ওষুধ বিক্রেতার মাথা ফাটিয়ে ঢাবি ছাত্রলীগ থেকে স্থায়ী বহিষ্কার ২ নেতা


ঢাবি টাইমস
Published: 2018-09-24 01:35:49 BdST | Updated: 2018-12-10 16:02:06 BdST

তুচ্ছ ঘটনাকে কেন্দ্র করে ফার্মেসির এক কর্মচারীকে মেরে মাথা ফাটিয়ে দিয়েছে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় (ঢাবি) জহুরুল হক হল শাখা ছাত্রলীগের যুগ্ম আহ্বায়ক যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক আমির হামযা। এ ঘটনায় আমির হামযা ও তার সহযোগী ঢাবি সলিমুল্লাহ মুসলিম হল শাখা ছাত্রলীগের স্কুল ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক দেলোয়ার হোসেনকে সংগঠন থেকে স্থায়ীভাবে বহিষ্কার করা হয়েছে।

রোববার সন্ধ্যা সাড়ে ৭ টায় ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের সামনে অবস্থিত সেবা ফার্মেসিতে ফ্লাজিল ট্যাবলেট আনতে যায় আমির হামযা ও তার সহযোগী দেলোয়ার। দোকানে ওই ওষুধ না থাকায় ক্ষেপে যায় আমির হামযা।

নোটিস 

প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান, ওষুধ না পেয়ে বাকবিতণ্ডা শুরু করেন হামযা ও তার সঙ্গীরা। এক পর্যায়ে শুভ (২৮) নামের ওই কর্মচারীকে বেধড়ক মারধর শুরু করে আমির হামযা ও দেলোয়ার। একপর্যায়ে হাতের কাছে পাওয়া লোহা জাতীয় একটি বস্তু দিয়ে শুভর মাথায় আঘাত করে হামযা। এতে মাথা ফেটে যায় শুভর। আহত কর্মচারীর মাথায় ৮টি সেলাই দেয়া হয়েছে।

এ ঘটনা জানাজানি হলে ছাত্রলীগের নেতারা বৈঠক করে রাত সাড়ে ১১টায় হামযা ও দেলোয়ারকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত জানায় গণমাধ্যমকে।

আহত কর্মচারী 

ছাত্রলীগের একাধিক নেতা জানান, হামযার বিরুদ্ধে ক্যাম্পাস সংলগ্ন পলাশী মোড়সহ বিভিন্ন স্থানে চাদাবাজি ও মারামারির অভিযোগ রয়েছে।

এ প্রসঙ্গে জানতে বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রক্টর অধ্যাপক ড. এ কে এম গোলাম রব্বানী বলেন, “আমরা বিষয়টি জানলাম। ইতোমধ্যে তথ্যপ্রমাণ সংগ্রহের জন্য প্রক্টরিয়াল টিমকে ঘটনাস্থলে পাঠানো হয়েছে৷ ছাত্রদের কাছ থেকে এধরনের আচরণ কোনভাবেই গ্রহণযোগ্য না। দোষী প্রমাণিত হলে বিশ্ববিদ্যালয়ের পক্ষ থেকে তার বিরুদ্ধে ব্যাবস্থা নেয়া হবে।

সকল প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।