ধর্ষণ অভিযোগের বিবৃতি দিতে পুলিশ সদর দপ্তরে নেইমার


ডেস্ক রিপোর্ট
Published: 2019-06-08 12:02:02 BdST | Updated: 2019-08-23 22:36:33 BdST

সময়টা একদম ভাল যাচ্ছে না নেইমার জুনিয়রের। চোটে পড়ে ঘরের মাটিতে আয়োজিত আসন্ন কোপা আমেরিকাতে দর্শক হয়ে থাকতে হবে তাকে। তার মধ্যে ক্রাচে ভর দিয়ে পিএসজি ফরোয়ার্ডকে দৌড়াদৌড়ি করতে হচ্ছে ব্রাজিলের পুলিশ সদর দপ্তরে।

নেইমারের আইনজীবি জানিয়েছে, ধর্ষণের অভিযোগের বিবৃতি দিতে ব্রাজিলের রিও ডি জেনেইরোর পুলিশ সদর দপ্তরে গিয়েছেন ব্রাজিলিয়ান ফুটবল তারকা।

এর আগে ব্রাজিলের ফুটবল ফেডারেশন জানায়, অনুমতি ছাড়া সাামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে  অভিযোগকারী নারীর ছবি ও টেক্সট মেসেজ প্রকাশ করার ব্যাপারে কথা বলতে পুলিশ স্টেশনে গেছেন নেইমার।

নাজিলা ত্রিনদাদে নামে ব্রাজিলের এক নারী গত শুক্রবার সাও পাওলোতে নেইমারের নামে ধর্ষণের অভিযোগ আনেন। ব্রাজিলের এক টিভি চ্যানেলকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি বিচারও চেয়েছেন।

অভিযোগ বলা হয়, ১৫ মে প্যারিসের এক হোটেলে ত্রিনদাদেকে ধর্ষণ করেন নেইমার। তবে ২৭ বছর বয়সী ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড অভিযোগটি অস্বীকার করেছেন। এবং তার পাশে থাকার জন্য সমর্থকদের ধন্যবাদ জানান।

ত্রিনদাদে এসবিটি নামে এক টিভি চ্যানেলকে জানান, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ইন্সটাগ্রামে নেইমারের সঙ্গে যোগাযোগ হয় তার। এরপর তিনি ব্রাজিলিয়ান ফুটবলারের প্রতি আকৃষ্ট হয়ে পড়েন। সম্মতিতে তার সঙ্গে যৌন মিলনে যেতে আগ্রহী হোন। এবং নিজ খরচে প্যারিসে গিয়ে একটি হোটেলে ওঠেন নেইমারের সঙ্গে যোগাযোগের জন্য।

তিনি আরো জানান, সাক্ষাতের পর নেইমার তার সঙ্গে ‘আগ্রাসী’ আচরণ শুরু করেন। এবং বালকের মতো শারীরিক মিলনের আগ্রহ প্রকাশ করেন। যদিও মিলনের ব্যাপারে আগ্রহী ছিলেন ত্রিনদাদেও।

পিএসজি তারকার প্রস্তাবে ত্রিনদাদে রাজি হোন তবে কন্ডম ব্যবহারের শর্ত দেন। কিন্তু নেইমার শর্ত না মেনে আক্রমণাত্মকভাবে তাকে ধর্ষণ করেন। ত্রিনদাদে নেইমারকে থামতে বললেও থামেননি।

তবে নেইমার ধর্ষণের অভিযোগ অস্বীকার করেছেন। বিশ্বের সর্বোচ্চ পারিশ্রামিক প্রাপ্ত ফুটবলার জানান, দু’জনের সম্মতিতে ব্যাপারটি ঘটেছে।

০২ জুন, ধর্ষণের অভিযোগটি নিয়ে নেইমার জানান, তাকে এবং তার পরিবারকে ভীতি প্রদর্শন করে অর্থ আদায় করতে নারীটি (ত্রিনদাদে) এবং তার আইনজীবি প্রতারণাপূর্ণ অভিযোগ তুলেছে।

পরে ০৬ জুন, ত্রিনদাদে হোটেল রুমের একটি ভিডিও প্রকাশ করেন। যেখানে তাদেরকে (নেইমার ও ত্রিনদাদে) মারামারি করতে দেখা যায়।

ব্যাপারটি নিয়ে নেইমার কোন গণমাধ্যমে কথা বলেননি। তবে তার পিতা এবং এজেন্ট নেইমার ডস সান্তোস জানিয়েছেন, নেইমার সম্পূর্ণ নির্দোষ।

ধর্ষণের অভিযোগের কারণে মাস্টারকার্ড নেইমারকে নিয়ে বানানো বিজ্ঞাপন সম্প্রচার করা থেকে বিরত রেখেছে। আর নেইমারের স্পন্সর ক্রীড়া সামগ্রী প্রতিষ্ঠান নাইকিও বিষয়টি নিয়ে ‘অত্যন্ত সচেতন’ হয়ে ওঠেছে।

নেইমার ও ত্রিনদাদের আইনজীবি সমঝোতার মাধ্যমে ব্যাপারটি নিষ্পত্তি করার চেষ্টা চালাচ্ছেন। 

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।