রাবি সিনেট-সিন্ডিকেটে বিএনপি-জামায়াতপন্থিদের সংখ্যাগরিষ্ঠতা


টাইমস প্রতিবেদক
Published: 2018-04-24 18:00:17 BdST | Updated: 2018-10-19 07:41:14 BdST

রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ে (রাবি) সিনেট, সিন্ডিকেট, ডিন, শিক্ষক সমিতিসহ সাত ক্যাটাগরিতে ৭০ পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। এতে অধিকাংশ ক্যাটাগরিতে আওয়ামীপন্থী ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মূল্যবোধে বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের (হলুদ প্যানেল) পরাজয় হয়েছে। এসব ক্যাটাগরির গুরুত্বপূর্ণ পদগুলো পেয়েছে বিএনপি জামায়াতপন্থী ‘জাতীয়তাবাদ ও ইসলামী মূল্যবোধে বিশ্বাসী শিক্ষক সমাজ’ (সাদা প্যানেল)।

মঙ্গলবার (২৪ এপ্রিল) সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের জুবেরি ভবনের শিক্ষক লাউঞ্জে একযোগে রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি, সিনেট, সিন্ডিকেট, ডিন, শিক্ষা পরিষদ, ফাইন্যান্স কমিটি এবং পরিকল্পনা ও উন্নয়ন কমিটির ভোটগ্রহণ শেষে রিটার্নিং অফিসার বিশ্ববিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রার অধ্যাপক এমএ বারী ফল ঘোষণা করেন। এই নির্বাচনে সরকারপন্থি শিক্ষকরা ‘মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মূল্যবোধে বিশ্বাসী প্রগতিশীল শিক্ষক সমাজের’ (হলুদ প্যানেল) ব্যানারে এবং বিএনপি ও জামায়াতপন্থিরা ‘জাতীয়তাবাদ ও ইসলামী মূল্যবোধে’ বিশ্বাসী শিক্ষক গ্রুপ (সাদা প্যানেল) ব্যানারে অংশ নেয়।

সিন্ডিকেটের মোট পাঁচটি পদের মধ্যে তিনটিতে, ডিনের নয়টি পদের মধ্যে পাঁচটিতে এবং সিনেটের ৩৩ পদের মধ্যে ১৯টি পদ পেয়েছে সাদা প্যানেল। শিক্ষক সমিতির ১৫টি পদের নয়টিতে, শিক্ষা পরিষদের ছয়টি পদের সবকটিতে, ফাইন্যান্স এবং পরিকল্পনা ও উন্নয়ন কমিটিতে একজন করে সবকটি পদে হলুদ প্যানেল জয়ী হয়েছে।

সিন্ডিকেটে সাদা দলের জয়ী সদস্যরা হলেন- অ্যাগ্রনমি অ্যান্ড এগ্রিকালচারাল এক্সটেনশন বিভাগের প্রাধ্যক্ষ মো.আব্দুল আলিম, প্রাণিবিদ্যা বিভাগের প্রফেসর মো.হাবীবুর রহমান ও পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক মো.মনিরুল হক।

আর হলুদ প্যানেল থেকে জয়ী হয়েছেন- ম্যাটেরিয়াল সায়েন্স বিভাগের সহকারী অধ্যাপক মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ আল মামুন ও বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় ভূতত্ত্ব ও খনিবিদ্যা বিভাগের মাসিদুল হক।

ডিন নির্বাচনে হলুদ প্যানেল থেকে বিজ্ঞান অনুষদে পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক খলিলুর রহমান খান, জীব ও ভূবিজ্ঞান অনুষদে প্রাণিবিদ্যা বিভাগের অধ্যাপক নজরুল ইসলাম, চারুকলা অনুষদে চিত্রকলা প্রাচ্যকলা ও ছাপচিত্র বিভাগের অধ্যাপক সিদ্ধার্থ শঙ্কর তালুকদার, বিজনেস স্টাডিজ অনুষদে হিসাববিজ্ঞান ও তথ্য ব্যবস্থা বিভাগের অধ্যাপক এম হুমায়ুন কবীর এবং আইন অনুষদে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় অধ্যাপক ড. এম আহসান কবির জয় পেয়েছেন।

অন্যদিকে সাদা প্যানেল থেকে সামাজিক বিজ্ঞান অনুষদে সমাজকর্ম বিভাগের অধ্যাপক ফখরুল ইসলাম, কলা অনুষদে ইসলামের ইতিহাস ও সংস্কৃতি বিভাগের অধ্যাপক ফজলুল হক, কৃষি অনুষদে ফিশারিজ বিভাগের অধ্যাপক সালেহা জেসমিন ও প্রকৌশল অনুষদে কম্পিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক একরামুল হামিদ জয়ী হয়েছেন।

শিক্ষক সমিতির সম্পাদকীয় পাঁচটি পদের মধ্যে কার্যনির্বাহী যুগ্ম-সম্পাদক পদ বাদে বাকি সব কটিতে হেরেছে হলুদ প্যানেল। সদস্য পদের দশটির মধ্যে আটটিতে জয়ী হয়েছে হলুদ প্যানেলের শিক্ষকরা।

সাদা প্যানেল থেকে শিক্ষক সমিতির সভাপতি পদে ফাইন্যান্স বিভাগের মো.আমজাদ হোসেন, সহ-সভাপতি পদে সমাজকর্ম বিভাগের মো.গোলাম কিবরিয়া ফেরদৌস, কোষাধ্যক্ষে রসায়ন বিভাগের এ বি এম হামিদুল হক, সাধারণ সম্পাদক পদে ফার্মেসি বিভাগের মামুনুর রশীদ নির্বাচিত হয়েছেন।

হলুদ প্যানেল থেকে শুধু যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক পদে নির্বাচিত হয়েছেন ভূগোল ও পরিবেশবিদ্যা বিভাগের আব্দুল্যাহ আল মারুফ।

মোট ৭০টি পদে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এর মধ্যে ৩৮টি পদে হলুদ ও ৩২টি পদে সাদা প্যানেল জয়লাভ করেছে।

এসএম/ ২৪ এপ্রিল ২০১৮

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।