুর ও রাশেদ খানকে গুলি করে হত্যার হুমকি দেন। এ সময় তার সঙ্গে ছিলেন হাজী মুহম্মদ মুহসীন হল শাখা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মেহেদী হাসান সানী, চারু কলা অনুষদ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক ফাহিম ইসলাম লিমন, ছাত্রলীগ নেতা আরিফসহ ১৫-২০ জন।

টিআই/ ১৬ মে ২০১৮

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।