বঙ্গবন্ধু বিপিএলে চ্যাম্পিয়ন রাজশাহী


Dhaka
Published: 2020-01-18 04:25:28 BdST | Updated: 2020-07-11 17:05:50 BdST

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবার্ষিকী উপলক্ষ্যে বিশেষভাবে আয়োজন করা হয় বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগের (বিপিএল) ৭ম আসর, নাম দেয়া হয় বঙ্গবন্ধু বাংলাদেশ প্রিমিয়ার লিগ (বঙ্গবন্ধু বিপিএল)। বিপিএলের এই আসরে ছিলো নেই আর নেই এর ছড়াছড়ি। নেই কোনো ফ্র্যাঞ্চাইজি, নেই বাংলাদেশের প্রাণ সাকিব আল হাসান। সেই সাথে এই আসরে বাজেনি কোনো অর্থের ঝনঝনানি। অর্থাৎ রাখা হয়নি কোনো প্রাইজমানির ব্যবস্থা। সেই সাথে রাখা হয়নি চ্যাম্পিয়ন দলের শোকেসে শিরোপা সাজিয়ে রাখার সুযোগ।

এত সব নেই এর মাঝে সব কিছু ছাপিয়ে শিরোপা নির্ধারণী ম্যাচে শুক্রবার (১৭ জানুয়ারি) মাঠে নামে খুলনা টাইগার্স এবং রাজশাহী রয়্যালস। এই ম্যাচে বিপিএল পেলো নতুন এক চ্যাম্পিয়নকে। খুলনা টাইগার্সকে ২১ রানে হারিয়ে প্রথমবারের মতো শিরোপার স্বাদ গ্রহণ করলো আন্দ্রে রাসেলের রাজশাহী রয়্যালস।

রাজশাহীর দেয়া ১৭১ রানের জবাবে ব্যাট করতে নেমেই বড় রকমের হোঁচট খায় খুলনা। ইনিংসের দ্বিতীয় বলে রানের খাতা খোলার আগেই মোহাম্মদ ইরফানের শিকার হয়ে সাজঘরে ফিরে যান ওপেনার নাজমুল শান্ত।

দলীয় ১১ রানের মাথায় খুলনা শিবিরে দ্বিতীয় আঘাত হানেন আবু জায়েদ রাহী। আরেক ওপেনার মেহেদী মিরাজকে ২ রানে মাঠ ছাড়তে বাধ্য করেন এই বোলার।

এরপর রাইলি রুশোকে সাথে নিয়ে ইনিংস মেরামতের প্রচেষ্টা চালান শামসুর রহমান। কিন্তু তাদের প্রচেষ্টায় বাঁধা হয়ে দাঁড়ান মোহাম্মদ নেওয়াজ। ২৬ বলে ৩৭ রান করা রাইলি রুশোকে রাসেলের তালুবন্দি করে সাজঘরে পাঠান এই বোলার।

কিন্তু উইকেট আগলে রেখে লড়াই চালিয়ে যেতে থাকেন শামসুর। তুলে নেন ব্যক্তিগত অর্ধশতকও। কিন্তু বেশিক্ষণ ধরে রাখতে পারেননি দলের হাল। ৪৩ বলে ৫২ রান করে মাঠ ছেড়ে যেতে হয় তাকেও।

সুবিধা করতে পারেননি নাজিবুল্লাহ জাদরানও। ৪ রান করেই ফিরে যেতে হয় তাকেও।

দলের এমন পরিস্থিতিতে দলের হাল ধরতে এগিয়ে আসেন মুশফিকুর রহিম এবং ফ্রাইলিঙ্ক। এগিয়ে নিয়ে যেতে থাকেন দলকে। ১৫ বলে ২১ করা মুশফিক আন্দ্রে রাসেলের বলে বোল্ড হয়ে ফিরে গেলে বেশ চাপে পড়ে যায় খুলনা। এতে করে ১৩৪ রানে ৬ষ্ঠ উইকেটের পতন ঘটে জেমস ফস্টারের শিষ্যদের।

এরপর আর ম্যাচে ফেরা সম্ভব হয়ে উঠেনি মুশফিকদের। শেষতক খুলনার ইনিংস থামে ৮ উইকেটের খরচায় ১৪৯ রানে। ফলে ২১ রানের জয় নিয়ে প্রথমবারের মতো বিপিএলের শিরোপা জিতে নেয় রাজশাহী রয়্যালস।

খুলনার হয়ে ইনিংস সর্বোচ্চ রান করেন শামসুর রহমান (৫২)। আর রাজশাহীর পক্ষে ২৯ রানের খরচায় দুই উইকেট নেন কামরুল ইসলাম রাব্বি।

এর আগে টসে হেরে ব্যাট করতে নেমে টপ অর্ডারদের দৃঢ়তায় এবং শেষ দিকে রাসেল-নেওয়াজ ঝড়ে খুলনার সামনে ৪ উইকেটের বিনিময়ে ১৭০ রান তোলে রাজশাহী।