মা বললেন- আর্জেন্টিনা হারলে মাশরাফি খুব কষ্ট পেতো


টাইমস অনলাইনঃ
Published: 2018-05-27 18:10:05 BdST | Updated: 2018-06-18 17:32:13 BdST

আমার মাশরাফি ছোট বেলা থেকেই ফুটবলার মারাদোনার ভক্ত। আর মারাদোনার খেলা অনেক পছন্দ করে বলেই সে বরাবরই আর্জেন্টিনা ফুটবল দলের সমর্থক।

ও যখন বুঝতে শিখেছে তখন থেকেই ফুটবল বিশ্বকাপের সময় রাত জেগে খেলা দেখতো। যেদিন আর্জেন্টিনার খেলা থাকতো সেদিনের খেলা কোনোভাবেই মিস করতো না। যতো রাতেই খেলা হোক আর্জেন্টিনার খেলা না দেখে সে কোনোদিন ঘুমতো না। যেদিন আর্জেন্টিনা জিততো সেদিন রাতে বন্ধুদের নিয়ে মিছিল বের করতো মাশরাফি। আর যেদিন হেরে যেতো সেদিন আমার মাশরাফি খুব কষ্ট পেতো।

এভাবেই বাংলাদেশ ক্রিকেটের ওয়ানডে দলের সফল অধিনায়ক সেরা বাঙালি মাশরাফি বিন মুর্তজা ছোটবেলা ফুটবল বিশ্বকাপে কি করতেন বাংলানিউজকে সে বর্ণনা দেন তার মা হামিদা মুর্তজা বলাকা।

রোববার (২৭ মে) সকালে দেওয়া এক একান্ত সাক্ষাৎকারে তিনি আরও বলেন, আমার দুইটা ছেলেই ফুটবল খেলায় আর্জেন্টিনাকে সাপোর্ট করে। কিন্তু ওদের বাবা ব্রাজিলের খুব ভক্ত। মাশরাফি আর্জেন্টিনাকে সাপোর্ট করে বলেই আমিও আর্জেন্টিনাকে সাপোর্ট করি। আগে বিশ্বকাপ খেলা শুরু হওয়ার আগেই মাশরাফির বাবা ব্রাজিলের পতাকা টানাতো আর মাশরাফি আমার কাছ থেকে টাকা নিয়ে আর্জেন্টিনার পতাকা বানিয়ে সেই পতাকা টানাতো। ছোট বেলা থেকেই ওর (মাশরাফি) মধ্যে অনেক দেশপ্রেম রয়েছে। পতাকা টানানোর সময় প্রতিবারই বাংলাদেশের পতাকা ওপরে দিয়ে নিচে আর্জেন্টিনার পতাকা টানাতো। বিশ্বকাপ খেলা শুরু হলে মাশরফিকে আর্জেন্টিনার একটা পতাকা বানিয়ে দিলে হতো না। প্রতিবারই তাকে আর্জেন্টিনার তিন/চারটা পতাকা বানানোর টাকা দিতে হতো। ও প্রথমে বাড়িতে একটা পতাকা টানাতো তারপর ওর মামাবাড়িতে একটা আর ওর স্কুলের (নড়াইল সরকারি বালক বিদ্যালয়) সামনে একটা পতাকা টানাতো।

বিশ্বকাপ খেলায় যেদিন আর্জেন্টিনার খেলা থাকতো সেদিন মাশরাফি বন্ধুদের নিয়ে রাত জেগে হৈহুল্লোর করে খেলা দেখতো। খেলা শেষে ওরা গভীর রাতে বন্ধুরা মিলে খিচুড়ি রান্না করে খেতো। দিনের বেলা আর্জেন্টিনার সাপোর্টাররা আর ব্রাজিলের সাপোর্টাররা ফুটবল খেলতো। মাশরাফি ছোটবেলায় ফুটবল খেলায়ও অনেক ভালো ছিলো-- যোগ করেন এই মমতাময়ী মা।

বিদিবিএস 

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।