‘আমরা সবাই আবরার হয়ে থাকতে চাই’


টাইমস ডেস্ক
Published: 2019-11-16 19:36:44 BdST | Updated: 2019-12-13 19:39:12 BdST

‘আমরা সবাই সব সময় আবরার হয়ে থাকতে চাই আমাদের মায়ের সঙ্গে’। বাংলাদেশ প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের (বুয়েট) কিছু শিক্ষার্থী নিহত আবরার ফাহাদের মায়ের সঙ্গে দেখা করে সমবেদনা জানানোর সময় এমন কথা বলেন।

জানা যায়, আদালতে মামলার অভিযোগপত্র জমা দেওয়ার পর আবরারের মা রোকেয়া খাতুনের আহাজারি টেলিভিশনে দেখে বুয়েটের কিছু শিক্ষার্থী সমবেদনা জানাতে শুক্রবার কুষ্টিয়ায় আবরারের বাড়িতে যান। এ সময় তারা আবরার ফাহাদের মায়ের সঙ্গে দেখা করে তার সঙ্গে বেশকিছু সময় কাটিয়েছেন। আবরারের গ্রামের বাড়ি কয়ার রায়ডাঙ্গা গ্রামেও অনেকটা সময় কাটান তারা। আবরারের কবর জিয়ারত করেন তারা। যেহেতু আবরার ফাহাদ নিহত হবার পর তার মা রোকেয়া খাতুন ঠিকমতো খাওয়া-দাওয়া করেন না, এজন্য বুয়েটের শিক্ষার্থীরা তার সঙ্গে দুপুরের খাওয়া দাওয়াতে অংশ নেন।

এই বিষয়গুলো তারা ফেসবুকে বুয়েটিয়ান নামে পেজে পোস্ট করেন। পোস্ট থেকে আরও জানা যায়, তারা সেখানে আবরারের মায়ের সঙ্গে দুপুরের খাবারে অংশ নেন এবং মসজিদে আয়োজিত দোয়া মাহফিলে শামিল হন। সেখানে পোস্ট করা কয়েকটি ছবির সঙ্গে তারা লেখেন, ‘অনেক দিন হচ্ছে, সন্তান হারানোর শোকে আমাদের মা ঠিকমতো খেতে পারছেন না। আজ কুষ্টিয়ায় আমাদের প্রিয় বন্ধু-ভাই আবরারের গ্রামের বাড়িতে আমাদের প্রিয় দুঃখিনী মাকে নিয়ে একসঙ্গে দুপুরের খাবার খেলাম। জানি, আমরা কেউই আবরারকে ফিরিয়ে দিতে পারব না, পারব না প্রিয় মায়ের সন্তান হারানোর দুঃখ ভুলিয়ে দিতে। কিন্তু আমরা সবাই সবসময় আবরার হয়ে থাকতে চাই আমাদের মায়ের সঙ্গে।

এই পোস্টের নিচে সোহরাব হোসেন লিখেছেন, পারলে নিয়মিত যোগাযোগ করবেন ভাই। জানি এতে তার সন্তান হারানোর ব্যথা কমবে না, কিন্তু একটু হলেও ভালো লাগবে ওনার।

ডালিয়া আফরোজ নামে একজন লিখেছেন, মহান আল্লাহ তোমাদের মঙ্গল করুন। আর এই দুঃখীনী মাকে শোক সহ্য করার ক্ষমতা দিন। জানি না কোনোদিন উনি আর শান্তি পাবেন কিনা। আল্লাহর কাছে প্রার্থনা করি জান্নাতে গিয়ে প্রিয় সন্তানের সঙ্গে দেখা হয় যেন উনার।

গত বুধবার আদালতে বুয়েট ছাত্র আবরার ফাহাদ হত্যা মামলার অভিযোগপত্র দেয় পুলিশ। হত্যার সঙ্গে জড়িত ২৫ জন প্রত্যক্ষ ও পরোক্ষভাবে অংশ নেয় বলে চার্জশিটে উল্লেখ করা হয়েছে। এই খবরে কুষ্টিয়া শহরের পিটিআই রোডে আবরার ফাহাদের বাড়িতে আবরারের মা ও স্বজনরা কান্নায় ভেঙ্গে পড়েন। এ সময় তার মা মিডিয়ার কাছে বলেন, দ্রুত অফিযোগপত্রের মতো দ্রুত বিচার ও প্রত্যেকের ফাঁসি চান তিনি। টেলিভিশনে আবরারের মায়ের আহাজারি দেখে বুয়েটের ওই ছাত্ররা তার মাকে সমবেদনা জানানোর সিদ্ধান্ত নিয়ে কুষ্টিয়ায় আবরারের বাড়িতে আসেন বলে জানা গেছে।

প্রসঙ্গত, গেল ছয় অক্টোবর রাতে বুয়েটের শেরেবাংলা হলের ২০১১ নম্বর কক্ষে ডেকে নিয়ে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা বেধড়ক পিটিয়ে হত্যা করে আবরারকে।

আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডের ঘটনায় তার বাবা বরকত উল্লাহ বাদী হয়ে ১৯ জনের বিরুদ্ধে চকবাজার থানায় মামলা করেন।

এইচজেড/ ১৬ নভেম্বর ২০১৯