আমেরিকা আমার সেকেন্ড হোম: সাকিব


টাইমস ডেস্ক
Published: 2018-06-18 23:33:04 BdST | Updated: 2018-09-20 07:49:20 BdST

আমেরিকা আমার সেকেন্ড হোম। এজন্য প্রায়ই আমাকে আমেরিকায় আসতে হয়। এবার ফ্লোরিডায় পরিবারের সঙ্গে ঈদ করেছি। সবার সঙ্গে দেখা হয়ে বেশ ভালো লাগছে। নিউইয়র্কে প্রবাসীদের সঙ্গে আড্ডায় এ কথাগুলো বলেন ক্রিকেটে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডার ও বাংলাদেশের টেস্ট ও টি-টোয়েন্টি দলের অধিনায়ক সাকিব আল হাসান।

স্থানীয় সময় রবিবার রাতে নিউইয়র্কের জ্যাকসন হাইটসের বেলোজিনো পার্টি হলে বাংলাদেশের ক্রিকেটের অতীত, বর্তমান ও ভাবষ্যত নিয়ে নানান কথা বলেন সাকিব আল হাসান। আড্ডায় তিনি সাংবাদিক ও সুধীজনের বিভিন্ন প্রশ্নেরও উত্তর দেন।

বাংলাদেশের ক্রিকেট সম্পর্কে অধিনায়ক সাকিব বলেন, বাংলাদেশ ক্রিকেট দল ভালো করছে, আবার মাঝে মধ্যে খারাপও করছে। খেলায় আপস অ্যান্ড ডাউন থাকবেই। তবে ভালো করলে প্রশংসা, আর খারাপ করলে সমালোচনা হবে এটাই স্বাভাবিক। আমি সমালোচনাকে সবসময় অনুপ্রেরণা হিসাবে গ্রহণ করি। আগামী বছর বিশ্বকাপ ক্রিকেট। সেই বিশ্বকাপে আমাদের প্রত্যাশা থাকবে ভালো করার।

সম্প্রতি আফগানিস্তানের সঙ্গে সিরিজ পরাজয় প্রসঙ্গে সাকিব আল হাসান বলেন, সত্যি আমরা খারাপ করেছি। তবে এটাও সত্যি টি-টোয়ান্টি ফরম্যাটে আফগানিস্তান আমাদের চেয়ে র‌্যাঙ্কিং-এ উপরে।

রাজনীতিতে অংশগ্রহণ নিয়ে সম্প্রতি যে কথা উঠেছে সে প্রসঙ্গে এক প্রশ্নের সাকিব আল হাসান বলেন, এখন আমি ক্রিকেট নিয়ে ভাবছি। আর ভবিষ্যতের কথা কেউ বলতে পারে না। ভবিষ্যতই বলে দেবে আমি কী করব। আরেক প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, আমি ভাবিনি ক্রিকেটার হব। ছোট বেলায় ক্রিকেটের প্রতি আমার ফোকাস ছিল না। প্রতি বছর আমার স্বপ্ন পরির্তন হতো। কখনো মনে করতাম ডাক্তার, আবার ভাবতাম ইঞ্জিনিয়ার, আবার মনে করতাম ফুটবলার হব। কিন্তু শেষ পর্যন্ত ক্রিকেটারই হয়ে গেলাম।

অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন আয়োজক প্রতিষ্ঠান শো’টাইম মিউজিক অ্যান্ড প্লে’র (এসএমপি) সিইও আলমগীর খান আলম এবং সঞ্চালক হিসাবে ছিলেন সাংবাদিক শামীম আল-আমীন। অনুষ্ঠানের শেষ পর্বে স্পন্সরদের হাতে ক্রেস্ট তুলে দেন সাকিব আল হাসান এবং কৃষ্ণা তিথির সঙ্গীতের মাধ্যমে আড্ডার শেষ হয়।

এমএন/ ১৮ জুন ২০১৮

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।

Whoops, looks like something went wrong.