শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ে কর্মকর্তাকে পেটালেন কর্মচারী!


টাইমস অনলাইনঃ
Published: 2018-05-24 12:48:18 BdST | Updated: 2018-10-24 01:29:42 BdST

শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে এক কর্মকর্তাতে পিটিয়ে আহত করেছেন আরেক কর্মচারী। হামলায় আহত মো. জুবেদ মিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের পরিবহন দপ্তরের অফিস সহকারী। তিনি বর্তমানে সিলেট এমএজি ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন।

বুধবার রাত সাড়ে ১০ টার দিকে কমকর্তা-কর্মচারীদের ‘লন্ডনী বাড়ি’ স্টাফ কোয়ার্টারে এ ঘটনা ঘটে। হামলাকারী শফিক মিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের নিরাপত্তা দপ্তরের সুপারভাইজার।

বিশ্ববিদালয়ের সহকারী প্রক্টর জাহিদ হাসান হাসান ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, ‘আমরা শফিক মিয়ার বিরুদ্ধে মারধরের ঘটনাটি তদন্তের মাধ্যমে খোঁজ নিয়ে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করবো।’

আহত জুবেদ মিয়া বলেন, ‘দীর্ঘদিন ধরে শফিক মিয়া আমাকে হত্যার হুমকি দিয়ে আসছে। বুধবার তারাবির নামাজ শেষে আমি কোয়ার্টারে গিয়ে বাসার টিভির এন্টেনা ঠিক করতে গেলে শফিক মিয়া ও তার ছেলে নাঈম মিয়া আমার সাথে এসে বাকবিতণ্ডায় জড়ায়। তারা এক পর্যায়ে আমাকে লাঠি দিয়ে পেছন থেকে পিঠে আঘাত করা শুরু করে। এসময় চিৎকার শুনে আশপাশের কোয়ার্টারের সবাই এসে আমাকে আহত অবস্থায় উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে আসে।’

পরিবহন ড্রাইভার কামরুল হাসান বলেন, ‘আমি ঘটনার সময় সামনে ছিলাম না। চিৎকার শুনে এসে দেখি জুবেদ মিয়া আহত অবস্থায় পড়ে আছেন। পরে তাকে হাসপাতালে নিয়ে আসি।’

এর আগেও মারধরকারী শফিক মিয়ার বিরুদ্ধে মারধরের অভিযোগ এনেছিলেন স্টাফ কোয়ার্টারের অনেকেই। তার এবং তার ছেলের বিরুদ্ধে জালালাবাদ থানায় বিভিন্ন সময়ে মামলাও হয়েছে।

এর মধ্যে গত বছরে রসায়ন বিভাগের এমএলএস আব্দুর রউফকে মারধরের ঘটনায় জালালাবাদ থানায় দায়ের করা মামলায় বেশ কয়েকদিন জেল খাটে শফিক মিয়ার ছেলে নাইম।

এর আগে পরিবহন দপ্তরের ড্রাইভার কালাম মিয়াকে মারধরের ঘটনায় জালালাবাদ থানায় মামলা হলে ৮ হাজার টাকা ক্ষতিপূরণ দিয়ে রেজিস্ট্রারের মাধ্যমে সমঝোতায় মীমাংসা হয়।

বিদিবিএস 

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।